কোহলিরা দেখাল এভাবেও ফিরে আসা যায়

৯৭ প্রতিবেদক:

প্রকাশ : 1 মাস আগে আপডেট: 1 সেকেন্ড আগে
কোহলিরা দেখাল এভাবেও ফিরে আসা যায়

কোহলিরা দেখাল এভাবেও ফিরে আসা যায়

কোহলিরা দেখাল এভাবেও ফিরে আসা যায়

কে যাবে আইপিএলের শেষ চারে? ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস না কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু? অবশেষে কঠিন এই প্রশ্নের উত্তরের জন্য ভক্তদের অপেক্ষার অবসান হয়েছে। গতকাল বাঁচা-মরার লড়াই ও পরতে পরতে উত্তেজনার ম্যাচে স্নায়ুচাপে ভেঙে পড়ে বিদায় নিল পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই। আর অবিশ্বাস্য জয়ে প্লে অফের টিকিট নিশ্চিত করল আরসিবি।

জিততে ২১৯ রান করতে হতো চেন্নাই সুপার কিংসকে। কিন্তু হেরেও বেঙ্গালুরুকে টপকে প্লে অফ নিশ্চিত করার সুযোগ ছিল তাদের সামনে, এজন্য ২০১ রান করলেই হতো। রাচিন রবীন্দ্রর দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সে পথেই হাটছিল চেন্নাই। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তার বিদায়ের পর ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় কোহলি বাহিনীরা। ইনিংসের শেষ বল পর্যন্ত টিকে থেকে ৭ উইকেটে ১৯১ রান করে চেন্নাই। ফলে ২৭ রানে ম্যাচ জেতে বেঙ্গালুরু।  

রান তাড়া করতে নেমে পাওয়ার প্লেতে দুই উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে চেন্নাই। এরপর আজিঙ্কা রাহানেকে নিয়ে হাল ধরেন রাচিন রবীন্দ্র। ৩৩ রানে রাহানে ড্রেসিং রুমের  পথে হাটলে ভেঙে যায় ৬৬ রানের জুটি। এরপর চেন্নাই কিছুটা লড়াইয়ের আভাস দিলেও ৩৭ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় রাচিন রাবিন্দ্র আউট হন ৬১ রান করে।
তখনই ম্যাচের মোমেন্টাম হারায় চেন্নাই। 

তবে শেষের দিকে কিছুটা আশার আলো ফুটিয়েছেন জাদেজা ও ধোনি। চার-ছক্কায় গ্যালারি মাতান তারা। প্লে অফে উঠতে শেষ ওভারে লাগতো ১৭ রান। প্রথম বলে পুল করে বিশাল ছক্কা হাঁকান ধোনি। উল্লাসে ফেটে পড়ে তার সমর্থকরা। পরের বলে ক্যাচ দেন বাউন্ডারিতে। শেষ ৪ বলে ১১ রান নিতে পারেননি জাদেজা ও শার্দুল ঠাকুর। শেষ ভরসা ছিলেন জাদেজা, সিঙ্গেল নিয়ে তিনি যখন স্ট্রাইকে, দুই বলে লাগতো ১০ রান। পঞ্চম বলে ডট দিতেই উল্লাসে মেতে ওঠে স্বাগতিক দলের সমর্থকরা। ওভার শেষে প্লে অফে উঠতে তখনও ১০ রান পেছনে চেন্নাই। তবে জাদেজা ২২ বলে ৪২ রানে অপরাজিত ছিলেন।

এর আগে বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে কোহলি ও ডু প্লেসি ৭৮ রানের জুটি গড়েন। এরপর ৪৭ রানে ড্যারিল মিচেলকে ক্যাচ দেন কোহলি। দক্ষিণ আফ্রিকান ডু প্লেসি থামেন হাফ সেঞ্চুরি করে। ৩৯ বলে ৫৪ রানের ইনিংস দেখা পায় তার ব্যাট। বেঙ্গালুরু ঝড় তোলে শেষ ৫ ওভারে, এই সময়ে ৮০ রান স্কোরবোর্ডে জমা করে দলটি।

শেষ দিকে দিনেশ কার্তিকের ৬ বলে ১৪ ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ৫ বলে ১৬ রানের ক্যামিওতে বেঙ্গালুরুর স্কোর দুশো ছাড়ায়। গ্রিন ১৭ বলে অপরাজিত ছিলেন ৩৮ রানে। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ২১৮ রান করতে সক্ষম হয় বেঙ্গালুরু।

এ জয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স, রাজস্থান রয়্যালস, হায়দরাবাদের পর শেষ দল হিসেবে প্লে অফে উঠলো বেঙ্গালুরু। ১৪ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট তাদের। সমান পয়েন্ট পেলেও রান রেটে পিছিয়ে থেকে পাঁচে নেমে আইপিএলের ১৭ তম আসর থেকে ছিটকে গেলো চেন্নাই।