‘ফেরার স্বপ্ন দেখা বা কোনো টার্গেট আমার নেই…’

রাহি

বিপিএল ফিরল সিলেটে, তবে এই আসরেই নেই সিলেটের অন্যতম প্রিয় মুখ আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি। বিপিএলের গত আসরেও ছিলেন, এবার রাহির ভাগ্যের চাকা ঘুরেনি। রাহি এখন নিজের ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়েই শঙ্কিত। বিপিএলে দল না পাওয়াটা রাহির জন্য হতাশার হলেও মনোযোগ এখন অন্য দিকে, ভেঙেচুরে নিজেকে তৈরি করছেন নতুন ভাবে। সিলেট জেলা প্রথম বিভাগ লিগেই এখন পাখির চোখ রাহির। নিজের কাজটা ঠিকঠাকভাবে করে যেতে চান বলেই মাঘের শীতের সকালেও নিয়মিত রাহির পা পড়ছে রিকাভীবাজারের জেলা স্টেডিয়ামে। 

বিপিএলের সিলেট পর্ব শুরু আজ শুক্রবার, সেদিনই রাহি ম্যাচ খেলতে নামলেন সিলেট জিলা স্টেডিয়ামে। বঙ্গবীর অগ্রগামী ক্রীড়া চক্রই যেন এখন রাহির মূল দল, আগের ম্যাচেই পেয়েছেন ফাইফারের দেখা। আজ অ্যাপোলো ইলেভেনের সাথেও রাহি বল হাতে ছিলেন দুর্দান্ত। এখন পর্যন্ত এই টুর্নামেন্টে ৪ ম্যাচ খেলা রাহির নামের পাশে ১১ উইকেট।  

২০২৪ বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফটে ২০ লাখ টাকা ভিত্তিমূল্যের ‘ডি’ ক্যাটাগরি থেকে দল পাননি আবু জায়েদ রাহি। রয়ে গেছেন অবিক্রীত, এক সময়ের জাতীয় দলের বড় নাম আবু জায়েদ রাহিকে কিনতে আগ্রহ দেখায়নি কোনো দলই।

২০২২ সালে যখন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম টেস্টের দলের ডাক পাননি; তখন আবু জায়েদ রাহির অভিযোগ ছিল এমন, দলের কেউ হয়তো তাকে পছন্দ করেন না, এই কারণে জায়গা হয়নি তার। এর আগে বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টিমের সঙ্গেই ছিলেন রাহি, যদিও সুযোগ পাননি একটি ম্যাচ খেলারও। রাহির জন্য বাংলাদেশ জাতীয় দলের দরজা আপাতত বন্ধ হয়ে গেলেও বর্তমানে সিলেট থেকে নাসুম, খালেদ, এবাদত, জাকির হাসানসহ বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আছেন জাতীয় দলে। 

ক্রিকেট৯৭ এর সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে যা বলেছেন আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি-

প্রশ্নঃ বিপিএলে দল পাওয়া নিয়ে আক্ষেপ আছে কিনা কিংবা কতটা হতাশ আপনি?

রাহিঃআফসোরের কোনো কিছু নাই, হয় নাই এটাই। আমার এমন কিছু নাই যে পারফরম্যান্স করি নাই। পারফরম্যান্স করছি তবুও হয়নি, নেক্সট ইয়ারে হবে।’

প্রশ্নঃ ঠিক কোন কারণে আপনাকে দলগুলো ডাকেনি? আপনার নিজের কাছে কি মনে হয়, পারফরম্যান্সে কোন ঘাটতি ছিল?

রাহিঃ ‘চ্যালেঞ্জিং অনেক কিছুই ছিল, আসলে ওইসময় ঠিকমতো সুযোগ পায়নি বা সুযোগ হয়নি। সে সময় এনসিএল বা বিসিএল ছিল না, ব্যাক করার মতো সুযোগ ছিল না। অন্য পেস বোলাররাও ভালো ক্রিকেট খেলতেছিল।’

প্রশ্নঃ নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কায় থাকা জাতীয় দলে ফেরার ভাবনায় কতটা প্রস্তুত?

‘এটা তো আর আমার হাতে নাই। আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাবো। যদি কপালে থাকে ঢুকব, আর নাহলে না। আমি আমার কাজ চালিয়ে যাচ্ছি। ফেরার স্বপ্ন দেখা বা কোনো টার্গেট আমার নেই।’

প্রশ্নঃ সিলেটের উঠতি ক্রিকেটারদের উদ্দেশ্যে কি কিছু বলবেন?

রাহিঃ ‘সিলেটের অনেক প্লেয়ার, অনেক পেস বোলারই এখন জাতীয় দলে। আমি খেলি আর না খেলি আমাদের সিলেটের অনেকে খেলতেছে এটাই আমাদের জন্য অনেক বড় প্রাপ্তির।’

রাকিবুল হাসান

Read Previous

শুরুর বিপর্যয় কাটিয়ে খুলনার চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ

Read Next

ওয়েস্ট ইন্ডিজের নারী ক্রিকেটাররা পেল সুখবর

Total
0
Share