আফ্রিদির নেতৃত্বে পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টি দল, নেই শাদাব

টানা ৪ জয়ে ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ের এক নম্বরে পাকিস্তান

আগামী বছর, জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য ১৭ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে পাকিস্তান। এই সিরিজের মধ্য দিয়ে শাহীন শাহ আফ্রিদি প্রথমবারের মতো পাকিস্তান দলের পূর্ণকালীন নেতৃত্বে প্রবেশ করতে যাচ্ছেন। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাকিস্তানের তৃতীয় টেস্ট শেষ হওয়ার কিছুদিন পরেই কিউইদের বিপক্ষে এই বিশ ওভারে লড়াই শুরু করতে যাচ্ছে শাহীন ও তাঁর দল।

টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য শক্তিশালী এক স্কোয়াড ঘোষণা করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। সিনিয়র অলরাউন্ডার শাদাব খান, যিনি সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানের সহ-অধিনায়ক ছিলেন, তিনি ইনজুরির কারণে দলে ভিড়তে পারেননি।

প্রধান নির্বাচক ওয়াহাব রিয়াজ, যিনি সম্প্রতি নিয়োগ পেয়েছেন, তিনি শাদাবের ব্যাপারে জানান, “টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য শাদাব পাকিস্তানের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। দুর্ভাগ্যজনকভাবে, তিনি গোড়ালির ইনজুরিতে ভুগছেন, যেখানে আরও ২ সপ্তাহ প্রয়োজন হবে পুনর্বাসনের জন্য। এরপর বোলিং করার জন্য তিনি প্রস্তুত হবেন।”

মোহাম্মদ হারিস, যিনি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দলের হয়ে ভালো পারফর্ম্যান্স করেছেন, কিন্তু তাঁকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। প্রধান নির্বাচকের মতে, ঘরোয়াতে ভালো করা আরও নতুন ক্রিকেটারদের সুযোগ দেওয়ার জন্য হারিস বিশ্রাম পেয়েছেন।

পাকিস্তানের এই স্কোয়াডে ৩ জন উইকেটরক্ষক ব্যাটার রয়েছেন। যার একজন আজম খান। তাঁর ব্যাপারে রিয়াজ বলেন, “আমরা আজম খান’কে খুব নিবিড়ভাবে দেখেছি। মাঝেমধ্যে আপনাকে ফিটনেসের চেয়ে দক্ষতাকে মূল্যায়ন করতে হয়। যদি একজন খেলোয়াড় ম্যাচ জেতাতে পারে, তবে তা অন্য সবকিছুর চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।”

বড় শট খেলার সামর্থ্য রয়েছে আজমের। যিনি পাকিস্তানের সাবেক উইকেটরক্ষক ব্যাটার মইন খানের পুত্র। আজমকে ৬ নম্বরে খেলানোর ব্যাপারে জানিয়ে রেখেছেন রিয়াজ।

মোহাম্মদ রিজওয়ান বাদে, আরেক উইকেটরক্ষক ব্যাটার হিসেবে ২০ বছর বয়সী তরুণ ক্রিকেটার হাসিবুল্লাহ খান রয়েছেন। যার এখনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটেনি। তিনি পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) পারফর্ম্যান্স দিয়ে দলে সুযোগ করে নিয়েছেন।

ফাস্ট বোলার নাসিম শাহ, মোহাম্মদ হাসনাইন ও ইহসানুল্লাহ– এই তিন জন ফিটনেস ইস্যু এবং ইনজুরি থেলে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে থাকায় দলে থাকার মতো বিবেচিত হননি।

পাকিস্তান স্কোয়াড:

শাহীন আফ্রিদি (অধিনায়ক), বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফখর জামান, সাইম আইয়ুব, সাহিবজাদা ফারহান, হাসিবুল্লাহ খান, ইফতিখার আহমেদ, আজম খান, আমির জামাল, আব্বাস আফ্রিদি, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, মোহাম্মদ নওয়াজ, আবরার আহমেদ, উসামা মীর, হারিস রউফ, জামান খান।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে উন্নতি মুর্শিদা, নাহিদার

Read Next

দুই পরিবর্তন নিয়ে আগে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

Total
0
Share