শেষ ওয়ানডে ম্যাচের অনুপ্রেরণা কাজে লেগেছে বোলারদের

শেখ মেহেদী

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে গত দুই ম্যাচে বাংলাদেশের বোলাররা দারুণ পারফর্ম করে গেলেন। বিশেষ করে পেসারদের কথা স্মরণে আনতে হয়। নেপিয়ারে, শেষ ওডিআই ম্যাচে শরিফুল ইসলাম ও তানজিম হাসান সাকিব মিলে কিউইদের ৬ উইকেট তুলে নেন। আজ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে শরিফুল, তানজিম ও মুস্তাফিজুর রহমান মিলে তুলেছেন ৬ উইকেট। যেখানে শরিফুল একাই ৩ উইকেট নিয়েছেন। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে বোলারদের নিয়ে করা প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন আজকের ম্যাচ সেরা শেখ মেহেদী হাসান।

তৃতীয় ওডিআই ম্যাচে বোলাররা যেভাবে পারফর্ম করেছে, সেই ভাবনা, বার্তা– এসব কাজে লেগেছে আজকের ম্যাচে। এই কন্ডিশনে জিততে হলে, বোলারদের এভাবেই এগিয়ে আসতে হবে, বুদ্ধিমত্তা দিয়ে বল করতে হবে বলে মনে করেন মেহেদী হাসান।

“দেখেন, আপনি যখন বোলাররা একটা ভালো সমর্থন দেবেন দলের জন্য। অবশ্যই দলের জন্য আত্মবিশ্বাস অনেক বড় হয়ে যায়। লাস্ট ম্যাচে বোলিং ইউনিটটা যে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছে। ওই মেসেজগুলো হয়তো বোলারের ভেতর আছে। এই কন্ডিশনে জিততে হলে বোলারদের এরকম স্মার্ট বোলিং করতে হবে। এজন্য সবাই চিন্তা করছে ভালোভাবে। আমাদের যে কয়জন বল করেছে, সবাই মিলে খুব ভালো বল করেছে।”

পেস বোলারদের প্রসঙ্গ আসতেই তৃপ্তি দেখা যায় মেহেদীর মুখে। বাংলাদেশের পেসারদের নিয়ে কথাবার্তা এখন প্রায়ই ওঠে। শরিফুল, মুস্তাফিজ বা আজকের টি-টোয়েন্টি অভিষিক্ত তানজিম, সবাই ভালো করছেন, ভালো করবেন– এমন বিশ্বাস দলে রয়েছে।

মেহেদী হাসান বলেন,

“না, আলহামদুলিল্লাহ। আমাদের পেস বোলার মাশাআল্লাহ সবাই ভালো করতেছে। একটা দল জিততে হলে আসলে সবার পারফরম্যান্স গুরুত্বপূর্ণ। এক দুই জনের পারফরম্যান্স গুরুত্বপূর্ণ না। টিম ওয়াইজ গেম, টিমের পারফর্ম ছোটখাটো সবাই কমবেশি করে। আলহামদুলিল্লাহ আমরা স্পিনাররা ভালো বোলিং করেছি, পেস বোলাররা ভালো বল করেছে। এজন্য হয়তো কম রানে আটকাতে পারছি, আমরা জিতছি।”

আজ ম্যাচ জেতায় মেহেদী হাসানের ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বোলিংও বড় ভূমিকা রেখেছে। ইনিংসের প্রথম ওভার করতে এসে টিম সেইফার্টকে ফিরিয়ে চাপ প্রয়োগ করেছেন। পরবর্তীতে নিয়েছেন ড্যারিল মিচেলের উইকেট। ৪ ওভার বল করে খরচ করেছেন মাত্র ১৪ রান।

প্রথম ওভার করতে আসা কী চ্যালেঞ্জিং?

মেহেদী হাসান উত্তর দেন, “না, দেখেন চ্যালেঞ্জিং না। আমি টি-টোয়েন্টিতে তো প্রথম ওভার করতে অভ্যস্তই। এটা চ্যালেঞ্জিং না আমার কাছে সেটা যে কন্ডিশনে হোক। আমার কাজ বল করা সেটা যেখানেই হোক করতে হবে। আসলে এটা টিম ম্যানেজম্যান্ট আমার ওপর বিশ্বাস করেছে এজন্য প্রথম ওভার দিছে। সেটা যে কন্ডিশনেই হোক আমাকে করতে হবে।”

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

লিটন বলছিল ইতিবাচক থাকতে: শেখ মেহেদী

Read Next

মেলবোর্ন টেস্ট: কামিন্সের তিনে চালকের আসনে অস্ট্রেলিয়া

Total
0
Share