ইয়াশাভি জাইসাওয়ালের গল্পটা হার মানাবে সিনেমাকেও

ইয়াশাভি জাইসাওয়াল

আগামী বছর জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য ১৩ তম যুব বিশ্বকাপে সবার আগে দল ঘোষণা করেছে ভারত। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের স্কোয়াডে সুযোগ পাওয়া ব্যাটসম্যান ইয়াশাভি জাইসাওয়ালের গল্পটা হার মানাবে সিনেমার গল্পকেও। পানি পুরি বিক্রেতা থেকে ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রতিনিধিত্ব করার পেছনে যে লুকিয়ে হাজারো সংগ্রামের চিত্র।

বয়স মাত্র ১৭, খেলেছেন ৯ টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ ও ১ টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ। নিজেকে প্রমাণের ও ভবিষ্যত তারকা হিসেবে নজরে রাখার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট বানিয়ে দিয়েছেন ইয়াশাভি। ঘরোয়া ক্রিকেটে টিকে থাকতে তাঁবুতে বসবাস ও পানি পুরি বিক্রি করা ছাড়াও যতটা সংগ্রামের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন তা দিয়ে বানানো যাবে একটি বলিউড সিনেমা।

সবশেষ বিজয় হাজারি ট্রফিতে রেকর্ড ভাঙা রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের জন্য জায়গা করে নিয়েছেন ভারতীয় স্কোয়াডে। মুম্বাইয়ের হয়ে ১১২.৮০ গড়ে রান করেছে ৫৬৪, তিন সেঞ্চুরির বিপরীতে এক হাফসেঞ্চুরি। যার মধ্যে ঝাড়খন্ডের বিপক্ষে ১৫৪ বলে খেলা ২০৩ রানের ইনিংসটি ছিল রেকর্ড, লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে জাইসাওয়ালই এখন সর্বকনিষ্ঠ ডাবল সেঞ্চুরিয়ান।

উত্তরপ্রদেশের এক দোকানির ছেলে ইয়াশাভি শুধুমাত্র ক্রিকেট নিয়ে বেঁচে থাকার তাড়নায় নানা বাধা বিপত্তি মাড়িয়ে ছুটে আসেন মুম্বাইতে। তিন বছর ধরে মুসলিম ইউনাইটেড স্পোর্টিং ক্লাব সংলগ্ন তাঁবুতে থাকতেন, জীবিকার তাগিদে বিক্রি করতেন পানি পুরি ও ফল। ছিলনা পর্যাপ্ত খাবারের ব্যবস্থা, সুস্থ পরিবেশের টয়লেটও।

নিজের সেসব দিনের কথা তুলে ধরতে গিয়ে ইয়াশাভি জানায়, ‘যখন আমার বন্ধুরা দেখতো আমি পানি পুরি বিক্রি করি তখন আমার লজ্জা লাগতো। তবে এসব আমায় দমাতে পারেনি। এখনো সুযোগ পেলে আমি পানি পুরি খাই। সেসব দিনগুলো আমি ভুলতে পারবনা। আমার মনে রাখতে হবে আমি কোথা থেকে এসেছি এবং চেষ্টা করি আগের মতই থাকতে ও পরিশ্রম করতে।’

২০১৫ সালে স্কুল ক্রিকেটের একটি ম্যাচে অপরাজিত ৩১৯ রানের ইনিংসের পাশাপাশি ৯৯ রান খরচায় ম্যাচে ১৩ উইকেট তুলে নিয়ে আলো কাড়েন। এরপর ভারতের জার্সিতে বয়সভিত্তিকে নিজেকে প্রমাণ করেন ভালোভাবেই। এখনো পর্যন্ত ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলেছেন ১৫ টি একদিনের ম্যাচ। রান করেছেন ৬৫.৩৩ গড়ে ২ সেঞ্চুরির সাথে ৬ ফিফটিতে ৭৮৪। বাঁহাতি এই তরুণের স্বপ্ন এখন ভিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পুজারা, যুবরাজ সিং, মোহাম্মদ কাইফদের মত নিজেকে জাতীয় দলে দেখতে পারা যারা তাঁর মতই যুব দলের হয়ে নিজেকে প্রমাণ করেছিলেন।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আইপিএল নিলামের জন্য নিবন্ধন করেছেন ‘৬’ বাংলাদেশি

Read Next

রংপুর রেঞ্জার্সকে ‘না’ বলে দিলেন গ্রান্ট ফ্লাওয়ার

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।