দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ

সিসিডিএম ও বিসিবির এক চিঠিতে দেশের প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেটের ম্যাচ চলাকালীন খেলোয়াড়, কোচ ও আম্পায়ারদের মোবাইল ফোন ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে বিসিবি। বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের ঘটনা ভিডিও করায় শুনানিতে ঢাকা রয়েল ক্রিকেটার্সের খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে দেশের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অভিযোগ তোলা হয়েছে।

আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচ চলাকালীন অফিসিয়ালরা ফোন ব্যবহার করতে পারেন না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই নিয়ম কঠিনভাবে মানা হলেও, ঘরোয়া ক্রিকেটে অনিয়ম দেখা যাচ্ছিলো বেশ কিছুদিন ধরেই। বাধ্য হয়েই বিসিবিকে তাই আবারো চিঠি দিয়ে সতর্ক করতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সিসিডিএমের সদস্য সচিব আলী হোসেন।

সিসিডিএমের সদস্যসচিব আলী হোসেন অবশ্য দাবি করলেন, ক্রিকেটাররা যেন ম্যাচ ফিক্সিংয়ে না জড়ান, সে জন্যই মুঠোফোন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাঁর ব্যাখ্যা, ‘সতর্কতার জন্যই এটা করছি। আসলে আগেই করা উচিত ছিল।’

যদিও, ক্রিকেট পাড়ায় গুঞ্জন, মূলত প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেটে বিভিন্ন অনিয়ম ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া এবং বোর্ড কর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসায় এই সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে ক্লাবগুলোকে।

গত ১৭ নভেম্বর কামরাঙ্গীরচর ও ঢাকা রয়েল ক্রিকেটার্সের ম্যাচে বাজে আম্পায়ারিংয়ের প্রতিবাদে মোবাইলে ধারণ করা একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এরপর শুনানিতে নাকি বিতর্কিত আম্পায়ারিংয়ের ঘটনা ভিডিও করায় ঢাকা রয়েল ক্রিকেটার্সের খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে ‘দেশের ক্রিকেটের ভাবমূর্তি নষ্ট’ করার অভিযোগ তোলা হয়েছে।

২ ডিসেম্বর তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেট লিগে গুলশান ক্লাব ও কাঁঠালবাগান ক্রিসেন্ট ক্লাবের মধ্যকার সুপার লিগের ম্যাচেও আম্পায়ারদের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ উঠেছে।

সিসিডিএম ও বিসিবির এক চিঠিতে খেলোয়াড়, কোচদের পাশাপাশি ম্যানেজার ছাড়া সব কর্মকর্তা এমনকি টিমবয়দের মুঠোফোন ব্যবহারও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইপিএল নিলামে নিবন্ধন করছেন যে ৬ জন বাংলাদেশি ক্রিকেটার

Read Next

চলে গেলেন বব উইলিস

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।