জিম্বাবুয়ের হেড কোচের দায়িত্ব ছাড়লেন ডেভ হাটন

ডেভ হাটন রাজা

২০২২ সালের জুনে জিম্বাবুয়ের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেন ডেভ হাটন। কোচ ডেভ হাটনের মন্ত্রেই বদলে যায় জিম্বাবুয়ে দল। জিম্বাবুয়ের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক ডেভ এবার হেড কোচের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ালেন। তিনি অবশ্য জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের সাথেই থাকবেন, কারণ বোর্ড তাকে সংস্থার মধ্যে একটি নতুন ভূমিকায় দায়িত্বে রাখতে চায়৷

জিম্বাবুয়ের প্রথম টেস্ট অধিনায়ক, প্রথম সেঞ্চুরিয়ান ডেভ হাটনের কোচিং অধ্যায়েরও সমাপ্তি ঘটল। প্রধান কোচের পদ থেকে ডেভ হাটনের পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করেছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট।

সাম্প্রতিক আঞ্চলিক বাছাইপর্বের টুর্নামেন্টে নামিবিয়া এবং উগান্ডার কাছে হেরে যাওয়ার পর ২০২৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের টিকিট বঞ্চিত হয় জিম্বাবুয়ে। ১৮ মাস দায়িত্বে থাকার পর হাটন অনুভব করেন যে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি “নতুন ভয়েস” প্রয়োজন। তাই তিনি দ্রুতই সরে দাঁড়ালেন। 

তবে ডেভ হাটন কোচ হয়ে আসার পরেই দলের ইকোসিস্টেমে বদল আসে। এর আগে সিনিয়র পারফর্মার থাকলেও দল সাফল্য পাচ্ছিল না। তবে হাটন আসার পর তা বদলে যায়। তার কোচিংয়েই চ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপের আগে বাছাইপর্ব শেষ করে জিম্বাবুয়ে। বাছাইপর্ব পার করে বাংলাদেশকেও টি-টোয়েন্টি সিরিজে হারিয়ে দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। 

এর আগে ১৯৯৯ বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের কোচ ছিলেন হাটন। ওই বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে সুপার সিক্সে উঠে সাড়া ফেলে দিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। হাটনের কোচিং ক্যারিয়ারও বেশ সমৃদ্ধ। কাউন্টি ক্লাব ডার্বিশায়ার, মিডলসেক্সের মতো ক্লাবে কোচিং করিয়েছেন তিনি।

১৯৯২ সালে অভিষেক টেস্ট খেলেছিল জিম্বাবুয়ে। ওই টেস্টে অধিনায়ক ছিলেন হাটন। সব মিলিয়ে ১৭ ওয়ানডে ও চার টেস্টে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ছিলেন তিনি। জিম্বাবুয়ের জার্সিতে ৬৩টি টেস্ট খেলেছেন তিনি, রান করেছেন ১৪৬৪। ওয়ানডেতে হাটন মাঠে নেমেছে ৬৩বার যেখানে তার সংগ্রহ ১৫৩০ রান।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বক্সিং-ডে টেস্টে অনিশ্চিত খুররম শাহজাদ

Read Next

খালেদের ১১ উইকেটে বিসিএল শিরোপা জিতল ইস্ট জোন

Total
0
Share