প্রথম বাংলাদেশি হিসাবে আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলে সৈকত

৯৭ প্রতিবেদক:

প্রকাশ : 2 মাস আগে আপডেট: 1 সেকেন্ড আগে
প্রথম বাংলাদেশি হিসাবে আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলে সৈকত

প্রথম বাংলাদেশি হিসাবে আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলে সৈকত

প্রথম বাংলাদেশি হিসাবে আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলে সৈকত

বাংলাদেশের আম্পায়ার শরফুদ্দৌলা ইবনে শহীদ সৈকত ইতিহাসের অংশ হলেন। প্রথম বাংলাদেশি আম্পায়ার হিসাবে আম্পায়ারদের আইসিসির এলিট প্যানেলের অংশ হলেন তিনি। আজ এই তথ্য নিশ্চিত করেছে আইসিসি (ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল)। 

এমিরেটস আইসিসি ইন্টারন্যাশনাল প্যানেল অব আম্পায়ার্স থেকে এমিরেটস আইসিসি এলিট প্যানেল অব আম্পায়ার্সে উন্নীত হতে এক নির্বাচনী প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে সৈকতকে। নির্বাচক হিসাবে ছিলেন আইসিসির জেনারেল ম্যানেজার (ক্রিকেট) ওয়াসিম খান (চেয়ারম্যান), সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার, অবসর নেওয়া নিউজিল্যান্ডের আম্পায়ার টনি হিল ও কনসালটেন্ট অফিশিয়েটিং এক্সপার্ট মাইক রাইলি। 

২০০৬ সাল থেকে আইসিসির ইন্টারন্যাশনাল প্যানেলের আম্পায়ার হিসাবে ছিলেন শরফুদ্দৌলা ইবনে শহীদ সৈকত। তাঁর প্রথম আন্তর্জাতিক অ্যাপয়ন্টমেন্ট ছিল ২০১০ সালের জানুয়ারিতে, মিরপুরে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচে। 

এখন অব্দি অন ফিল্ড আম্পায়ার হিসাবে পুরুষদের ১০ টি টেস্ট, ৬৩ ওয়ানডে ও ৪৪ টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ও নারীদের ১৩ ওয়ানডে ও ২৮ টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। 

২০১৭ ও ২০২১ সালে আইসিসি উইমেন্স ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপে দায়িত্ব পালন করেছেন সৈকত। ২০১৮ আইসিসি উইমেন্স টি-টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপের সাথে ২০২৩ আইসিসি মেন্স ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপেও দায়িত্ব পেয়েছিলেন। 

আইসিসির এলিট প্যানেলে থাকা ম্যাচ রেফারি- 

ডেভিড বুন (অস্ট্রেলিয়া), জেফ ক্রো (নিউজিল্যান্ড), রঞ্জন মাদুগালে (শ্রীলঙ্কা), অ্যান্ড্রু পাইক্রফট (জিম্বাবুয়ে), রিচি রিচার্ডসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ) ও জাভাগাল শ্রীনাথ (ভারত)। 

আইসিসির এলিট প্যানেলে থাকা আম্পায়ার- 

কুমার ধর্মসেনা (শ্রীলঙ্কা), ক্রিস্টোফার গাফফানি (নিউজিল্যান্ড), মাইকেল গফ (ইংল্যান্ড), আদ্রিয়ান হোল্ডস্টক (দক্ষিণ আফ্রিকা), রিচার্ড ইলিংওর্থ (ইংল্যান্ড), রিচার্ড কেটেলবরো (ইংল্যান্ড), নিতিন মেনন (ভারত), আহসান রাজা (পাকিস্তান), পল রেইফেল (অস্ট্রেলিয়া), শরফুদ্দৌলা ইবনে শহীদ সৈকত (বাংলাদেশ), রডনি টাকার (অস্ট্রেইয়া), জোয়েল উইলসন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)।