অনুশীলন শুরু করতে ‘৩’ পরিকল্পনা, প্রয়োজন ছাড়া করোনা টেস্ট নয়

বাংলাদেশ অনুশীলন মাশরাফি

ধীরে ধীরে বিশ্বজুড়ে শিথিল হতে শুরু করেছে লকডাউন। করোনা ভাইরাস প্রভাবে স্থগিত হয়ে যাওয়া দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজগুলো মাঠে গড়ানোর প্রস্তুতিও শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট দলগুলো। ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড জুলাইয়ের শুরুতেই আতিথেয়তা দিতে যাচ্ছে ক্যারিবিয়ানদের। বেশিরভাগ দলগুলো শুরু করেছে অনুশীলনও। তবে ক্রমশ করোনা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাওয়ায় এখনই অনুশীলন নিয়ে ভাবতে পারছেনা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যদিও অনুশীলন শুরুর পরিকল্পনা চেয়েছে বোর্ডের প্রধান চিকিৎসকের কাছে।

বিসিবির চাওয়ায় তিনটি পরিকল্পনা ইতোমধ্যে প্রস্তুতও করেছেন প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী। যার মধ্যে একা অনুশীলন প্রাধান্য পাবে সবার আগে। তিনটি পরিকল্পনাই বোর্ডে জমা দিবেন বলে জানালেও সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এখনই দলবদ্ধ অনুশীলন শুরুর পর্যায়ে নেই বলে সাফ জানিয়ে দিলেন তিনি।

দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, ‘বিসিবি আমার কাছে পরিকল্পনা চেয়েছে। আমি ৩টা পরিকল্পনা তৈরি করেছি। সেগুলো জমা দেবো। তারা সিদ্ধান্ত নিবে কবে থেকে তা শুরু করতে পারবে। পরিকল্পনা চেয়েছে। কিন্তু আমাকে বলা হয়নি কবে থেকে শুরু করবে। আমরা নিজেরাও জানি না এই পরিস্থিতিতে আমাদের কাজ শুরু করা সহজ হবে কি না।’

‘পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। এখন গ্রুপ ট্রেনিং কোনোভাবে সম্ভব নয়। আমি তিনটা পরিকল্পনা দিব তার মধ্যে একটা হলো একক ট্রেনিং। সেখানে একজন ক্রিকেটার দিনে এক ঘণ্টা করে সময় পাবে। সেটিও তাকে একা একা করতে হবে। তাকেও খুব কম সংখ্যক স্টাফ সাহায্য করবে। এতে করে বেশি মানুষ না থাকায় ভয়ও কম থাকবে।’

বর্তমানে দেশের করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে বলেই দলগত অনুশীলনের ঝুঁকি না নেওয়ার পক্ষে বিসিবির এই চিকিৎসক, ‘এখন আমরা ঝুঁকি নিতে পারি না। কারণ এখন আগের চেয়ে পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। এখন যদি দলবদ্ধ ট্রেনিং শুরু করতে যাই তাহলে অনেক লোক দরকার হবে। যেমন টিম বয়, সুইপার, ফিজিও, ট্রেনার। এত মানুষকে নিয়ন্ত্রণ করা আমাদের পক্ষে সম্ভব হবে না। তাই যদি একজন করে হয় সেই ক্ষেত্রে ভাবা যেতে পারে তাও কবে থেকে সেটি বলা মুশকিল।’

মাঠে ট্রেনিং ফিরলে ঢালাওভাবে সবারই করোনা টেস্ট হবে না উল্লেখ করে দেবাশীষ চৌধুরী যোগ করেন, ‘এখনই কাউকে প্রয়োজন ছাড়া টেস্ট করা হবে না। তবে এটি নিশ্চিত সামনে কোন সিরিজ হলে বা মাঠে খেলা ফিরলে আমরা প্রয়োজন অনুসারে টেস্ট করাবো। ধরেন একটা সিরিজে যারা খেলতে যাবে। তাদের সঙ্গে থাকা কোচ থেকে শুরু করে সাপোর্ট স্টাফ সবাইকে টেস্ট করিয়ে একটা নিয়ম ও গণ্ডির মধ্যে রাখা হবে। এখন সবাইকে টেস্ট করিয়েতো লাভ হবে না।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘সেরা সময়ের শাহাদাত মাশরাফির চেয়েও ভাল টেস্ট বোলার’

Read Next

শক্তি ও টাকা নিয়ে এগিয়ে এসে পিএসএলকে বাঁচাবেন শোয়েব

Total
8
Share
error: Content is protected !!