দক্ষিণ আফ্রিকার সমস্যা সমাধানের পথ বাতলে দিলেন কেভিন পিটারসেন

সাবেক ইংলিশ কাপ্তান কেভিন পিটারসেন এগিয়ে এলেন দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে চলমান সঙ্কট নিরসনে। আক্ষরিক অর্থে সমাধান বলতে যা বুঝায় তা অবশ্য নয় তবে দক্ষিন আফ্রিকান বংশোদ্ভূত এই ব্যাটসম্যান টুইটারে পথ বাতলে দিলেন প্রোটিয়াদের। নানা অনৈতিক কার্যক্রমে বিধ্বস্ত দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে, সবশেষ ৬ মাসে অনেকটা অবশ বলা যায় দেশটির ক্রিকেট প্রশাসনকে।

ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার উপর এতটাই অসন্তোষ এসে পড়েছে প্রধান স্পন্সর প্রতিষ্ঠান স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের যে তারা আর চুক্তি নবায়নে যেতেও রাজি হচ্ছেনা। এদিকে দেশটির ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশনও বেশ ক্ষুব্ধ। কদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে নামতে পারেন চলমান দুর্নীতি, অনিয়মের বিরুদ্ধে আন্দোলনেও। এর আগে বিশ্বকাপের পরই ছাঁটাই করা হয় প্রধান কোচ ওটিস গিবসনকেও।

ইতোমধ্যে দেশটির প্রধান নির্বাহীর পদ থেকে অবশ্য সরিয়ে দেওয়া হয়েছে থাবাং মোরেকে। তার বিরুদ্ধে ছিল নানামুখী অভিযোগ, স্পন্সর প্রতিষ্ঠান থেকেও তাকে সরানোর অনুরোধ করা হয়েছিল অনেকবার। থাবাং মোরের উপর অসন্তোষের জের ধরে কদিন আগেই পদত্যাগ করেন ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ডের চেয়ারপারসন ইকবাল খান ও পরিচালক শার্লি জিল। এদিকে কদিন আগে এমজানসি সুপার লিগ টুর্নামেন্টে পাঁচজন সাংবাদিকের অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড জমা নিয়েও পড়েন তোপের মুখে।

সবমিলিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার চলমান এই সঙ্কট থেকে উত্তরণের পথ হিসেবে ৩৯ বছর বয়সী ইংলিশ ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেন দিয়েছেন সমাধান। টুইটারে দেওয়া পোস্টে তিনি সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটারদের বিভিন্ন দায়িত্ব ভাগ করে দেন। যেখানে তিনি লিখেন, ‘আমি দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটের সমস্যা সমাধান করতে পারি।’

এরপরই জুড়ে দেন একটি তালিকা যেখানে জ্যাকস পলকে প্রধান নির্বাহী, গ্রায়েম স্মিথকে পরিচালক, মার্ক বাউচারকে প্রধান কোচ, মাখায়া এনটিনিকে বোলিং কোচ, রবিন পিটারসেনকে স্পিন বোলিং কোচ ও জ্যাক ক্যালিসকে দলের পরামর্শক হিসেবে দেখানো হয়। এরপর শেষদিকে আবার প্রশ্ন জুড়ে দেন, ‘নিশ্চিতভাবেই এটি কঠিন নয়?’

Read Previous

যে কারণে তারকাবিহীন দল নিয়েই ইতিবাচক মিঠুন

Read Next

সেরা দল নিয়েই বিপিএলে পুর্ণ মনযোগ আরাফাত সানির

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
6
Share