ধুঁকতে থাকা ভারতকে সেঞ্চুরিয়নে পথ দেখান রাহুল

ভারত দক্ষিণ

বৃষ্টি বাধায় সেঞ্চুরিয়ন টেস্টের প্রথম দিনে খেলা হয়েছে মাত্র ৫৯ ওভার। আর তাতেই দেখা গেল ভারতীয় ব্যাটারদের অসহায়ত্ব। কাগিসো রাবাদা বল হাতে রীতিমতো ধ্বংসস্তূপ বানিয়ে দেন সফরকারীদের ব্যাট লাইন। ভারতের হারানো ৮ উইকেটের মধ্যে একাই পাঁচটি দখলে নেন রাবাদা। দিন শেষে ভারতের স্কোরবোর্ডের অবস্থা, ৮ উইকেটে ২০৮ রান। একা হাতে লড়াই চালিয়ে লোকেশ রাহুল অপরাজিত ৭০ রানে। 

আউটফিল্ড ভিজে থাকায় নির্ধারিত সময় থেকে পিছিয়ে যায় টস। এরপর টস জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা। মেঘলা আকাশের লাভ তুলতেই এই সিদ্ধান্ত প্রোটিয়া অধিনায়কের। পেসাররাও অধিনায়কের সিদ্ধান্তের সুফল আনেন বল হাতে। বিশ্বকাপের পর প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে নেমে ব্যর্থ রোহিত শর্মা, ভিরাট কোহলি। ৫ রানেই মাঠ ছাড়লেন ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা। ২৪ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ভারতীয় দল বিরাট চাপে পড়ে যায়। 

৩৮ রানে থামে ভিরাট কোহলির ইনিংস। দিনের শেষে ভারতের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ২০৮ রান। যদিও বৃষ্টির জন্য এদিন পুরো ওভার খেলা হয়নি। মাত্র ৫৯ ওভার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। কাগিসো রাবাদার পেসে ধরাশায়ী ভারতের ব্যাটিং। একাই লড়াই করলেন লোকেশ রাহুল।

দিনের শুরু থেকেই দুই প্রোটিয়া কাগিসো রাবাদা ও মার্কো জানসেনের পেস আক্রমণ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন ভারত অধিনায়ক রোহিত শর্মা ও ইয়াশভি জাইসাওয়াল। ৫ রানে রোহিতের বিদায়ের পর ব্যক্তিগত ১৭ রানে নান্দ্রে বার্গারের বলে খোঁচা মেরে আউট হন জাইসাওয়াল। দুই রান করতেই বিদায় নেন শুবমান গিল।

মাত্র ২৪ রানে ৩ উইকেট খুইয়ে চরম বিপদে পড়ে টিম ইন্ডিয়া। চতুর্থ উইকেটে জুটি দলকে বিপদ থেকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন ভিরাট কোহলি ও শ্রেয়াস আইয়ার। কিন্তু মধ্যাহ্নভোজের বিরতির ছন্দপতন। রাবাদার বলে ক্লিন বোল্ড হয়ে ফিরে যান ৩১ রানে থাকা আইয়ার।

এরপর জুটি বেশিক্ষণ থিতু হতে পারেননি ভিরাট কোহলিও। ব্যক্তিগত ৩৮ রানে রাবাদার বলে ক্যাচ তুলে সাজঘরে যান। ৮ রান করতেই আউট রবিচন্দ্রন অশ্বিন।দিনের শেষে ৭০ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন লোকেশ রাহুল।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

সিলেট স্ট্রাইকার্সের বোলার হান্টে অভিনব সাড়া

Read Next

ভারতের ‘ক্রাইসিস ম্যান’ লোকেশ রাহুল

Total
0
Share