রিভিউ নিতে সাবধান

featured photo1 1 73
Vinkmag ad

মাত্র ১০ রানেই দুই উইকেট হারালো টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেওয়া বাংলাদেশ। ঠিক তখনই ক্রিজে আসেন ব্যাটিং অর্ডারে উন্নত হওয়া সাব্বির রহমান। ঐ মুহুর্তে তার মূল কাজটাই ছিল ক্রিজে দাঁত কামড়ে পড়ে থাকা

কিন্তু বাংলাদেশের ইনিংসের শুরুতেই হানা দেওয়া প্যাট কামিন্সের অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বলটা সাব্বির রহমানের ব্যাট ছুঁয়ে উইকেটের পেছনে ম্যাথু ওয়েডের গ্লাভসে ধরা পড়ে। আর এতেই পরপর দুই বলে দুই উইকেট হারিয়ে ১০ রানে তিন উইকেটে পরিণত হয় বাংলাদেশের স্কোরবোর্ড। কামিন্সের বলে ওয়েডের হাতে ক্যাচ দেওয়ার পর বিনা দ্বিধায় আঙ্গুল তুলে দেন আম্পায়ার।

267429 1
প্যাট কামিন্সের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যাচ্ছেন সাব্বির। যতটা না আউট হয়ে ক্ষতি করেছেন তারচেয়েও বেশি ভুল করেছেন রিভিউ নিয়ে। (ছবি- ক্রিকইনফো) 

টিভি স্ক্রিনেও স্পষ্ট দেখা যাচ্ছিল বলটি সাব্বিরে ব্যাট ছুঁয়েই ওয়েডের হাতে যায় কিন্তু সবাইকেই অবাক করে দিয়ে সাব্বির নিয়ে নেন রিভিউ! পরে টিভি আম্পায়ারও মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকেই সঠিক বলে রায় দেন। সাব্বিরের এই সিদ্ধান্ত মাঠে এবং মাঠের বাইরের সবাইকেই অবাক করে, প্রতি ইনিংসে প্রতিটি দল মাত্র দুটি রিভিউ নিতে পারে আর দলের বাজে সময়েই এমন আনকোরা সিদ্ধান্তে সমালোচিত হন তিনি।

তার খেসারত কিন্তু ঠিকই বাংলাদেশকে দিতে হয়েছে ইনিংসের আরও গুরুত্বপূর্ণ সময়ে। মেহেদী হাসান মিরাজের নিশ্চিত নট আউটটাও রিভিউর অভাবে আউটে পরিনত হয়। সাব্বিরের পর দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও শেষ রিভিউটিও নিয়ে নেন।

সাকিব-তামিমের বিদায়ের পর মুশফিকেই ভরসা রেখেছিল সবাই কিন্তু নাথান লায়ানকে ডাউন দ্যা উকেটে এসে ব্লক করতে গিয়ে ব্যাটে বলে সংযোগ করাতে না পারায় বল মুশফিকের প্যাড ছুঁয়ে যায়, আর এতেই জোরাল আবেদন করেন অষ্ট্রেলিয়ার বোলার-ফিল্ডাররা আম্পায়ার নাইজেল লংও আঙ্গুল তুলে দেন। কিন্তু এক্ষেত্রেও রিভিউ নিয়ে নেন মুশফিক, টিভি রিপ্লেতে দেখা যায় বল উইকেট ভেঙ্গে দিচ্ছিল আর তাই মুশফিককে ১৯৮ রানে ৬ষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফিরতে হয়, আর এতেই শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের রিভিউ নেওয়ার সুযোগ।

৮ম উইকেট জুটিতে নাসির-মিরাজ বিপর্যয় কাটানোর ভালোই চেষ্টা চালাচ্ছিলেন, দুজনে উইকেটেও পার করে দিয়েছিলেন বেশ কিছু সময়, দুজনে মিলে দলের স্কোরবোর্ডে যোগ করেছিলেন ৪২ রান। মিরাজ-নাসিরেই স্কোর বড় করার স্বপ্ন দেখা শুরু করেছিল ক্রিকেট ভক্তরা কিন্তু হঠাৎই নাথান লায়ানের লাফিয়ে উঠা বলটা মিরাজের প্যাড ছুঁয়ে লেগ শর্টে দাঁড়ানো হ্যান্ডসকম্বের হাতে ধরা পড়ে, বোলার ফিল্ডারের জোরালো আবেদনে সাড়া দিয়ে দেন আম্পায়ার আলিমদার।

নিশ্চিত ব্যাটে না লাগা সত্ত্বেও সাব্বির-মুশফিকের ব্যর্থ রিভিউয়ের কারনে রিভিউ নিতে পারেননি মিরাজ। আর এতেই শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের বড় স্কোর গড়ার স্বপ্ন, মিরাজের বিদায়ের পর আর মাত্র ২০ রানই যোগ করতে পেরেছিল বাংলাদেশ।

প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে নিজেদের মনসংযোগটাও যে ক্রিকেট মাঠে খুব জরুরী তা আজকের সাব্বির-মুশফিকের ব্যর্থ রিভিউগুলোই প্রমাণ দেয়, বিশেষ করে সাব্বির কে তো অপরিপক্ব সম্বোধনও শুনতে হয়েছিল। অদূর ভবিষ্যতে রিভিউ নেওয়ার ক্ষেত্রে সচেতনতা না বাড়ালে অন্যদের থেকে পিছিয়ে যাওয়া ছাড়া উপায় থাকবেনা, কারন একটা সফল রিভিউই হতে পারে কখনো কখনো ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার কারন আর ক্রিকেট মাঠে বারবারই তা প্রমাণ হয়ে আসছে।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

ম্যাচের লাগাম আমাদের হাতেইঃ সাকিব

Read Next

বোঝাপড়ার অভাব ছিলো না সাকিব-তামিমের

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Total
0
Share