বিগ ব্যাশের আদলে বিপিএল, চলছে যথাসময়ে আয়োজনের চেষ্টা

মাহবুব আনাম নিজাম উদ্দিন চৌধুরী

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটে বিপিএল নিয়ে হচ্ছে নানা আলোচনা। কখনো বোর্ড কর্তারা বলছেন পেছাতে পারে বিপিএল আবার কখনো শোনা যাচ্ছে ঠিক সময়েই হচ্ছে বিপিএল। সবশেষ দিন কয়েক আগে বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জানিয়েছেন বিপিএল নির্ধারিত সময়ে আয়োজনের চেষ্টাই চলছে।

আজ (১০ অক্টোবর) স্পন্সর নিতে আগ্রহ প্রকাশ করা দলগুলোকে নিয়ে সভা শেষে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলও বলছে তারা ঠিক সময়ে আয়োজনের চেষ্টাই করছেন। তবে পরিস্থিতি অনুযায়ী পেছালেও সেটা ৭-১০ দিনের বেশি নয়। কথা বলেছেন স্পন্সরদের নিয়ে কার্যক্রম কতটুক এগিয়েছে আর তাদের দায়িত্ব নিয়েও।

মিরপুর আজ (১০ অক্টোবর) বিকেলে স্পন্সরদের সাথে সভা শেষে বোর্ড পরিচালক মাহবুব আনাম সাংবাদিকদের সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলেন। স্পন্সর নিশ্চিতের ব্যাপার কতদূর এগিয়েছে জানাতে গিয়ে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সেই সদস্য বলেন, ‘আপনারা জানেন যে বিপিএল দলগুলোর জন্য আমরা ইওআই চেয়েছি আর আজ চারটা দলের স্পন্সরের সাথে আলাপ আলোচনা হয়েছে। তাদেরও কিছু জিজ্ঞাসা ছিল আমাদেরও কিছু জিজ্ঞাসা ছিল। তারা কোন ব্যাকগ্রাউন্ড থেকে এসেছে তাদের পরিধি কিরকম থাকবে সেগুলো আমরা তাদেরকে বুঝিয়ে দিয়েছি।’

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও যোগ করেন, ‘পরবর্তীতে কমিটি বোর্ডকে জানাবে, এরপর বোর্ড চূড়ান্ত পূর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্ত নিবে যে কাকে কাকে নির্বাচন করা হল বা কাদের দায়িত্ব দেওয়া হল। সবাইকে যে নিতে হবে এমন কোন কথা নেই, তারা যদি বোর্ডের শর্ত পুরণ করতে না পারে তাহলেতো নেওয়া যাবেনা।’

স্পন্সরদের ক্ষমতা কতটুকু থাকবে জানতে চাইলে মাহবুব আনাম বলেন, ‘স্পন্সরশিপ পাওয়ার সাথে সাথে তারা কি কি সুবিধা পাবে সেসব আমরা বলে দিয়েছি। জাতীয় দলের স্পন্সররা যেসব সুবিধা পায় তারাও ঠিক সেটাই পাবে। সরাসরি কোন ভূমিকা থাকবেনা তবে তারা পরোক্ষভাবে পরামর্শ দিতে পারে। যেমন তারা হয়তো জানাতে পারে তাদের দলে কোন কোন খেলোয়াড় থাকতে পারে। তবে প্লেয়ার ড্রাফটের বাইরে কোন খেলোয়াড় দলে অন্তর্ভূক্তি করতে হলে স্পন্সর নিজের খরচে সেটা করবে।’

নিজেদের ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মত বিপিএল আয়োজন করতে যাচ্ছে বিসিবি। বোর্ড সভাপতি বেশ কিছুদিন এর প্রক্রিয়াকে তূলনা করেছেন বিগ ব্যাশের সাথে। আজ মাহবুব আনামও স্পন্সর ইস্যুতে জানালেন প্রায় একই কথা, ‘স্পন্সররাতো আসলে কোন দায়িওত্ব নিচ্ছেনা। তারা বিসিবিকে একটা অঙ্কের টাকা দিবে বিসিবি তার নিজস্ব অর্থ থেকে টাকাগুলো খরচ করবে। বিগ ব্যাশ যেভাবে খেলা হয় এটা কিন্তু সেভাবেই হচ্ছে। বিগ ব্যাশের প্রত্যেকটা দলের মালিক স্টেট টিম, মানে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড দলগুলোর মালিকানা নিজেদের করে নেয় এবং বোর্ড তাদের নিজস্ব অর্থায়নে টুর্নামেন্ট আয়োজন করে। শুধু আলাদা আলাদা দলের জন্য স্পন্সর ঠিক করে নেয়।’

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

শেষ বলের রোমাঞ্চে লঙ্কানদের হারালো বাংলাদেশ ‘এ’ দল

Read Next

দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নে বিপিএলে আসছে যেসব বাধ্যবাধকতা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।