স্টাম্পিং আউট ও কনকাশন সাব নিয়ে আইসিসির নয়া সিদ্ধান্ত

এলবিডব্লিউ

স্টাম্পিং আউট ও কনকাশন সাব– ক্রিকেটের এই দু’টি বিষয়ে কিছুটা পরিবর্তন এনেছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা (আইসিসি)। আইসিসির নতুন প্লেয়িং কন্ডিশনে বলা হয়, উইকেটরক্ষক স্টাম্পিংয়ের আবেদন করলে, এখন থেকে তৃতীয় আম্পায়ার কট-বিহাইন্ড চেক করবেন না। অন্যদিকে কনকাশন সাবের ক্ষেত্রে বদলি হওয়া খেলোয়াড়ের বোলিংয়ে কোনো নিষিদ্ধ হওয়ার মতো ঘোষণা থাকলে, পরিবর্তিত খেলোয়াড়ও বল করার সুযোগ পাবেন না।

ফিল্ডিং দল থেকে উইকেটরক্ষক যখন স্টাম্পিংয়ের আবেদন করতেন, তখন লেগ আম্পায়ারের দ্বিধা থাকলে তিনি তৃতীয় আম্পায়ারের সাহায্য গ্রহণ করতেন।

তৃতীয় আম্পায়ার যখন স্টাম্পিং চেক করতে যেতেন, তিনি ব্যাটারের কট-বিহাইন্ডও চেক করতেন। এক্ষেত্রে ব্যাটারের ব্যাটে বল লেগেছে কিনা, এ ব্যাপারটিতেও ধারণা পেয়ে যেত মাঠে থাকা সবাই। এ নিয়মে বদল এনেছে আইসিসি।

এখন থেকে স্টাম্পিংয়ের রিভিউ চেক করার সময় শুধুমাত্র সাইড-অন ক্যামেরা ব্যবহার করে তা চেক করা হবে। ফিল্ডিং দল যদি মনে করে ব্যাটারের কট-বিহাইন্ড হয়েছে, তবে তাঁকে নতুন করে রিভিউ নিতে হবে।

গতবছর ভারতের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া যখন সিরিজ খেলছে, অজি উইকেটরক্ষক অ্যালেক্স ক্যারি বেশ কয়েকবার স্টাম্পিং করেছেন প্রতিপক্ষ ব্যাটারকে। এমতাবস্থায় বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তৃতীয় আম্পায়ারের সহায়তা নেওয়া হয় এবং তিনি কট বিহাইন্ডের বিষয়টিও চেক করে নিতেন। তখন থেকেই এ ব্যাপারে কাজ চলমান ছিল।

খেলোয়াড় বদলির ক্ষেত্রে আরও পরিস্কার থাকতে চাইছে আইসিসি। যদি বদলি খেলোয়াড় মাঠে বোলিং থেকে নিষিদ্ধ থাকেন, তবে পরিবর্তিত খেলোয়াড়ের বল করার কোনো সুযোগ থাকবে না। এছাড়াও খেলোয়াড়দের শুশ্রূষা, চিকিৎসার জন্য মাঠে ৪ মিনিট নির্দিষ্ট করে দিয়েছে ক্রিকেটের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আফগানদের ব্যাটিং কোচ অ্যান্ড্রু জর্জ পুটিক

Read Next

ইতিহাস রচনা করল কেপটাউন টেস্ট, সিরিজ সমতায় শেষ করল ভারত

Total
0
Share