সর্বনাশের মূলে ‘স্ট্রোক মেকিং’

রঙিন পোশকখানা গায়ে জড়ালেই বেশ উজ্জীবিত বাংলাদেশ দল। ওয়ানডের সাথে টি-টোয়েন্টিতেও মেলে ধরছে নিজেদেরকে। তবে সাদা পোশাক গায়ে চাপালেই কেমন যেন মলিন হয়ে যায় টাইগারদের পারফরম্যান্স, খুঁজে পাওয়া যায় না ছন্দটা। যার মধ্যে আবার বেশি ধুকতে হয় ব্যাটিং ব্যর্থতাতে। জিম্বাবুয়ের সাথে সিলেট টেস্টেও দেখা গেল একই চিত্র। ক্রিকেটের কেতাবি সংস্করণে ধারাবাহিক এই ব্যর্থতার জন্য নিজেদের আবেগকে দায়ি করলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

আবার একটা টেস্ট ম্যাচ হার, আবার কাঠগড়াতে ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ববোধ। হাতে সময় দুই দিন, ওভারের বিচারে তা দুশোর মত। এই দুই দিনে জয়ের জন্য বাংলাদেশ দলের প্রয়োজন ২৯৫ রান। ম্যাচের চতুর্থ ইনিংস বিবচনাতে যা হয়তো একটু দুঃসাধ্যই ঠেকতে পারে, তবে অসম্ভব হওয়ার কথা নয়। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ব্যাটসম্যানরা যদি একটু দায়িত্ব নিয়ে খেলতেন, তবে বোঝাটা এত বড় হতো না।

হলোনা এবারও, হারাতে হলো ম্যাচটা। এতে হতাশ হয়েছেন দলের অধিনায়কত্ব মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তাকে সবচেয়ে বেশি হতাশ করেছে ব্যাটসম্যানদের অতিরিক্ত শট খেলার প্রবনতা। এমনটা জানিয়ে রিয়াদ বলেন, ‘আমার মনে হয় আমাদের স্ট্রোক মেকিংটা মাত্রাতিরিক্ত। এই জিনিসটা আমরা হয়তো আবেগী হয়ে করছি। এখানে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। শট সিলেকশনে আরেকটু চুজি হতে হবে আমাদের। আমরা কোন বোলারকে কখন কিভাবে খেলতে পারি এটা দেখতে হবে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আমার কাছে সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনেহয় আমরা ছোট ছোট পার্টনারশিপও তৈরি করতে পারছি না। যদি টার্গেট করি একটা ৫০ রানের পার্টনারশিপ বা আমরা তৈরি করতে পারি ১০০ রানের পার্টনারশিপ। টপ অর্ডার থেকেও যদি একটা বড় রান আসে তাহলে পরে এইটা তৈরি করা যায়। কিন্তু টপ টু বটম আমরা সবাই ফেইল করছি। তো এই জিনিষগুলা যদি আমরা ঠিক করতে পার তাহলে ঢাকা টেস্টে ভিন্ন বাংলাদেশ দেখতে পাবেন।’

সিলেটের উইকেট কিংবা নিজেদের বোলিং। কোথাও কোন খামতি দেখছেন না অধিনায়ক। তার চোখে ব্যর্থতার দায়ভার পুরোপুরি দলের ব্যাটসম্যানদেরই। তিনি জানালেন, ‘আমি শুধু ব্যাটিংটা নিয়ে বলতে পারি। আপনি উইকেটের দোষ দিতে পারবেন না। বোলারদের বিরুদ্ধেও অভিযোগ করতে পারবেন না। কারণ তাঁরা ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করছে।’

অ্যাডমিন

Read Previous

‘এটা আমাদের ভাবমূর্তির বিষয়’

Read Next

‘চট্টগ্রাম টু সিলেট’ সব ভেন্যুর অভিষেকেই জয়হীন বাংলাদেশ!

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।