লাহোরের সেই ঘটনা শিক্ষা দিয়েছে সাঙ্গাকারাকে

২০০৯ সালে লাহোরে পাকিস্তান দলের সাথে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পর কেটে গেছে প্রায় ১১ বছর। লম্বা সময় ঘরের মাঠে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত থাকা পাকিস্তানে ফিরেছে ক্রিকেট, যার পেছনে কাজ করছে মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি)। ৪৭ বছর পর পাকিস্তান সফরে এসেছে এমসিসির দলটি, লক্ষ্য একটাই পাকিস্তানকে নিরাপদ প্রমাণ করা।

সিরিজে থাকছে তিন টি-টোয়েন্টি ও এক ওয়ানডে ম্যাচ। এমসিসি দলটির নেতৃত্বে থাকছে শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান ও এমসিসির প্রেসিডেন্ট কুমার সাঙ্গাকারা। ২০০৯ সালের সেই ঘটনার সময় দলের সাথে টিম বাসে ছিলেন তিনিও। অথচ সময়ের পরিক্রমায় পাকিস্তানে ক্রিকেট ফেরাতে কাজ করছেন লঙ্কান এই ব্যাটসম্যান।

২০০৯ সালে লাহোরের সেই ঘটনা তাকে শিক্ষা দিয়েছে উল্লেখ করার পাশাপাশি সাঙ্গাকারা জানান পাকিস্তানে ফিরতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছেন। পাকিস্তানে পৌঁছে জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ‘ক্রিকইনফোকে’ সাঙ্গাকারা বলেন, ‘ফ্ল্যাশব্যাকে ফিরে যাওয়ার কিছু নেই, সেদিনের পুরো ঘটনা আমার স্পষ্ট মনে আছে। এটা নিয়ে ভাবনায় ডুবে থাকার কিছুও নয়।’

‘তবে এমন একটি অভিজ্ঞতা যা আপনি ভুলে যেতে পারেন না। কারণ এসব আপনাকে জীবন ও খেলাধুলার ক্ষেত্রে দৃষ্টিভঙ্গি বদলে দেয়। আপনি নিজের মূল্যবোধ, চরিত্র ও অন্য অনেক কিছু সম্পর্কে শেখাবে।’

পাকিস্তানে ফিরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করেন ৪২ বছর বয়সী লঙ্কান ব্যাটসম্যান, ‘এটা নিয়ে বলতে আমার কোন অস্বাচ্ছন্দ্যবোধ নেই। এটি এমন কিছু নয় যা আমাকে হতাশ করে বরং এমন কিছু অভিজ্ঞতা আপনাকে শক্ত করে তুলবে। আজ লাহোরে আসতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি একই সাথে যারা সেদিন জীবন দিয়েছে তাদের সকলের ত্যাগের কথা স্মরণ করছি।’

মূলত পাকিস্তানের প্রেক্ষাপট বদলেছে, নিরাপত্তা ইস্যুতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই এমন বার্তা দিতেই তাদের পাকিস্তান সফর জানান এমসিসির প্রেসিডেন্ট, ‘আমাদের বার্তা সহজ। আমরা এখানে এসেছি কারণ আমরা নিশ্চিত যে একটা দুর্দান্ত সফর হবে। আমাদেরকে এখানে আনার জন্য পিসিবি ও সরকারের প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানাই।’

‘আর আমরা যদি সফলভাবে পাকিস্তান সফরটি শেষ করে যেতে পারি তাহলে পাকিস্তানের বাইরের দেশগুলোর জন্য বেশ ইতিবাচক বার্তাই হবে। তারাও এখানে অনায়েসে আসার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে কিছুটা হলেও ইতিবাচক অনুপ্রেরণা পাবে।’

উল্লেখ্য তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে আজ (১৪ ফেব্রুয়ারি) লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে লাহোর কালান্দার্স ও এমসিসি। সফরকারী এমসিসি পরের দুটি টি-টোয়েন্টি খেলবে যথাক্রমে পাকিস্তান শাহিনস ও নর্দার্নের বিপক্ষে। একমাত্র ওয়ানডেতে তাদের প্রতিপক্ষ মুলতান সুলতান।

পাকিস্তান সফরের এমসিসি স্কোয়াডঃ
কুমার সাঙ্গাকারা (অধিনায়ক), রবি বোপারা, মাইকেল বার্গেস, অলিভার হ্যানন-ডাল্বি, ফ্রেড ক্ল্যাসেন, মাইকেল লেস্ক, অ্যারন লিলি, ইমরান কাইয়ুম, উইল রোডস, সাফিয়ান শরিফ, রুলফ ভ্যান ডার মারউই, রস হোয়াইটলি।

কোচ: আজমল শাহজাদ।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

মাশরাফির ধন্যবাদ পেলেন অভিষেকদের তৈরির আড়ালে যারা

Read Next

বাধ্য ছেলে মাহমুদুলের আদর্শ রাহুল দ্রাবিড়

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
11
Share
error: Content is protected !!