বিশ্বকাপ দলে চমকের আভাস প্রধান নির্বাচকের

মাত্র দিনকয়েক পরই ঘোষিত হবে বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ স্কোয়াড। কারা থাকছেন দলে, বাদই পড়ছেন কে? এমন নানা প্রশ্ন সংবাদমাধ্যম থেকে সাধারণ ক্রিকেট ভক্তের, চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। এমন পরিস্থিতিতে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু দিলেন নতুন তথ্য, কথায় বোঝালেন বেশ চমক নিয়েই হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড।

ফাইল ছবি

গত কয়েক দিন দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে আলোচনার বিষয় বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড। সংবাদ মাধ্যম রীতিমত গোয়েন্দার মত লেগে আছে গোপন সূত্রে কিছু বের করা যায় কী না। দফায় দফায় বৈঠক করছেন নির্বাচক-অধিনায়ক-বিসিবি কর্মকর্তারা। ভিন্ন ভিন্ন সময় অধিনায়ক, বোর্ড সভাপতি, নির্বাচকরা দল নিয়ে দিয়েছেন ভিন্ন ভিন্ন তথ্য।

বিসিবি সভাপতি তো ১৫ জনের স্কোয়াডই বলে দিয়েছিলেন সংবাদকর্মীদের সামনে। দিয়েছেন কাকে, কেন’র ব্যাখ্যাও। ঘরোয়ালিগের পারফর্ম দেখে কাউকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছেনা বলেও দিয়েছিলেন বক্তব্য, বলেছেন বিশ্বকাপের মত মঞ্চে অভিজ্ঞদের উপরই আস্থা বিসিবি বসের।

দিন কয়েকের ব্যবধানেই অভ্যন্তরীণ সূত্রে খবর পাওয়া যায় দলে দেখা যেতে পারে ঘরোয়া লিগের নিয়মিত পারফর্মার ইয়াসির আলী রাব্বিকে। সংবাদ মাধ্যমগুলোত প্রচার হওয়া সেই খবরের সত্যতা আনুষ্ঠানিকভাবে না জানালেও আজ (বুধবার) প্রধান নির্বাচক দিলেন আরও বিষ্ময়কর তথ্য, ভাষ্যমতে স্বপ্নের বিশ্বকাপে নতুন মুখের দেখা মেলা নিশ্চিতই। এখন শুধু হিসাব মেলানো বাকী কয়জন থাকছেন চমক হিসেবে।

তবে ভাবনা-চিন্তাকে চূড়ান্ত রূপ দিতে নির্বাচকরা অপেক্ষা করবেন চলমান ডিপিএলের সুপার লিগের তৃতীয় রাউন্ড পর্যন্ত। নতুন চমকের ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে নান্নু বলেন, ‘এটা এখনই বলা মুশকিল নতুন কাউকে নিচ্ছি কিনা। এটা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, চিন্তা ভাবনা হচ্ছে। দু একদিনের ভেতর পুরো দলই রেডি হয়ে যাবে। কিছু চমক থাকতেও পারে। হয়তো একজন হয়তো দুজন। তবে আগে চূড়ান্ত করি, তারপর আপনারাতো জানবেনই।’

আর দল নির্বাচনে জাতীয় দল কিংবা আশেপাশের খেলোয়াড়দের পারফর্ম বিবেচনা করতে নির্বাচকরা নিয়মিত চোখ রাখছেন চলমান ঢাকালিগে, তাই দল চূড়ান্ত করার আগে অন্তত সুপার লিগের তিন ম্যাচ পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন নির্বাচকরা সেরকমই ভাবনা নান্নুর।

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন ‘বিশ্বকাপ অনেক বড় মঞ্চ। আমরা বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছি যা অনেক বড় পরীক্ষার। তাই দল গঠনে আলাদা চিন্তা থাকে। কেমন করবে দল এমন ভাবনা আসবেই। তবে বাইরের অনেক খেলোয়াড় নিয়েও চিন্তাভাবনার কারণ আছে। দেখা যাক আগে সুপার লিগের সামনের তিন ম্যাচ শেষ হোক।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বিশ্বকাপের আগে দুশ্চিন্তা বাড়ছে সৌম্য-সাব্বিরে

Read Next

মানসিক অবসাদ কাটাতে বিশ্বকাপে পরিবারকে পাশে পাচ্ছেন ক্রিকেটাররা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।