সিলেট টেস্ট জিততে শান্ত-মুমিনুলদের করতে হবে ৫১১ রান

৯৭ প্রতিবেদক:

প্রকাশ : 2 মাস আগে আপডেট: 1 সেকেন্ড আগে
সিলেট টেস্ট জিততে শান্ত-মুমিনুলদের করতে হবে ৫১১ রান

সিলেট টেস্ট জিততে শান্ত-মুমিনুলদের করতে হবে ৫১১ রান

সিলেট টেস্ট জিততে শান্ত-মুমিনুলদের করতে হবে ৫১১ রান

সিলেট টেস্টের তৃতীয় দিন আজ। আগের দিন পাওয়া ২১১ রানের লিড ও ৫ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কা আজ নামে ব্যাটিংয়ে, এরপর টাইগাররা পেয়েছে কেবলই হতাশা। বাংলাদেশের জন্য রীতিমতো দুঃস্বপ্নে পরিণত হন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা ও কামিন্দু মেন্ডিস। দুজনেই প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পান সেঞ্চুরির দেখা, গড়েছেন রেকর্ড। ধনঞ্জয়া সেঞ্চুরির পর বিদায় নিলেও বাংলাদেশের বোলাররা চা বিরতির আগে থামাতে পারেননি কামিন্দু মেন্ডিসকে। শেষ পর্যন্ত ব্যক্তিগত ১৬৪ রানে উইকেট হারান কামিন্দু। শ্রীলঙ্কা থামে ৪১৮ রানে, তাতেই বাংলাদেশের সামনে টার্গেট 

দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকালে লঙ্কানদের ৫ উইকেট তুলে নিয়েছিল বাংলাদেশ। আজ সকালের সেশনে প্রাপ্তি কেবল নাইটওয়াচম্যান বিশ্ব ফার্নান্দোর উইকেট। আগের দিনই মিলেছে কার্যকর লিড। আজ রেকর্ড গড়া জোড়া সেঞ্চুরিতে সেই লিড আরও বাড়িয়ে নেন অধিনায়ক ধনঞ্জয়া ও কামিন্দু মেন্ডিসের ব্যাট।

সিলেট টেস্টের লাগাম তাই পুরোপুরি শ্রীলঙ্কার হাতে। দ্বিতীয় ইনিংসে ৪১৮ রান করা শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশকে দিয়েছে ৫১১ রানের টার্গেট।

নাইটওয়াচম্যান হিসাবে গতকাল বিকালে ব্যাটিংয়ে নামা বিশ্ব ফার্নান্দো আজ অবশ্য ফিরেছেন দ্রুত। এরপর ধনঞ্জয়া ডি সিলভা আর কামিন্দু মেন্ডিস মিলে গড়েন ১৭৩ রানের পার্টনারশিপ। তাতেই যেন লিডের পাহাড় হয়ে যায় লঙ্কানদের। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নেমেই কামিন্দু মেন্ডিসের রেকর্ড দুই সেঞ্চুরি।

শুরুতে নড়বড়ে কামিন্দু মেন্ডিস সময়ের সাথে ফিরেছেন চেনাছন্দে। একপ্রান্ত আগলে রাখা অধিনায়কের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের সাথে অন্যপ্রান্তে রানের চাকা সচল রাখার কাজটা দারুণভাবে সামলান। দুজনেই পাল্লা দিয়ে রান যোগ করছেন। আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ধনঞ্জয়া আজ ফিফটি ছুঁয়েছেন ৮২ বলে। ক্যারিয়ারের ১২তম শতক থেকে ১৫ রান দূরে থেকে ধনঞ্জয়া যান মধ্যাহ্নভোজ বিরতিতে। শতক পর্যন্ত যেতে খরচ করেন সমান ৮২ বল। এবারই প্রথম এক টেস্টের দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি পেলেন ডি সিলভা।

৩৮.৫ থেকে ৮৪.২ ওভারে গিয়ে উইকেটের দেখা পায় বাংলাদেশ। মেহেদী হাসান মিরাজ দলকে এনে দেন কাঙ্ক্ষিত ব্রেকথ্রু। সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রেকর্ড ছুঁয়ে ব্যক্তিগত ১০৮ রানে উইকেট হারান লঙ্কান অধিনায়ক, ভাঙে ১৭৩ রানের জুটি। ধনঞ্জয়ার দেখানো পথে হাঁটেন কামিন্দু মেন্ডিসও। ৬৯ বলে ছুঁয়েছেন পঞ্চাশ, এরপর একের পর এক স্ট্রোক্সে ছুটতে থাকেন টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরির দিকে। ১৭০ বলে ছুঁয়েছেন ব্যাক টু ব্যাক শতক হাঁকানোর মাইলফলক।

এর আগে মাত্র দু'বার একই দলের দুই ব্যাটার টেস্ট ম্যাচের দুই ইনিংসেই ১০০ রান করেছেন। ধনঞ্জয়া-কামিন্দুর আগে ১৯৭৪ সালে দ্য চ্যাপেল ব্রাদার্স এই রেকর্ড প্রথমবারের মতো লিখেন। এরপর ২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই পাক ব্যাটার আজহার আলি ও মিসবাহ উল হক এই রেকর্ডে ভাগ বসান।