ছাত্র হৃদয়কে জাতীয় দলে দেখে খুশি নাভিদ; পাথিরানা ‘লঙ্কান প্রোডাক্ট’

নাভিদ নওয়াজ

মাথিশা পাথিরানা ও মাহেশ থিকশানা; দুই লঙ্কান ক্রিকেটার দলের জন্য দিন দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছেন। থিকশানা ইতোমধ্যে নিজের স্পিন ভেলকি দেখিয়ে, নিজেকে বিশ্বমঞ্চে জাহির রাখছেন। পাথিরানাও কম যান না। এবারের এশিয়া কাপে চোট জর্জরিত শ্রীলঙ্কার পেস বোলিং লাইন-আপে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখছেন।

আপনি পাথিরানাকে দেখেছেন হয়তো এবারের আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে। মহেন্দ্র সিং ধোনির আগলে রাখা দলে। থিকশানাকে আগে থেকে চিনবেন, তবে তিনিও ছিলেন চেন্নাইতে। পাথিরানার কথা আসলে তাই, চেন্নাই দলের কথাও ওঠে। চেন্নাইয়ে আলাদা যত্ন পেয়েছেন এই ক্রিকেটার। সাবেক লঙ্কান পেসার লাসিথ মালিঙ্গার মতোই বোলিং অ্যাকশন। এবার তো এশিয়া কাপে দলের অন্যতম পেস বোলার হিসেবে খেলছেন।

আগামীকাল (১২ সেপ্টেম্বর) ভারতের বিপক্ষে মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কা। ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন সাবেক বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ ও বর্তমানে শ্রীলঙ্কার সহকারী কোচ নাভিদ নেওয়াজ। পাথিরানার বিষয়ে আগ্রহোদ্দীপক মন্তব্য রাখলেন, পাশাপাশি নিজের সাবেক ছাত্রদের ব্যাপারেও ইতিবাচক আলোচনা আনলেন। তাওহীদ হৃদয়কে এই অবস্থায় দেখে বেশ খুশি, সে কথা জানাতেও ভুললেন না।

নাভিদ নেওয়াজ ২০১৮ সালে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ হয়ে এসেছিলেন। দলের সাফল্যে বড় ভূমিকা ছিল নাভিদের। তাঁর অধীনেই ২০২০ সালে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে বাংলাদেশের যুবারা। সে দলের অংশ ছিলেন বর্তমানে মূল দলে খেলা হৃদয়। সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেট ৯৭ এর প্রতিবেদকের এক প্রশ্নের জবাবে নাভিদ বলেন,

“একজন কোচ বা মেন্টর হিসেবে আমি তাঁদের জন্য আনন্দিত।”

“আমি খুশি যে, ছেলেরা এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। হৃদয় ২০১৮,২০১৯ সাল থেকে বাংলাদেশের জন্য সম্পদ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। এখন সে ধারাবাহিক পারফর্ম করে যাচ্ছে।”

নাভিদের কাছে প্রশ্ন যায়, পাথিরানার ব্যাপারে। চেন্নাইয়ের যত্নেই কী পাথিরানা দারুণভাবে নিজেকে ফুটিয়ে তুলছেন? এই লঙ্কান সহকারী কোচ অবশ্য মনে করিয়ে দিতে চাইলেন, পাথিরানা মূলত ‘শ্রীলঙ্কান প্রোডাক্ট’।

নাভিদ বলেন,

“পাথিরানা শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটের ‘প্রোডাক্ট’, সে শ্রীলঙ্কার হয়ে দুইটি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলেছে। শ্রীলঙ্কার ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের অংশ ছিল। আইপিএলে সুযোগ পাওয়া তাঁর জন্য সুবিধাজনক হয়েছে। অবশ্যই চেন্নাই তাঁর মধ্যে কিছু দেখেছিল।”

চেন্নাইয়ের হয়ে ২০২৩ আইপিএলে ২৩ উইকেট লাভ করেন পাথিরানা। তবে নাভিদ জোর দিয়ে বললেন, চেন্নাই পাথিরানার জন্য ‘হেল্প’ হয়েছে ঠিক কিন্তু এই ক্রিকেটারের উঠে আসার পিছনে মূল ভূমিকা লঙ্কান ক্রিকেটের। এ বিষয়ে যেন কেউ ভুল না করে, তেমনই ‘সতর্কতা’ দিয়ে রাখলেন নাভিদ নেওয়াজ।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

তৃতীয় ওয়ানডে থেকে ছিটকে গেলেন নরকিয়া

Read Next

ইনজুরিতে মাঠের বাইরে হারিস রউফ

Total
0
Share