তামিমের চোখে দশক সেরা পারফরম্যান্স

মাশরাফি বিন মর্তুজা মুস্তাফিজুর রহমান নাসির হোসেন

এখন পর্যন্ত কেবল একটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজে ভারতকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৫ সালে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজে ভারতকে হারিয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ। যেই সিরিজ দিয়েই বিশ্বমঞ্চে আলোড়ন সৃষ্টি করে আগমনী বার্তা দিয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। ওয়ানডে অভিষেকে মুস্তাফিজের দারুণ বোলিং তামিম ইকবালের চোখে এই দশকে সেরা পারফরম্যান্স।

নিজের ওয়ানডে অভিষেকে ভারতকে প্রতিপক্ষ হিসাবে পেয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। বল হাতে ৫০ রান খরচে ৫ উইকেট নিয়ে ভারতকে পরাজয় উপহার দিয়েছিলেন মুস্তাফিজ। ভারতকে ৭৯ রানে হারাবার ম্যাচে ম্যাচসেরা হয়েছিলেন তিনি।

নিজের পরের ম্যাচে মুস্তাফিজ ছিলেন আরো সফল। তার বোলিং তোপে ভারত অলআউট হয় ২০০ রানেই। ৪৩ রান খরচে ৬ উইকেট নেন মুস্তাফিজ। টানা দুই ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতেন তিনি। বাংলাদেশ ম্যাচটি জেতে ৬ উইকেটের ব্যবধানে। যদিও তামিমের চোখে অভিষেক ম্যাচের পারফরম্যান্সই বেশি স্পেশাল।

ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোকে তামিম ইকবাল জানান,

‘আমি তাকে (মুস্তাফিজুর রহমান) নেটে কখনো খেলিনি। তাই তার সম্পর্কে আমার কোন ধারণাই ছিল না। যখন আমি মুস্তাফিজকে ভারতের বিপক্ষে ওর ওয়ানডে অভিষেকে বল করতে দেখলাম তখন সেটা আমার জন্য সারপ্রাইজ ছিল। এবং এটা শুধু আমার জন্যই না, গোটা বিশ্ব এক বাংলাদেশি ফেনোমেনোনের বার্তা পেয়েছিলো।

মুস্তাফিজ বল করতে নেমেছিল বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটিং লাইনআপের বিপক্ষে। যেটা তার পারফরম্যান্সের মাহাত্ম বাড়িয়ে দেয়। প্রথম স্পেল তার খুব একটা ভালো যায়নি। পরবর্তীতে যখন সে আক্রমণে আসলো কাটার দিয়ে সে রোহিত শর্মাকে পরাস্ত করলো। আমরা সবাই মিলে ওর ওয়েনডে ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট প্রাপ্তিতে আনন্দ করছিলাম। এর পরে ও নিজেকে ছাড়িয়ে যেতে লাগলো। আজিঙ্কা রাহানেকের ফেরালো, কাভারে দারুণ ক্যাচ নিয়েছিলো নাসির। ওটা ছিলো স্লোয়ার কাটার।

স্লোয়ারে রবীন্দ্র জাদেজাকে লং অনে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করে পঞ্চম উইকেট পাবার আগে সে সুরেশ রায়না, রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে সাজঘরে ফিরিয়েছিলো। আমাদের মধ্যে যারা ওকে কখনো বল করতে দেখিনি তারা খুব এক্সাইটেড হিলাম।

বিশ্ব মঞ্চে এই স্পেল মুস্তাফিজকেই কেবল চেনায়নি, সে এই স্পেল দিয়ে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ জিততে সাহায্য করেছিল।

পরবর্তী ম্যাচে সে আবার ৬ উইকেট পেলো। যা নিশ্চিত করেছিল পরবর্তীতে সে কিরূপ বোলার হয়ে উঠবে। কিন্তু আমার কাছে এই দশকে সবচেয়ে স্পেশাল পারফরম্যান্স হয়ে থাকবে ওর ওয়ানডে অভিষেকের স্পেল।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে সুযোগ পেয়েই ব্যাটে ঝড় তুললেন জিয়া

Read Next

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে শেষ হাসি কুমিল্লার

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
15
Share
error: Content is protected !!