বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার শেষে অনুভূতির সবটুকু ঢেলে দিলেন ওয়ার্নার

ডেভিড ওয়ার্নার

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সাদা পোশাকে নিজের ক্যারিয়ারের ইতি টানলেন ডেভিড ওয়ার্নার। বর্ণাঢ্য এক ক্যারিয়ার শেষ হলো সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে হাজার হাজার অস্ট্রেলিয়ানদের সাক্ষী করে। ব্যক্তিগত জীবনে আবেগের সাথে বসবাস করা ওয়ার্নার, পাকিস্তানের বিপক্ষে ৮ উইকেটের জয়ের পর যখন সাক্ষাৎকার দিতে এলেন– তখনো মনের সেই ভাবটুকু স্পষ্ট বোঝা গেল। এই পোশাকে, এই আয়োজনে শেষবারের মতো তিনি, এটাই হয়ত হৃদয়ে বেজে যাচ্ছিল বারবার।

পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ৩-০ তে জয় নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। আজ প্রতিপক্ষের দেওয়া সহজ লক্ষ্যমাত্রা ১৩০ রান পেরোতে ওয়ার্নারের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৭ রানের ইনিংস।

ওয়ার্নার বলেন,

“এটা একরকম স্বপ্ন সত্যি হওয়ার মতো। ৩-০ তে জয় এবং অস্ট্রেলিয়ার জন্য গত ১৮ মাস থেকে ২ বছরের সময়টা ছিল বেশ দারুণ। ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে যদি ধরা যায়, এরপর অ্যাশেজ সিরিজ ড্র, তারপর বিশ্বকাপ, আবার এখন এখানে ৩-০ তে শেষ করা– দুর্দান্ত অর্জন। আমি গর্ববোধ করি এই সমস্ত ‘গ্রেট’ ক্রিকেটারদের সাথে থাকতে পেরে।”

“এই লোকেরা তারা অনেক বেশি কাজ করে থাকে। এই ইঞ্জিন রুম, বিগ থ্রি কুইকস সাথে মিচেল মার্শ। তাঁরা বিরতিহীনভাবে নেটে কাজ করে যায় এবং ব্যায়ামাগারে, তাঁদের ক্রেডিট দিতেই হয়; যারা ফিজিও আছেন, কর্মকর্তা আছেন এবং যারা পিছনে কাজ করে যান, তাঁরা অসাধারণ। তাঁদের দেখুন, তাঁরা কতটা দারুণ। আর আমি তাঁদের আর নেটে দেখতে পারব না। যেটা আমি করিও না অবশ্য। তো এটা সাহায্য করবে।”

আজ পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের চতুর্থ দিনে সিডনিতে আসার আগমুহূর্তের কথা স্মরণ করেন ওয়ার্নার।

তিনি বলেন,

“(এই সকালে) শুধু হালকাভাবে লোকাল একটা ক্যাফেতে হাঁটতে হাঁটতে আসি, একজন জুনিয়রকে সাথে নিয়ে। আমি গাড়িতে উঠি, একটা বা দুইটা ওয়াইন নিয়ে। এত জোরে বলা অবশ্য ঠিক হচ্ছে না, ঝামেলায় পড়তে পারি। আমি খুবই খুশি, অনেক বেশি গর্ববোধ করছিলাম। এরপর আমি এখানে আসলাম, আমার ঘরের দর্শকদের কাছে, তাঁদের সমর্থন– যা তাঁরা আমাকে দেখিয়েছে এবং অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে– গত আমার এক যুগ ধরে অথবা আমার ক্যারিয়ারের প্রতি, আমি তাঁদের ধন্যবাদ দিলেও কম হয়ে যাবে। আপনাদের ছাড়া আমরা যা করি, তা করতে পারতাম না। খুব খুব তারিফ করার মতো বিষয়।”

“আমার মনেহয় এটা কিছুটা আবেগাক্রান্ত করবে, ছেলেরা সেখানে যাবে (ক্যারিবিয়ানে পরবর্তী টেস্ট সিরিজে) এবং আমি খেলছি না, অথচ আমি সেখানে যেতে পারতাম এবং যা করি তা করতেও পারতাম। কিন্তু আমি যা বললাম, এখানে দুর্দান্ত কিছু ক্রিকেটার আছে। আমরা সবাই ৩০ বছরের বেশি হয়ে গেছি। তাই দিন যত যাবে, আমরা তরুণ হবো না। কিন্তু এই দল, তাঁরা আরও শক্তিশালী হবে। তাঁরা বিশ্বনন্দিত, তাঁরা দুর্দান্ত কিছু ছেলের দল।”

সাদা পোশাকে ১১২ টি টেস্ট খেলেছেন ওয়ার্নার। ২০৫ ইনিংসে ব্যাট করে ৪৪.৫৯ গড়ে সংগ্রহ করেছেন ৮ হাজার ৭৮৬ রান। যেখানে তাঁর সর্বোচ্চ সংগ্রহ অপরাজিত ৩৩৫ রান। শতক হাঁকিয়েছেন ২৬ টি, অর্ধ-শতক আছে ৩৭ টি।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

অস্ট্রেলিয়ার ৩-০ জয়ে ওয়ার্নারের রূপকথার বিদায়

Read Next

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থান অস্ট্রেলিয়ার দখলে, বাংলাদেশ তিনে

Total
0
Share