আড়াই বছর পর নেপিয়ারে বাংলাদেশ, উইকেটে গতি ও বাউন্স বেশি থাকবে

বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড 8

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্কে বাংলাদেশ সর্বশেষ মাঠে নামে ২০২১ সালে। তা ছিল টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। সে ম্যাচে স্বাগতিক দল ১৭৩ রানের সংগ্রহ তোলে। পরবর্তীতে ডিএলএস মেথডে পড়ে ১৬ ওভারে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে ১৪২ রান, যেখানে ২৮ রানে পরাজিত হতে হয় সফরকারীদের। আর সর্বশেষ ওডিআই ম্যাচ ছিল ২০১৯ সালে। কিউই কোচ গ্যারি স্টেডকে সেই ম্যাচের কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় আজকের সংবাদ সম্মেলনে।

আগের দুই ম্যাচে হারের স্বাদ পাওয়ার পর ওডিআই সিরিজের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাকলিন পার্ক, এই মাঠে সর্বশেষ ম্যাচে সৌম্য সরকারের ইনিংস হয়ত স্মরণ করতে চাইবে বাংলাদেশ দল। সেবার ২৭ বলে ৫১ রানের এক ইনিংস খেলেন সৌম্য। চলমান সিরিজে দ্বিতীয় ওডিআইতে এই ব্যাটার ১৬৯ রানের ইনিংস খেলেছেন।

সৌম্যর প্রশংসা আবারও উঠল, এবার কিউই কোচের মুখে, মূল প্রশ্ন ছিল, বাংলাদেশ কী আবারও হারবে বলে মনে হচ্ছে?

“আমি জানি না (হাসি)। আমাদের কালকের ম্যাচে মাঠে নেমে দেখতে হবে কী হয়। সৌম্য সরকার দারুণ খেলেছে, কী অসাধারণ একটা স্কোর করল সেদিন। নেলসনে আমার মনে হয় তারা ৩০-৪০ রান কম করেছে। এখানে আমাদের বোলারদের কৃতিত্ব আছে, পাওয়ারপ্লেতে তারা ৩-৪ উইকেট নিয়ে ফেলেছিল। এখানে আমরা এগিয়ে গিয়েছিলাম।”

নেপিয়ারের ম্যাকলিন পার্ক নিয়েও স্টেডের মন্তব্য পাওয়া গেল। উইকেটের গতি ও বাউন্সের হিসেব কষে, তা বেশি হবে বলেই মনে করলেন তিনি। ম্যাকলিনে খুব বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয় না। সেদিক থেকে এখানে ম্যাচ হওয়া মানে স্থানীয়দের জন্য কিছুটা আনন্দের ব্যাপার বলেও মনে করেন কিউই কোচ।

“এখানে আশা করছি আরেকটু বেশি গতি এবং বাউন্স থাকবে। নেলসনের উইকেটে অনেকদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হয় না। তাই কিছুটা ধীর গতির ছিল বলে মনে হয়। এখানে গতি বেশি থাকবে বলে মনে হয়।”

“তবে এসব জায়গায় আসতে পারাটা দারুণ। এসব অঞ্চলে খুব বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয় না দেখে স্থানীয়রা এখন সুযোগ পাচ্ছে ম্যাচ উপভোগের।”

নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন যেকোনো দলের জন্যই কঠিন। সেখানে গতি ও বাউন্সের পরিমাণ থাকে বেশি। উপর্যুপরি প্রথম ১০ ওভার মোকাবিলা করা ব্যাটারদের জন্য বেশ চাপের হয়ে থাকে। যা যেকোনো দলের জন্য বলে মনে করেন কোচ গ্যারি স্টেড।

“নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে প্রথম ১০ ওভার যেকোনো দলের জন্যই কঠিন হয়ে থাকে। বাংলাদেশ একমাত্র দল নয় যারা এখানে এসে প্রথম ১০ ওভারে সংগ্রাম করেছে। অনেক ওপেনাররাই এভাবে সংগ্রাম করেছে। দুইটি নতুন বলের কারণে মুভমেন্ট বেশি হয় কিছুটা। এখানে আপনাকে শুরুর সময়টা উতরে যেতে হলে আপনাকে টেম্পারমেন্ট ধরে রাখতে হবে।”

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কোহলি ফিরলেন দেশে, ছিটকে গেলেন রুতুরাজ

Read Next

আইসিসির তিরস্কার পেয়ে খাজা জানালেন ‘চ্যালেঞ্জ’

Total
0
Share