পাকিস্তানে ক্রিকেট ফেরার ম্যাচে জয়ী পাকিস্তানই

pp
Vinkmag ad

ওয়ার্ল্ড সিরিজ পাকিস্তানের জন্য অনেক চাওয়া পাওয়া আর আবেগের এক সিরিজ। অনেক বছর পর নিজ মাটিতে খেলার সুযোগ পেয়ে জমানো বিষে তারা নীল করল বিশ্ব একদশকে।  ইন্ডিপেন্ডেন্ট কাপের প্রথম ম্যাচে ২০ রানে হারালো বিশ্ব একাদশকে।

21741998 1659916867412784 2092409295 o

আজ লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে শুরু হল নিজে দেশে নির্বাসিত ক্রিকেট ফেরানোর প্রথম ম্যাচ। টসে জিতে দুপ্লেসিসের ফিল্ডং করার সিদ্ধান্ত।

পাকিস্তানের দুই ওপেনার যখন মাঠে প্রবেশ করল তখন চারিদিকে শুধুই ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ ধ্বনি। পুরো স্টেডিয়াম কানায় কানায় ভর্তি। কিন্তু প্রথম ওভারেই ফখর জামানেই বিদায় কিছুটা স্তব্ধ হলো স্টেডিয়াম। মরকেলের বাইরে বেরিয়ে যাওয়া বলে স্লিপে আমলার হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নের পথে হাটেন ফখর জামান। দলের রান তখন ৮।

ফখরের বিদায়ের পর আহমেদ শেহজাদের সাথে  যোগ দেন বাবর আজম। আর এখান থেকে পাকিস্তানের পাওয়ার ক্রিকেট শুরু। পাকিস্তানের ৬.১ বলে ৫০ রান পূর্ণ করেন এই দুই ব্যাটসম্যান।

৩৩ বলে অর্ধশত পূর্ণ করেন বাবর আজম। ১৫ ওভারের সময় শেহজাদ আউট হলে ১২২ রানের জুটি শেষ হয়। ফেরার আগে শেহজাদ ৩৩ বলে করেন ৩৯ রান। বাবর নিজের ৬৬ রানের মাথায় একবার ক্যাচ দিলেও সেটা জমাতে পারেনি মিলার। এরপর ইমরান তাহিরের গুগলিতে যখন ফেরেন তখন দলীয় সর্বোচ্চ রান ৮৬ এসেছে তার ব্যাট থেকে।  এরপর শোয়েব মালিকের ২০ বলে ৩৮ রানের ছোট একটি ক্যামিও ইনিংস পাকিস্তানকে ২০ ওভার শেষে পৌছে দেয় ১৯৭ রানে। এদিন বিশ্ব একাদশের কোন বোলারই সুবিধা করতে পারেননি।

21764055 1659916857412785 1329683963 o
তামিম ইকবালের ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান

বিশ্ব একাদশের সামনে ১৯৮ রানের বিশাল টার্গেট। হাশিম আমলার সাথে ইনিংসের গোড়াপত্তনে বাংলাদেশের তামিম ইকবাল। শুরুতে একটু দেখেশুনে শুরু তার পরই আমলা -তামিমের মারমুখী ব্যাটিং। তামিম তিন চারে ১৮ বলে ১৮ রান করে রুম্মান রইসের সোজা বলে বোল্ড,  রইসের একই ওভারে ১৭ বলে ২৬ রান করে দলীয় ৪৮ রানে ফিরে যান আমলা।

পাকিস্তানের মত ৬.১ ওভারে অর্ধশত রান পূর্ণ হয় বিশ্ব একাদশের তবে পাকিস্তান থেকে ১ উইকেট বেশি হারায় তারা। টিম পেইন ও ডু প্লেসি যখন ব্যাট করছিল তখনো সমানে লড়ছিল বিশ্ব একাদশ। হাসান আলীর এক ওভারেই ২২ রান আসে। পাকিস্তানের স্পিনাররা যখনই বল ঘোরাতে শুরু করে তখনই পিছিয়ে পড়ে বিশ্ব একাদশ।

দলীয় ১০১ রানে ১৮ বলে ২৯ করে সাদাব খানের স্পিনে কাটা পড়েন ডু প্লেসি। এর পরের ওভারেই টিম পেইনের বিদায়ে বিশ্ব একদশ ম্যাচ থেকে ছিটকে যায়। থিসারা পেরেরা যখন বল ব্লক করে বাউন্ডারি ছাড়া করছিলেন ততোক্ষণে রিকয়ার্ড রানরেট বেড়ে ১৩ এর উপরে চলে গেছে।

শেষ দিকে ড্যারেন স্যামির দৃষ্টিনন্দন ছয়গুলো ম্যাচের সৌন্দর্য বাড়িয়েছে কিন্তু দলের পরাজয় রুখতে পারিনি।

শেষ ওভারে বিশ্ব একাদশের প্রয়োজন ছিল ৩৩ রান কিন্তু ব্যাটসম্যানরা নিতে পারে মাত্র ১২ রান। পাকিস্তান ম্যাচ জিতে ২০ রানে। পাকিস্তানের শাদাব খান, রুম্মান রইস ও সোহেল খান প্রত্যেকে দুটি করে উইকেট লাভ করেন।

তিন ম্যাচের ইন্ডিপেনডেন্ট কাপ ওয়ার্ড সিরিজে পাকিস্তান ১-০ তে এগিয়ে গেল। একই ভেন্যুতে আগামিকাল অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় ম্যাচ।

21744889 1659931077411363 1055849350 o
৮৬ রান করে বাবর আজম হয়েছেন ম্যাচসেরা

 

 

 

 

 

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

পাকিস্তান-২৯৭/৫ (২০) বাবর-৮৬, শেহজাদ-৩৯, মালিক-৩৮, পেরেরা ৫১/২

বিশ্ব একাদশ-১৭৭/৭ (২০) স্যামি-২৯*, ডু প্লেসি-২৯, আমলা-২৬, তামিম-১৮, সোহেল-২৮/২, শাদাব-৩৩/২

 

প্লেয়ার অফ দ্যা ম্যাচঃ বারব আজম

 

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ভারতের মাটিতে ওয়ার্নার ঝড়

Read Next

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচের দল ঘোষণা

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share