এলপিএলের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন জাফনা স্ট্যালিয়ন্স

এলপিএলের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন জাফনা স্ট্যালিয়ন্স

লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ (এলপিএল) এর প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন জাফনা স্ট্যালিয়ন্স। শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে গল গ্ল্যাডিয়েটর্সকে ৫৩ রানের ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম আসরেই শিরোপা লাভ করার গৌরব অর্জন করে তারা।

হাম্বানটোটায় অনুষ্ঠিত একপেশে ফাইনালে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিং নেন জাফনা স্ট্যালিয়ন্সের অধিনায়ক থিসারা পেরেরা। স্ট্যালিয়ন্সের হয়ে শুরুটা দুর্দান্ত করেন দুই ওপেনার জনসন চার্লস এবং আভিষ্কা ফার্নান্ডো। মাত্র ২৮ বলে ৪৪ রান আসে উদ্বোধনী জুটিতে।

১ম সেমিফাইনালে স্ট্যালিয়ন্সের ম্যাচ সেরা চার্লসকে আউট করে গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে প্রথম ব্রেকথ্রু এনে দেন আরেক সেমিফাইনালের ম্যাচ সেরা ধনঞ্জয়া লাক্সান। এরপর চার রানের ব্যবধানে চারিথ আসালাঙ্কা এবং আভিষ্কা ফার্নান্ডো বিদায় নিলে কিছুটা বিপদে পড়ে স্ট্যালিয়ন্স।

৭০ রানে ৩ উইকেট হারানো স্ট্যালিয়ন্সকে এরপর বড় স্কোরের পথ দেখান মিডলঅর্ডারের দুই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। ৪র্থ উইকেটে তারা ৬৯ রানের জুটি গড়েন। ২টি করে চার ও ছয়ের মারে ৩৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন ডি সিলভা। হাফ সেঞ্চুরি থেকে চার রান দূরে থাকতে শোয়েব মালিকও বিদায় নেন। ৩৫ বলের ইনিংসে ৩টি চার ও ১ ছয়ের মার ছিল তার ইনিংসে।

শেষদিকে অধিনায়ক পেরেরার বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৮ রানের বড় সংগ্রহ গড়ে জাফনা স্ট্যালিয়ন্স। থিসারা পেরেরা মাত্র ১৪ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে ৩৯ রান করে অপরাজিত থাকেন।

গ্ল্যাডিয়েটর্সের পক্ষে লাক্সান ৩টি উইকেট নেন।

১৮৯ রানের বড় সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে শুরুতে খেই হারিয়ে ফেলে গল গ্ল্যাডিয়েটর্স। স্ট্যালিয়ন্সের বোলিং তোপে মাত্র ৭ রানে টপঅর্ডারের ৩ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে জয়ের স্বপ্ন ধূসর হতে থাকে গ্ল্যাডিয়েটর্সের।

৪র্থ উইকেটে ৫৫ রানের জুটি গড়ে দলের বিপর্যয় কিছুটা রোধ করেন অধিনায়ক ভানুকা রাজাপাকশে এবং শিহান জয়সুরিয়া। রাজাপাকশে মাত্র ১৭ বলে ৩ চার ও ৪ ছয়ে ৪০ রান করে শোয়েব মালিকের বলে আউট হয়ে যান। অধিনায়কের বিদায়ের পর আবারও গ্ল্যাডিয়েটর্সের ব্যাটিং লাইনআপে ধ্বস নামে।

আজম খান একাই লড়ে গেলেও অন্য ব্যাটসম্যানরা কেউ যোগ্য সহায়তা দিতে পারেননি। আজম খান ১৭ বলে ১ চার ও ৪ ছয়ে ৩৬ রান করে ডুয়ান অলিভিয়ারের বলে বিদায় নিলে গ্ল্যাডিয়েটর্সের জয়ের সম্ভাবনা নস্যাৎ হয়ে যায়। গ্ল্যাডিয়েটর্স শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৫ রান করলে ৫৩ রানের বড় জয়ে শিরোপা ঘরে তোলে জাফনা স্ট্যালিয়ন্স।

স্ট্যালিয়ন্সের পক্ষে শোয়েব মালিক এবং উসমান খান শিনওয়ারি ২টি করে উইকেট নেন।

চমৎকার অলরাউন্ড পারফরম্যান্সের জন্য ম্যান অফ দ্য ফাইনাল হন শোয়েব মালিক এবং পুরো টুর্নামেন্টে অসাধারণ পারফরম্যান্সের জন্য ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্ট হন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

জাফনা স্ট্যালিয়ন্সঃ ১৮৮/৬ (২০), শোয়েব ৪৬, থিসারা ৩৯*, ডি সিলভা ৩৩; লাক্সান ৪-০-৩৬-৩, আমির ৪-০-৩৬-১

গল গ্ল্যাডিয়েটর্সঃ ১৩৫/৯ (২০), রাজাপাকশে ৪০, আজম ৩৬, সাহান ১৭; শোয়েব ৩-০-১৩-২, উসমান ২-০-২০-২

ফলাফলঃ জাফনা স্ট্যালিয়ন্স ৫৩ রানে জয়ী

ম্যাচ অফ দ্য ফাইনালঃ শোয়েব মালিক (জাফনা স্ট্যালিয়ন্স)

ম্যান অফ দ্য টুর্নামেন্টঃ ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা (জাফনা স্ট্যালিয়ন্স)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বাংলা টাইগার্সের কোচ হচ্ছেন পল ফারব্রেস

Read Next

উইজডেনের চোখে বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশ

Total
4
Share