‘অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্রিকেটের সকল কার্যক্রম বন্ধ’

সাকিব আল হাসান

১১ দফা দাবি নিয়ে আজ সংবাদ সম্মেলন করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। মিরপুরের একাডেমি মাঠে একে একে সাকিব-তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান। ক্রিকেটারদের ১১ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত বাংলাদেশে সব ধরনের ক্রিকেটীয় কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

ক্রিকেটারদের মুখপাত্র হিসেবে জাতীয় টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান জানিয়েছেন, বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে থাকায় অনূর্ধ্ব–১৯ দলের খেলোয়াড়দের এ আন্দোলনের বাইরে রাখা হয়েছে। নারী দলের ক্রিকেটারদের সাথে আলোচনার সুযোগ না পেলেও নারীরা এই দাবির সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে বাড়তি কিছু সংযোজন করতে চাইলে সেটা করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

১১ দফা দাবির এক একটি করে বলেন নাইম ইসলাম, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, জুনায়েদ সিদ্দিকী, নুরুল হাসান সোহান, ফরহাদ রেজা’রা।

এরপর দাবি গুলো নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ ও আরও বিস্তারিত ভাবে বলেন সাকিব আল হাসান,

‘আমাদের ফার্স্ট ডিভিশন, সেকেন্ড ডিভিশন, থার্ড ডিভিশনের মান আমরা সবাই জানি। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় অনেক এসেছে, আমাদের মানটা আসলে কোন লেভেলের। ম্যাচে যাওয়ার আগেই অনেক সময় জেনে যায় কোন দল জিতবে, কোন দল হারবে। এটা আমাদের জন্য আসলে খুবই দুঃখজনক। আমাদের জন্য এটা ঠিক করা খুবই জরুরি বলে আমরা মনে করি। একটা খেলোয়াড়ের ক্যারিয়ারের অনেক বিষয় থাকে এর মধ্যে।’

‘ভালো একটা প্লেয়ার, সে ভালো একটা বলে আউট হয়ে যেতে পারে। কিন্তু দুটো কিংবা তিনটি ম্যাচে পরপর যদি সে বাজে সিদ্ধান্তের জন্যে আউট হয়ে যায়, তারপর যদি ভালো বলেও আউট হয়ে যায়, তার ক্যারিয়ারটা ওখানেই ধ্বংস হয়ে যায়। আমাদের খেলোয়াড়দের উঠতে, দিতে, আসতে হলে এই জায়গাটা; পাইপলাইনটা উন্নত করা আসলেই জরুরি।

‘দাবিদাওয়া পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কোন ধরণের ক্রিকেট কার্যক্রমে অংশ নেবেন না ক্রিকেটাররা। জাতীয় দল, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটারসহ সবাই এই ধর্মঘটের অন্তর্ভূক্ত এবং সেটা আজ থেকে। জাতীয় লিগ থেকে শুরু করে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট বলেন, জাতীয় দলের প্রস্তুতি বলেন, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বলেন সবগুলোই এর অন্তর্ভূক্ত। আলোচনা সাপেক্ষে অবশ্যই সবকিছুর সমাধান হবে। দাবিগুলো যখন মানা হবে তখন আমরা আমরা স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরে যাব। কারণ আমরাও সবাই চাই যে ক্রিকেটের উন্নতি হোক।’

‘এখানে একটা প্লেয়ার কেউ তিন বছর, চার বছর, দশ বছর খেলবে। কেউ দশ বছরও খেলবে; তাদের জন্য আমরা ভালো একটা পরিবেশ রেখে যেতে চায়। যেখান থেকে আসলে বাংলাদেশের ক্রিকেটটা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারবে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সাকিবদের ধর্মঘটে বিসিবির তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া

Read Next

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ৩৪ ক্রিকেটার, সর্বোচ্চ সম্মানী ম্যাথুসের

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।