নাইমকে আগলে রেখে যা বললেন নির্বাচক রাজ্জাক

রাজ্জাক

আজ কলম্বোতে গণমাধ্যমকে এশিয়া কাপের পারফরম্যান্স নিয়ে জাতীয় দলের নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক জানালেন তাদের প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলতে পারেনি দল। রাজ্জাকের মতে, বাংলাদেশের মতো পৃথিবীর অন্য কোথাও এতো সমালোচনা হয় না, আর নাইমকে নিয়ে তো না বুঝেই সমালোচনা করা হচ্ছে।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশ এক শ্রীলঙ্কার কাছেই হেরেছে পরপর দুই ম্যাচে। এর আগে সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচে হেরেছে পাকিস্তানের সাথে। টানা হারে ফাইনালের রেস থেকে কার্যত ছিটকে গেল বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের মতো মেগা ইভেন্টের আগে এশিয়া কাপে দলের এমন ব্যর্থতা কিভাবে দেখছেন? প্রসঙ্গে নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক বলেন,

‘এশিয়া কাপে আমরা যেটা আশা করেছিলাম একেবারে সেরকম হয়েছে এটা বলব না। তবে আমি খুব একটা নেতিবাচকভাবে নিতে চাই না। কারণ, খেলার মধ্যে কিছু ভুল থাকবে। ওরাও চেষ্টা করেছে। মাঝে আমি শুনলাম এশিয়া কাপ চ্যাম্পিয়ন হতে আসছে বাংলাদেশ। আসলে য়খন কোন একটা টুর্নামেন্টে কোন একটা টিম আসে আশা তো থাকতেই পারে। সব টিমেরই আশা থাকে কিন্তু সবাই তো চ্যাম্পিয়ন হয় না। এটা বলা যায়, আমাদের দৃষ্টিকোণ থেকে আমরা যেমন আশা করেছিলাম আরেকটু বেটার হতে পারতো। তারপরও পাকিস্তানে গিয়ে একটা চান্স ক্রিয়েট করেছিল। এখানে আশার পর আমাদের আশা ছিল আমরা শ্রীলঙ্কার সাথে জিতব। কিন্তু কোনভাবে মিস হয়ে গেছে।’

নাঈমের এত দোষ কেন ধরা হচ্ছে বুঝতে পারছেন না রাজ্জাক। তার মতে, না বুঝেই নাইমের সমালোচনা হচ্ছে। নির্বাচক রাজ্জাকের কথায় উঠে আসে, নাইমের যথেষ্ট দক্ষ, তাই তাকে বাদ দেওয়ার চিন্তা নেই নির্বাচকদের। 

‘সমালোচনা থাকবে তবে বুঝলে সমালোচনা করার কথা না। না বুঝে সমালোচনা করলে কিছু বলার নেই। একটা ছেলে এখানে ভলো খেলছে ওর কিন্তু আগের ইতিহাস খারাপ না ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যখন এসেছিল সে অতটা খারাপ ছিল না এখন যেমন হয়েছে। একটা সময় ওর প্রিমিয়ার লিগে খুবই ভালে সময় গেছে। হয়ত এই মুহূর্তটা আমরা বা ও যেমন আশা করছি তেমন হচ্ছে না। তার মানে এই না যে আমরা ওকে ছুড়ে ফেলে দেব। একটা প্লেয়ার যখন ন্যাশনাল টিমে খেলে ও খারাপ খেললে ও নিজেই বোঝে। খারাপ খেললে সমালোচনার পাশাপাশি ভালো খেললে প্রশংসাও করা উচিত। অনেক ক্ষেত্রে সমালোচনাটা একটু বেশিই করা হয়।আমি শুনেছি ওকে নিয়ে যা তা বলা হচ্ছে। দলে না নেওয়ার মতো কিছু তো সে করেনি। এখানে ক্লিক করতে পারেনি এখন কি করার নেই। পরে কারো না কারো দোষ খোঁজা হয়।’

সুপার ফোরের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যথারীতি ওপেনিংয়ে নেমে ৪৬ বলে কেবল ২১ রান করেছেন নাইম। একের পর এক ডট খেলে দলকে ফেলেছেন চাপে, শেষপর্যন্ত বাজে শটে হারিয়েছেন উইকেট। কেবল এই ম্যাচেই নয় নাইম এশিয়া কাপে এখন পর্যন্ত চার ম্যাচেই হয়েছেন ব্যর্থ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শুরুর ম্যাচে ২৩ বল মোকাবিলায় করেন ১৬ রান। আফগানিস্তান ম্যাচে ৩২ বলে আসে ২৮ রান। পাকিস্তান ম্যাচে ২৫ বল খেলে তার ব্যাটে আসে ২০ রান। লঙ্কান বোলারদের সামনে তার ব্যাটের অবস্থা ছিল আরও করুণ, দেখা গেছে অসহায় আত্মসমর্পণ।
ব্যর্থতার বৃত্তে ঘুরপাক খাওয়া মোহাম্মদ নাইমকে তবুও আগলেই রাখছেন নির্বাচক আব্দুর রাজ্জাক।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

দুই সেঞ্চুরিতে ভারতের পাহাড়সম সংগ্রহ

Read Next

পাকিস্তানকে পাত্তা না দিয়ে ভারতের সবচেয়ে বড় জয়

Total
0
Share