সৌম্যকে প্রশংসা বন্যায় ভাসালেন কিউই ব্যাটার

সৌম্য 2

সৌম্য সরকারের ইতিহাস লেখা ইনিংসের পরও বাংলাদেশ ম্যাচ হেরেছে। নিশ্চিত হয়ে যায় সিরিজ হারও। তবে সৌম্য ভাসছেন প্রশংসা বন্যায়। কিউই ব্যাটার হেনরি নিকোলস সংবাদ সম্মেলনে এসে তো স্বীকারই করে গেলেন, সৌম্যর মারকুটে ব্যাটিংয়ে অনেক চাপে ছিল তারা। ১৬৯ রানের ইনিংস নিকোলসের চোখে, ‘ফ্যান্টাস্টিক’।

ওপেনিংয়ে নেমে নেলসনের মাঠে সৌম্য ছিলেন বাংলাদেশের পাগলা ঘোড়া। বাংলাদেশের পক্ষে ২য় সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস খেলে সৌম্য থামেন ১৬৯ এ। ১৫১ বল স্থায়ী ইনিংস সৌম্য সাজান ২২ চার ও ২ ছক্কায়। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এশিয়ান ব্যাটার হিসাবে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডও এখন সৌম্য’র দখলে। তিনি ভেঙেছেন ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের (১৬৩*) রেকর্ড। সৌম্যর দাপট দেখানোর দিনে ৪৯.৫ ওভারে ২৯১ রান তুলে অলআউট হয় টাইগাররা।

ব্যাট হাতে দিনি সৌম্য যতক্ষণ উইকেটে থাকেন চারপাশটা নিজের দখলে রাখেন। নিজের দিনে প্রতিপক্ষের বোলিং লাইন-আপ ভেঙে করেন চুরমার। এই সৌম্যর ইনিংসের বন্দনায় ম্যাচ শেষে শোনা গেল কিউই ব্যাটার হেনরি নিকোলসের ব্যাট থেকে, 

‘১৬৯ রান করা চাট্টিখানি কথা নয়। ফ্যান্টাস্টিক ইনিংস। আমাদের অনেক চাপে ফেলে দিয়েছিল। উইকেট থেকে বোলারদের তেমন সুবিধা পাওয়া যাচ্ছিল না। রাচিন ও ইয়ংয়ের সাথে আমার পার্টনারশিপ ভালো ছিল। আমরা চেষ্টা করেছি সবসময় রান রেট নিয়ন্ত্রণে রাখতে। ল্যাথাম ও ব্লান্ডেল ক্রিজে এসেও একই চেষ্টা করেছে।’

সৌম্য সরকার ওপেন করতে নেমে খেলেন প্রায় ৫০ ওভারই। ইনিংসের শেষ ওভারে যখন বিদায় নেন তখন তার নামের পাশে ১৬৯ রান। ইনিংসের অর্ধেকের বেশি ১৫১ বল খেলা সৌম্য পুরোটা সময়ই কিউই বোলারদের চাপে রেখেছেন। ব্যাট হাতে দারুণ সব স্ট্রোক্স খেলার সাথে এক-দুইও বের করে নিয়েছেন। 

দারুণ সৌম্যকে নিয়েই হেনরি নিকোলসের 

‘যেটা বললাম, সৌম্যর ইনিংসটা ফ্যান্টাস্টিক। আমাদের উপর অনেক চাপ সৃষ্টি করেছে। তার ১৬৯ রানে ভর করেই বাংলাদেশ ২৯০ রান করেছে, এটাই পুরো গল্প বলে দিচ্ছে। দুর্দান্ত ইনিংস। সে একজন কোয়ালিটি ক্রিকেটার, আর আজ সেটা প্রমাণ করেছে। ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর মুশফিকের সাথে দারুণ একটা পার্টনারশিপ গড়ে। এই পার্টনারশিপ বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। সে শুধু পুরো ইনিংস জুড়ে ব্যাট করেছে এমনই নয়, একইসাথে রানও বের করেছে। যেভাবে সে প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছে, দারুণ। ইনক্রেডিবল ইনিংস।’

নেলসনে স্বাগতিকরা ৭ উইকেটের বড় জয় পেলেও নিকোলসের ভাষায় ম্যাচ একপাক্ষিক ছিল না, বরং ফাইট হয়েছে, ‘এটা একপাক্ষিক ম্যাচ ছিল না। দারুণ লড়াই হয়েছে।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

নিকোলস-ইয়াংয়ের ব্যাটে ম্লান সৌম্যর রেকর্ডগড়া সেঞ্চুরি

Read Next

প্রায় ১৭ মিনিটের নিলাম, কল্পনাও করেননি স্টার্ক!

Total
0
Share