দল ফাইনাল খেলবে, উচ্ছ্বসিত অধিনায়ক শান্ত

নাজমুল হোসেন শান্ত বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ফাইনাল

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে নাজমুল একাদশ ফাইনাল আগেই প্রায় নিশ্চিত করে রেখেছিল। নাজমুল হোসেন শান্ত জানালেন টুর্নামেন্টটা উপভোগ করছেন তিনি। নিজের দল ফাইনালে খেলায় বেশ উচ্ছ্বসিতও। টুর্নামেন্টে পারফর্ম করা ক্রিকেটারদের প্রশংসাও করেছেন অধিনায়ক শান্ত।

গতরাতে মিরপুর হোম অফ ক্রিকেটে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে তামিম একাদশকে বিদায় করে ফাইনালে উঠেছে শান্ত একাদশ। চার ম্যাচে তিন জয়ে পয়েন্ট তালিকার সবার ওপরে থেকে ফাইনালে পা রেখেছে তারুণ্য নির্ভর শান্ত একাদশ। ফাইনাল খেলবে ভেবে উচ্ছ্বসিত অধিনায়ক শান্ত। ফাইনালে ভালো কিছু করার ইঙ্গিতও যেন দিয়ে রাখলেন অধিনায়ক,

“অবশ্যই ভালো লাগছে এরকম একটা টুর্নামেন্টে ফাইনাল খেলতে পেরে। এবং আমরা সবাই অনেক এনজয় করেছি এই টুর্নামেন্টটা। আর আশা করছি ফাইনালেও ভালো কিছুই হবে।”

করোনা ভাইরাসের কারণে সব ধরণের খেলা স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর এই টুর্নামেন্ট দিয়েই ক্রিকেটের প্রত্যাবর্তন হয়েছে বাংলাদেশে।  মার্চের পর থেকে ক্রিকেটাররা খেলার বাইরে থাকার পর বিসিবি প্রেসিডেন্ট’স কাপে দেশের ক্রিকেটাররা আবার হয়েছে একত্রিত। মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে ক্রিকেট ফেরাই ছিল মূল আকর্ষণ। হোক না নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে টুর্নামেন্ট। তিন দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী মনোভাবের কমতি ছিল না।

“সব থেকে বড় দিক ছিলো যে অনেক দিন পরে আমরা মাঠে এরকম একটা টুর্নামেন্ট খেলতে পারলাম। তো সবাই একসাথে একত্রিত হয়ে মাঠে খেলাটা অনেক বড় ব্যাপার ছিলো আমাদের জন্য। আর সবাই একসাথে ড্রেসিং রুম শেয়ার করা। ওভারঅল টুর্নামেন্টটা খুব বেশি এনজয় করেছি।” -শান্ত যোগ করেছেন।

মুশফিকুর রহিম সেঞ্চুরি করেছেন, আফিফ ৯৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন। মিডল অর্ডারে তৌহিদ হৃদয়, ইরফান শুক্কুররা দায়িত্ব নিয়ে ম্যাচ বের করার চেষ্টা করেন। বোলিংয়ে আলো ছড়াচ্ছেন সাইফউদ্দিন, তাসকিন, রুবেল, আল-আমিন, নাইম হাসানরা। সবার মধ্যেই পারফর্ম করে এগিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা রয়েছে। নিজেদের মধ্যে কঠিন প্রতিযোগিতা হচ্ছে। সবমিলিয়ে দেশের ক্রিকেটের ভালো দিক দেখছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

“পুরা টুর্নামেন্টে অনেক পজেটিভ দিক ছিলো। তার মধ্যে আমার মনে হয় যে মুশফিক ভাইয়ের একটা ইনিংস, আফিফের একটা ইনিংস। পাশাপাশি তৌহিদ হৃদয় ও ইরফান শুক্কুর ভাইয়ের কিছু ভালো ভালো ইনিংস ছিলো। আর বোলিং ডিপার্টমেন্টে যদি চিন্তা করি তাসকিন ভাই, আল-আমিন ভাই, নাঈম, নাসুম ভাই সবাই ভালো বোলিং করেছেন। সো নিজেদের মধ্যে একটা হেলদি কম্পিটিশিনও হচ্ছে, সবাই এনজয় করছে। সো ওভারঅল অনেক পজেটিভ দিক ছিলো, আশা করছি ফাইনালেও আমরা একটা পজেটিভ মাইন্ড সেটআপ নিয়ে আমরা যাবো।”

উল্লেখ্য, বিসিবি প্রেসেডেন্ট’স কাপের ফাইনাল আগামীকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও তা দুই দিন পেছানো হয়েছে বৃষ্টি শঙ্কায়। নাজমুল একাদশ ও মাহমুদউল্লাহ একাদশের শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচ হবে আগামী রবিবার মিরপুরে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘ফিরেই আলৌকিক কিছু করে ফেলবে না সাকিব’

Read Next

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ: পয়েন্ট বিভাজনে চোখ আইসিসির

Total
4
Share
error: Content is protected !!