টেস্টে গিলের ব্যর্থ হবার কারণ জানালেন গাভাস্কার

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে গিলকে নিয়ে শঙ্কা

টেস্ট ক্রিকেটে ধৈর্য ধারণ করতে হয়। তা বোলার এবং ব্যাটার উভয়ের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। ভারতীয় ওপেনার শুবমান গিলের ক্ষেত্রে সেই ধৈর্য কিছুটা কম দেখছেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার ও অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কার। গাভাস্কার মনে করছেন, গিল লাল বলের ক্রিকেটে কিছুটা আ’ক্র’মণাত্মক হয়ে খেলছে। যা তাঁর স্বাভাবিক খেলা নষ্ট করছে।

গাভাস্কার, ভারতের হয়ে ওপেন করেছেন। তাঁকে ক্রিকেটের সেরা ওপেনারদের মধ্যে একজন হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। টেস্ট ক্রিকেটে ১২৫ ম্যাচ খেলে ১০ হাজারের উপরে রান করেছেন। তিনি জানেন একজন টেস্ট ওপেনারের ক্ষেত্রে কী ধরনের ধৈর্য ও খেলোয়াড় হিসেবে তাঁর প্রচেষ্টা কেমন হওয়া উচিত। যদিও টেস্টে গিল এখন ৩ নম্বর পজিশনে ব্যাট করছেন।

গিলের ব্যাপারে গাভাস্কার বলেন, “আমার মনে হয় সে একটু আ’ক্র’মণাত্মকভাবে টেস্ট ক্রিকেট খেলছে।“

“আমার মনে হয় এখানে কিছু পার্থক্য আছে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ও ওডিআই ক্রিকেটের সাথে- যখন আপনি টেস্ট ক্রিকেট খেলবেন। পার্থক্যটা হচ্ছে বলের মধ্যে। লাল বল, সাদা বলের তুলনায় বাতাসে কিছুটা বেশি ঘুরে যায়। তাঁকে এই ব্যাপারটা মনে রাখতে হবে।“

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে ব্যর্থ ছিলেন গিল। সেঞ্চুরিয়নে তিন নম্বর পজিশনে ব্যাট করে ২ ও ২৬ রান করেছেন। ২০২৩ সালে লাল বলের ক্রিকেটে খুব একটা ভাল যায়নি গিলের। তৃতীয়বারের মত টেস্টে ৩০ এর নিচে গড় রেখে বছর শেষ করলেন গিল।

তবে সাদা বলের ক্রিকেটে অন্য চেহারা গিলের। ২০২৩ সালে, ৬৩.৩৬ গড়ে ১৫৮৪ ওডিআই রান এবং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ৪৪.৫১ গড়ে ১২০২ রান করেছেন এই ক্রিকেটার। টেস্টের ক্ষেত্রে, এ বছর ১০ টি ইনিংস খেলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আহমেদাবাদে করা সেঞ্চুরি ছিল, গিলের ৩০ পেরোনো একমাত্র ইনিংস।

গাভাস্কার বলেন, “শুবমান গিল তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেছিল খুব ভালোভাবে, আমরা তাঁর শটের প্রশংসা করেছি। আমরা আশা করতে পারি, সে তাঁর ফর্মে ফিরে আসবে। আশা করছি সে ভালোভাবে অনুশীলন করবে এবং ভবিষ্যতে ভাল করবে।“

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আমি মনে করি এটি বেশ সফল একটি সফর: হাথুরুসিংহে

Read Next

জুনায়েদ খানকে নয়া দায়িত্ব দিল পিসিবি

Total
0
Share