হারানো পথের খোঁজ পেলেন মাহমুদউল্লাহ

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

বিশ্বকাপ থেকেই বাংলাদেশ যেন পথ হারিয়ে  খোঁজা এক জাহাজ আর ক্রিকেটাররা হলেন সেই জাহাজের নাবিক। লঙ্কা সফরে ভরাডুবির পর ঘরের মাঠে আফগানদের বিপক্ষে লজ্জাজনক টেস্ট হার, ত্রিদেশীয় সিরিজে ফাইনালে উঠলেও ছিলনা দাপটের ছাপ আর সবশেষ ভারত সফরে নাকানি চুবানি খাওয়ার ছবিতো এখনো টাটকাই। তবে এ সময়ে বয়সভিত্তিক দলগুলো খেলেছে দুর্দান্ত, এসএ গেমসে নারীদের পর ছেলেরাও জিতেছে সোনা। মাহমুদউল্লাহ বলছেন অগ্রগতির শুরু এখান থেকেই।

বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের হয়ে খেলতে যাওয়া বাংলাদেশের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান আজ (৯ ডিসেম্বর) দলটির জার্সি উন্মোচন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলের বাজে পারফরম্যান্স নিয়ে। তার মতে ক্রিকেটে উত্থান পতন থাকেই, সেরা সময় ফিরিয়ে আনতে নিজেরা চেষ্টা করছেন সর্বোচ্চ দিয়ে জানান রিয়াদ।

মাহমুদউল্লাহ অভিনন্দন জানান এসএ গেমসে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে সোনা জয়ী ছেলেদের বাংলাদেশে ক্রিকেট দলকে, ‘শুধু এতটুক বলতে পারি, সাম্প্রতিক সময়ে হয়তো আমরা খুব একটা ভালো পারফরম্যান্স করতে পারিনি। কিন্তু আমার মনে হয় আমাদের অনূর্ধ্ব ২৩ যেটা গোল্ড মেডেল অর্জন করলো প্রথমেই তাদের অভিনন্দন জানাতে চাই। কারণ আমি ব্যক্তিগতভাবে অনুভব করি এটা অনেক বড় একটা অর্জন আমাদের দেশের জন্য, ক্রিকেটের জন্য।’

এসএ গেমসে ক্রিকেটে সোনা জয়ের মত সাফল্য অর্জন করে নারী-পুরুষ দুই দলই। আর এই অর্জন দিয়েই দেশের ক্রিকেটের বাজে সময় অতীত হতে যাচ্ছে বলে মনে করেন রিয়াদ, ‘আমি মনে করি এটাই শুরু, সামনে আমাদের অনেকগুলো সিরিজ আছে, সিরিজ বাই সিরিজ চিন্তা করতে হবে চিন্তা করতে হবে যেন ভালো পারফরম্যান্সটা যেন আবার ফিরিয়ে আনতে পারি।’

‘কারণ ক্রিকেটে উত্থান পতন থাকবেই চেষ্টা করতে হবে এবং আমরা দৃঢ়ভাবে চেষ্টা করছি। এখন মাঠে যেন আমরা এটার প্রতিফলন ঘটাতে পারি। প্রথমত নারী দল এটা অর্জন করেছে তো ওদেরকেও অভিনন্দন জানাই। আমার মনে হয় এটা অনেক বড় একটা অগ্রগতি আমদের নারী ক্রিকেটের জন্য।’

এদিকে বিপিএলের উইকেট নিয়ে প্রশ্ন ওঠে প্রতিবারই, ফলে এবারের আসর শুরুর আগে ক্রিকেটার হিসেবে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের এই ব্যাটসম্যান কি ভাবছেন এমন প্রশ্নে মাহমুদউল্লাহ দিয়েছেন ভিন্ন আঙ্গিকের উত্তর। স্পোর্টিং উইকেট আশা করার পাশাপাশি তিনি বলছেন কঠিন উইকেট হলেও সেটায় ভালো খেলাটাও নিজেদের আত্মবিশ্বাস বাড়াবে, ‘আমার মনে হয় এসব মানিয়ে নেওয়ার অভ্যাস করাই ভালো। আপনি সবসময় ব্যাটিং বান্ধব উইকেট পাবেন না, ভিন্ন ভিন্ন সময় ভিন্ন ভিন্ন উইকেট থাকবে।’

‘আমার মনে হয় এ জিনিসগুলো ব্যক্তিগতভাবে আমি চিন্তা করবো যেন আমি নিজে কীভাবে নিজেকে উইকেটে মানিয়ে নিচ্ছি এবং সে অনুযায়ী পারফর্ম করতে হবে। যদি আমি কঠিন উইকেটে ভালো করতে পারি সেটা আমাকে আত্মবিশ্বাস দিবে সাথে অন্যদেরও আত্মবিশ্বাস জোগাবে।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

গেইলদের সাথে নিজেদের পার্থক্য তুলে ধরলেন মাহমুদউল্লাহ

Read Next

পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত চলতি মাসেই

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
4
Share
error: Content is protected !!