কোহলি-রোহিতের দ্বন্দ্বের মূলে তবে এই!

কোহলি-রোহিতের দ্বন্দ্বের মূলে তবে এই!

সবশেষ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর রোহিত শর্মা ও ভিরাট কোহলির সম্পর্ক ফাটলের খবর বেশ ফলাও করে প্রকাশ করেছে ভারতীয় গণমাধ্যম। দুজনের সম্পর্কের শীতলতা নিয়ে অবশ্য গুঞ্জনটা বহুদিন ধরেই, যদিও সংবাদ মাধ্যমের কাছে প্রতিনিয়তই দুজনেই অস্বীকার করে গেছেন। এ নিয়ে বারবার ব্যাখ্যা দিতে হয়েছে খোদ কোচকেও, তবে এতদিন পর এসে দুজনের বিরোধের কারণটা তুলে ধরেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ডেকান ক্রনিকল।

কোহলি-রোহিতের দ্বন্দ্বের মূলে তবে এই!
ফাইল ছবি (সংগ্রহীত)

তাদের প্রতিবেদন বলছে ভারতীয় মারকুটে ওপেনার রোহিত শর্মার স্ত্রীর সঙ্গে বছর ছয়েক আগে সিনেমা দেখতে যাওয়াই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে দুজনের সম্পর্কের অবনতির জন্য। ২০১৩ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজে সফর থেকে ফিরে এসে রোহিতের স্ত্রী ঋতিকার সাথে ঘুরতে ও সিনেমা দেখতে দেখা যায় কোহলিকে।

তখনও অবশ্য রোহিত শর্মার পত্নীরুপে আবির্ভাব হননি ঋতিকা, রোহিতের সাথে সংসার শুরু হয় ২০১৫ সালে। কিন্তু নিজের প্রেমিকার অমন ঘুরোঘুরি তাও নিজের সতীর্থের সাথে হয়তো ভালো চোখে নিতে পারেনি রোহিত শর্মা। সে থেকেই কোহলি-রোহিতের সম্পর্কের টানাপোড়ন শুরু বলে ডেকান ক্রনিকলের প্রতিবেদন উল্লেখ করে। যদিও কোহলি ঋতিকা বেশ ভালো বন্ধু বলেই নিজেদের দাবি করে আসছিল।

এদিকে যতই মিডিয়াকে রোহিত, কোহলি কিংবা দলের কোচ বোঝানোর চেষ্টা করুক কোহলি- রোহিত সম্পর্ক নিয়ে ছড়িয়ে পড়া খবর কেবলই গুঞ্জন কিছু বিষয় স্পষ্ট করে দেয় যা রটেছে তার কিছু হলেও বটেছে। এই যেমন বেশ কিছুদিন আগে কোহলি ও রোহিত পত্নী আনুশকা শর্মা ও ঋতিকা দুজন দুজনকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আনফলো করে দেওয়া।

মূল ঘটনা যাই হোক দিন দুয়েক আগেও দলের দুই ক্রিকেটারকে নিয়ে বলতে গিয়ে প্রধান কোচ শাস্ত্রী জানান এসব কেবলই গুঞ্জন। দলের প্রতিটি ক্রিকেটারের আলাদা আলাদা মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে। প্রত্যেকের সাথে প্রত্যেকের মতের অমিল থাকতে পারে কিন্তু সেটা কখনই সাংঘর্ষিকতায় রুপ নেয়নি।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

‘আমি কোন দিকে যাবো বুঝতে পারছি না’

Read Next

কাটাপড়া আঙ্গুল নিয়েই কামিন্সের ভেলকি!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Total
5
Share