বাংলা টাইগার্সের টিম ডিরেক্টর হলেন ক্লুজনার

আবুধাবি টি-১০ লিগের গত আসরে প্রথমবার নাম লেখায় বাংলাদেশি মালিকানাধীন বাংলা টাইগার্স ফ্র্যাঞ্চাইজি। প্রথম আসরেই তারকা সমৃদ্ধ দল গড়ে দর্শক জনপ্রিয়তা অর্জন করার পাশপাশি ফ্র্যাঞ্চাইজিটি টুর্নামেন্ট শেষ করে তৃতীয় স্থানে থেকে। দলটির সাথে এবারের আসরে টিম ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান অলরাউন্ডার ল্যান্স ক্লুজনার।

নিজেদের ফেসবুক পেইজে দেওয়া এক পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ‘বাংলা টাইগার্স’। দলটির মালিকানায় আছেন এফএমসি গ্রুপের কর্ণধার ইয়াসিন চৌধুরী ও বিসিবির সাবেক পরিচালক সিরাজউদ্দিন মোহাম্মদ আলমগীর। ৮ দলের অংশগ্রহণে আয়োজিত টুর্নামেন্টটিতে গতবারই প্রথম কোন বাংলাদেশি দল যুক্ত হয়।

চলতি বছর ১৯-২৮ নভেম্বর পর্যন্ত আবুধাবির শেখ জায়েদ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে চলবে আবুধাবি টি-১০ লিগের চতুর্থ আসর। টুর্নামেন্টটির বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ডোয়াইন ব্রাভোর নেতৃত্বাধীন মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স।

‘বাংলা টাইগার্সের’ টিম ডিরেক্টর হিসেবে নিয়োগ পাওয়া ল্যান্স ক্লুজনার দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলেছেন ৪৯ টেস্ট, ১৭১ ওয়ানডে ম্যাচ। দলে অবদান রাখতেন ব্যাটে-বলে সমান তালে। ৪৯ টেস্টে ব্যাট হাতে ১৯০৬ রানের পাশপাশি উইকেট নিয়েছেন ৮০ টি। অন্যদিকে ১৭১ ওয়ানডেতে ৩৫৭৬ রারেন বিপরীতে মিডিয়াম ফাস্ট বোলিংয়ে পকেটে পুরেছেন ১৯২ উইকেট।

২০০৪ সালে অবসরে যাওয়া এই প্রোটিয়া অলরাউন্ডার পরবর্তী জীবনে পেশা হিসেবে বেছে নেন কোচিংকে। ইতোমধ্যে কাজ করেছেন আফগানিস্তান, জিম্বাবুয়ে জাতীয় দল ও বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টুর্নামেন্টেও।

২০১৬ সালে জিম্বাবুয়ের ব্যাটিং কোচ ও ২০১৯ সালে আফগানিস্তান জাতীয় দলের হেড কোচ হিসেবে নিয়োগ পান ৪৮ বছর বয়সী এই প্রোটিয়া। ২০১০ সালে বাংলাদেশের বোলিং কোচ হিসেবেও কাজ করার কথা ছিল ক্লুজনারের শেষ পর্যন্ত স্ত্রীকে রাজি করাতে না পারায় টাইগারদের বোলিং কোচ হয়ে বাংলাদেশে আসা হয়নি।

এর বাইরে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া দল ডলফিনের প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করেন ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত। যেখান থেকে নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ারও শুরু করেন ক্লুজনার। কাজ করেছেন ইউরো টি-টোয়েন্টি স্লাম ও ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটেও।

প্রথম আসরে বাংলা টাইগার্সের হয়ে খেলেন আন্দ্রে ফ্লেচার, রাইলি রুশো, রবি ফ্রাইলিঙ্ক, থিসারা পেরারা, কলিন ইনগ্রাম, ডেভিড ওয়াইসের মত বিদেশি তারকারা। জাতীয় দলের খেলা থাকায় সাকিব, তামিম, মুশফিকদের না পেলেও আবু হায়ফার রনি, এনামুল হক বিজয়, মেহেদী হাসান, ফরহাদ রেজা, আরিফুল হক, ইয়াসির আলি রাব্বিদের দলে ভিড়িয়েছিল বাংলাদেশি মালিকানাধীন দলটি।

যদিও একই সময়ে ঘরোয়া ক্রিকেট চলায় কেবল ফরহাদ রেজারই সুযোগ হয়েছিল বাংলা টাইগার্সের জার্সি গায়ে মাঠে নামার। দলটির প্রধান কোচ হিসেবে ছিলেন আফতাব আহমেদ।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

আলাদিনের দৈত্যের কাছে মাশরাফির ‘৩’ চাওয়া

Read Next

বাংলাদেশ ও ভারতকে আতিথ্য দিতে প্রস্তুত শ্রীলঙ্কা

Total
4
Share
error: Content is protected !!