টার্গেট কম থাকায় লিটন-শান্তদের আগ্রাসী হতে হয় না

৯৭ প্রতিবেদক:

প্রকাশ : 1 মাস আগে আপডেট: 1 সেকেন্ড আগে
টার্গেট কম থাকায় লিটন-শান্তদের আগ্রাসী হতে হয় না

টার্গেট কম থাকায় লিটন-শান্তদের আগ্রাসী হতে হয় না

টার্গেট কম থাকায় লিটন-শান্তদের আগ্রাসী হতে হয় না

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচেই বাংলাদেশের দাপুটে জয়। সাগরিকায় বাকি আরও এক ম্যাচ। টাইগার লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন বলে গেলেন, পরের ম্যাচেই তারা সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে চান। পরপর দুই ম্যাচে বাংলাদেশের সামনে তুলনামূলক ছোট ১২৫ ও ১৩৯ রানের টার্গেট ছিল বলে ব্যাটারদের আগ্রাসী হতে হয়নি।

চট্টগ্রামের এই উইকেট ব্যাট করার জন্য আদর্শ ছিল কি না? রিশাদের মতে, ব্যাটার-বোলার দুই পক্ষের জন্যেই উইকেট ভালো ছিল। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৬ উইকেটের জয়ের পর বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন রিশাদ হোসেন। তার কাছেই জানতে চাওয়া উইকেটের আচরণ কেমন ছিল?

'না সবাই আলহামদুলিল্লাহ আত্মবিশ্বাসী ছিল। রান কম দেখে হয়ত মনে হচ্ছে এমন কিছু। নরমালি সব ঠিক ছিল। উইকেট আলহামদুলিল্লাহ ভালো ছিল। উইকেট নরমালি ব্যাটার-বোলার দুই দিকেই যে যেভাবে পারে ভালো ছিল।'

স্কোরবোর্ডে যেহেতু কম রান ছিল, তাই লিটন-শান্তরা একটু স্লো খেলেছে। টার্গেট টপকানোর প্রেশার কম ছিল বলেই টপ অর্ডার ঝুঁকি নেয়নি।

'না অভ্যাস না। যেহেতু স্কোরবোর্ডে যথেষ্ট রান ছিল না ১৪০ রানের মত ছিল। এখানে বেশি ঝুঁকি নেওয়ার কোনো দরকার হয় না আমার মনে হয়। নরমালি ৭-সাড়ে ৭ করে রান নিলে হয়। নরমালি একটা বাউন্ডারি বল আসে। এভাবে ক্যালকুলেট করে রান নিলে আলহামদুলিল্লাহ নরমালি বের হয়ে যায় আরকি।'

রিয়াদ-হৃদয় ঝড়ে উড়ে গেল জিম্বাবুয়ে, বাংলাদেশের লিড ২-০। রিশাদ জানিয়ে গেলেন তারা পরের ম্যাচেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে চান, 'সবসময় টিম হয়ে খেলতে চাই, জেতার জন্যই নামি। আমরা চেষ্টা করব পরের ম্যাচে সিরিজটা কনফার্ম করার জন্য।'