বাংলাদেশের কিশোরদের উন্নয়নে এগিয়ে এলো এসেক্স

এসেক্স বিসিবি ঈগলস

আজ (১৪ জানুয়ারি) মিরপুর একাডেমি ক্রিকেট মাঠে বিপিএল দলগুলোর ছিলনা কোন অনুশীলন। তবে দুপুর ১২ টা নাগাদ দেখা মেলে এক ঝাঁক কিশোরের। ইংরেজি ভাষায় একজন কোচ কিশোরদের দেখিয়ে দিচ্ছেন ফিল্ডিংয়ের কিছু কৌশল, থ্রো করার পদ্ধতি। ক্ষুদে ক্রিকেটারদের আসার আগেই দেখা যায় বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজনকে। এরপর কিশোরদের সাথে পরিচয় পর্ব শেষে তাদের অনুশীলনের কিছু অংশ দেখে তবেই মাঠ ছাড়েন খালেদ মাহমুদ। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে কারা এই কিশোরদল, একাডেমি মাঠে অনুশীলনের উদ্দেশ্যই বা কি?

অনুশীলন শেষে বিষয়টি অবশ্য পরিষ্কার করেন এসেক্স ক্রিকেট বোর্ডের (যুক্তরাজ্য) পরিচালক জাওয়ার আলি। মূলত ইংলিশ কাউন্টি দল এসেক্সের নিয়ন্ত্রক সংস্থা এসেক্স ক্রিকেট বোর্ড ও ইস্ট লন্ডন ক্রিকেটের কোচদের বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটারদের সাহায্য করার তাগিদেই এমন কার্যক্রমের আয়োজন। এসেক্স ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক বাংলাদেশি জাওয়ার আলির মাধ্যমেই তাদের ঢাকায় আসা। পরামর্শ ও অনুশীলন করতে আসা ক্রিকেটাররা হলেন ঢাকা মেট্রো অনূর্ধ্ব-১৪ দলের সদস্য।

এসেক্স ঈগলস খালেদ মাহমুদ সুজন

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সাথে সম্পর্ক উন্নতির লক্ষ্যে একদল ইংলিশ কোচ ও ক্রিকেটার ১১ থেকে ২২ জানুয়ারি সময়ের মধ্যে ভ্রমণ করবে ঢাকা, সিলেট ও খুলনা। এসেক্স ঈগল নামে দলটি বাংলাদেশের লোকদের সাথে সম্পর্ক উন্নয়ন ও কিশোর ক্রিকেটারদের উন্নয়নে কাজ করার লক্ষ্যেই বাংলাদেশ সফর করছে। ছেলেদের সাথে নারী ক্রিকেটের উন্নয়ে ভূমিকা রাখতেও চেষ্টা করছে দলটি। গ্রুপটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন এসেক্সের ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার আরফান খান ও এসেক্স ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক জাওয়ার আলি।

এসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব ইসিবি স্পেকসেভারস কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন এবং ভাইটালিটি টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টেরও চ্যাম্পিয়ন। এসেক্সের বেশ কয়েকজন সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটার বাংলাদেশে খেলেছে বিভিন্ন সময় বিপিএল কিংবা ইংল্যান্ডের হয়ে। যাদের মধ্যে অন্যতম স্যার অ্যালিস্টার কুক, জেমস ফস্টার, রায়ান টেন ডেসকট, মোহাম্মদ আমির, ক্যামেরুন দেলপোর্ত, টাইমাল মিলস, রবি বোপারা।

কেবল ক্রিকেটারই নয় চলতি সফরে ইস্ট লন্ডন ঈগলস ক্রিকেট বাংলাদেশের আম্পায়ারদের জন্যও কোচিং ক্যাম্প করবে। ঢাকা, সিলেট, খুলনায় অনুষ্ঠিতব্য কার্যক্রমে কিশোর, নারী ও প্রতিবন্ধী ক্রিকেটারদের উন্নয়নে কাজ করবে গ্রুপটি। তারা পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের উপহার দিচ্ছে কিছু বিশেষ ধরণের ক্রিকেট সরঞ্জাম যেমন ফ্লেক্সিবল স্টাম্প, পপ আপ নেট, বোলিং টার্গেট।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের হয়ে খালেদ মাহমুদ সুজন ও ইস্ট লন্ডন ঈগলস দুই পক্ষই আশাবাদী এমন কার্যক্রমের মাধ্যমে উন্নতি হবে তরুণ ক্রিকেটারদের, সম্পর্ক শক্ত হবে এসেক্স ও বিসিবির।

নাজমুল হাসান তারেক

Read Previous

চূড়ান্ত হল বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর

Read Next

পিসিবিকে ধন্যবাদ দিলেন বিসিবি সভাপতি

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
5
Share
error: Content is protected !!