অবশেষে স্বস্তির জয়ে সুপার ফোরে পেশোয়ার জালমি

20230313 123210
Vinkmag ad

পিএসএলের শেষ দিকে মোহাম্মদ হারিসের ব্যাট হাতে জ্বলে উঠা আর উদীয়মান খেলোয়াড় খুররাম শেহজাদের অনবদ্য বোলিংয়ের কাছে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডর অসহায় আত্মসমর্পণ। তবে এ ম্যাচের লাভ ক্ষতি বোঝা বা প্রধান আকর্ষণ দেখা এখনো বাকি।

পিএসএল এলিমিনেটর ম্যাচে পেশোয়ার জালমির মুখোমুখি হবে ইসলামাবাদ ইউনাইটেড। ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ইতিহাসে বাবরের পেশোয়ার জালমিই একমাত্র দল যারা পরপর দু ম্যাচে দুইশত চল্লিশোর্ধ্ব রান তুলেছে। তবে অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, এই দুটি ম্যাচ তারা জিততে পারে নি। অন্যদিকে ইসলামাবাদ ইউনাইটেড টুর্নামেন্টের শুরুতে কিছুটা খাবি খেলেও শেষ মুহূর্তে এসে ঠিকই প্লে অফ নিশ্চিত করতে পেরেছে। তাই নিয়ম রক্ষার্থে পেশোয়ার জালমির সাথে ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের আজকের ম্যাচটিকে এলিমিনেটরের প্র্যাকটিস বলা যেতে পারে।

দিনের শুরুতে নিয়মিত ক্যাপ্টেন বাবরের পরিবর্তে টম কোহলার ক্যাডমোর পেশোয়ার জালমিকে প্রতিনিধিত্ব করে টস করতে নামে। ইউনাইটেড ক্যাপ্টেন সাদাব খান টস জিতে রাওয়ালপিন্ডিতে আগে বোলিং করাটা সুবিধাজনক মনে করেন।

শুরুতে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা তরুণ জালমি ব্যাটার সাইম আইয়ুব শূন্য রানে ফিরলেও আরেক ওপেনার মোহাম্মদ হারিস যেন দলের জন্য ত্রাণকর্তা। হারিসের ৩৯ বলে ৭৯ এবং ভানুকা রাজাপক্ষের ২৫ বলে ৪১ রান ছাড়া দলের বাকি সবাই ছিলেন ব্যাট হাতে ব্যর্থ।

ইউনাইটেডের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট নেন পাকিস্তানের হয়ে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতা হাসান আলি। বাকি বোলাররা ভূরিভূরি রান হজম করে শেষ বেলায় একটি দুটি করে উইকেট পেয়েছে।

হাসান নাওয়াজ ব্যাট হাতে শুরুতেই একেবারে খালি হাতে প্যাভিলয়নের পথে হাঁটতে শুরু করলে আ্যালেক্স হেলস, কলিন মুনরো, রহমানুল্লাহ গুরবাজ কেওই এদিনে টি টোয়েন্টির মেজাজে ছিলেন না। সাদাব খান দলের হাল ধরার চেষ্টা করলেও বাকিরা কেওই নিজেদের ইনিংস বড় করতে পারে নি। ফাহিম আশরাফের আশা জাগানিয়া ১৩ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খুররাম শেহজাদের বলে শেষ হলে জালমির ম্যাচ জেতা তখন আর সময়ের ব্যাপারমাত্র।

জালমি বোলার খুররাম শেহজাদ একাই ইউনাইটেডের ব্যাটিং লাইনআপে ধ্বংসযজ্ঞ চালান। ১০ বল করে তুলে নেন তিনটি উইকেট। সমান তিনটি উইকেট নেন আরেক পাকিস্তানি সুফিয়ান মুকীম। তবে ৩৭ রান হজম করতে হয়েছে বলে জালমির ম্যাচ জয়ে মুকীমের তিনটি উইকেটের গল্প গুরুত্ব হারায়।

ম্যাচ ফলাফল : পেশোয়ার জালমি ১৩ রানে জয়ী
ম্যাচ সেরা : মোহাম্মদ হারিস ৭৯(৩৯) – পেশোয়ার
জালমি

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

পেশোয়ার জালমি – ১৭৯/৮

সাইম আইয়ুব ০(৩), মোহাম্মদ হারিস ৭৯(৩৯),
ভানুকা রাজাপক্ষ ৪১(২৫), টম কোহলার ক্যাডমোর ১২(৫), হাসিবুল্লাহ খান ১০(১১), জেমস নিশাম ১(২), আমীর জামাল ৯(১১), খুররাম শেহজাদ ১১(১৫), মুজিবুর রহমান ২(২), সুফিয়ান মুকীম ৬(৭),

ফজলহক ফারুকি ৪-০-২৭-১
হাসান আলি ৪-০-৩৯-৩
ফাহিম আশরাফ ৪-০-৩৯-১
সাদাব খান ৪-০-৪২-২
মোহাম্মদ ওয়াসিম ৪-০-৩১-১

ইসলামাবাদ ইউনাইটেড – ১৬৬/১০

হাসান নাওয়াজ ০(৫), আ্যালেক্স হেলস ১৫(১৬),
সোহাইব মাকসুদ ১৫(৬), কলিন মুনরো ১৫(১৪),
রহমানুল্লাহ গুরবাজ ৩৩(২৪), সাদাব খান ২৫(১৯),
আসিফ আলি ৫(৭), ফাহিম আশরাফ ৩৮(১৩),
হাসান আলি ০(২), মোহাম্মদ ওয়াসিম ১৪(১১),
ফজলহক ফারুকি ০(১)

খুররাম শেহজাদ ১.৪-০-১৩-৩
মুজিবুর রহমান ৪-০-২৩-০
সালমান ইরশাদ ৪-০-২৮-০
আমীর জামাল ৩-০-২৮-২
জেমস নিশাম ৩-০-২৩-২

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

কোহলির সেঞ্চুরিতে লিড পেয়েছে ভারত

Read Next

জয় দিয়ে ব্যর্থ পিএসএল মিশন শেষ হল করাচির

Total
0
Share