বার্ল ম্যাজিকে সিরিজ জিতল জিম্বাবুয়ে

বার্ল ম্যাজিকে সিরিজ জিতল জিম্বাবুয়ে
Vinkmag ad

সিরিজের প্রথম ম্যাচটা ছিল একপেশে, সফরকারীরা কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদের কাবু করেছিল স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে দাপুটে জয়ে সিরিজ জয়ের লড়াইয়ে ফিরেছিল সফরকারী আয়ারল্যান্ড। তবে শেষ ম্যাচে জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে ব্যর্থ হয়েছে আয়ারল্যান্ড, ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত খেলে আইরিশদের সিরিজ জয়ে প্রধান বাধা হয়ে ওঠেন রায়ান বার্ল।

রোববার হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে রায়ান বার্লের অলরাউন্ড নৈপুন্যে আয়ারল্যান্ডকে ৪ উইকেটে হারিয়ে ২-১ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছে জিম্বাবুয়ে। বোলিংয়ে ২৮ রানে ২ উইকেট এবং ব্যাটিংয়ে ১১ বলে ৩০ রানে অপরাজিত ম্যাচজয়ী ঝড়ো ইনিংসে ম্যাচ সেরার পাশাপাশি সিরিজ সেরাও হয়েছেন রায়ান বার্ল।

লেগ স্পিনে ইতিমধ্যে নিজেকে চিনিয়েছেন রায়ান বার্ল, পাশাপাশি ব্যাট হাতে কম যাননি জিম্বাবুয়ের এই অলরাউন্ডার। আইরিশদের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে তেমন একটা আলো ছড়াতে না পারলেও বোলিংয়ে ব্যাটারদের ভুগিয়েছেন বার্ল। প্রথম ম্যাচে ২৯ রানে ৩ এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ২৬ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন বার্ল। আর তৃতীয় ম্যাচে তো একাই ডুবিয়েছেন আইরিশদের।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে আইরিশদের ১৪২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই প্রথম উইকেট হারায় স্বাগতিক জিম্বাবুয়ে। আইরিশদের বিপক্ষে পুরো সিরিজেই রান খরায় ভুগেছেন ওপেনার তা‌দিওয়ান‌শে মারুমা‌নিকে, তিন ম্যাচে তাঁর রান মাত্র ১১ রানে। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে শুরুতেই তাঁকে ফিরিয়েছেন ব্যারি ম্যাকার্থি।

এরপর আরেক ওপেনার ইনোসেন্ট কায়া ও অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিনের ৪৩ রানের জুটিতে জয়ের পথেই এগুচ্ছিল জিম্বাবুয়ে। ২৩ রানে কায়াকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন হ্যারি টেক্টর। তবে আরভিন ফিফটি হাঁকিয়ে দলকে জয়ের দোরগোড়ায় নিয়ে ফিরেন ৪৩ বলে ৫৩ রানে দারুণ এক ইনিংস উপহার দিয়ে।

৫৩ রানের ইনিংস খেলার পথে আরভিন দুই সতীর্থকে সাজঘরে ফিরতে দেখেছেন দলীয় ৬০ ও ৯২ রানে। ৬০ রানে মাধেভেরে (২) রানে ফেরান হোয়াইট। এরপর টনি টনি মুনিয়োঙ্গাকে নিয়ে ৩২ রান যোগ করেন আরভিন। মুনিয়োঙ্গাকে (১৩) ফিরিয়ে জিম্বাবুয়ে শিবিরে আবারও আঘাত হানেন হোয়াইট।

জিম্বাবুয়েকে সহজে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে পারত রায়ান বার্ল ও ক্রেইগ আরভিন জুটি। কিন্তু তা হতে দেননি অ্যাডায়ার ও হোয়াইট। দলীয় ১১৬ রানে আরভিনকে (৫৩) রানে ফেরান অ্যাডায়ার। আরভিনের বিদায়ের ক্ষত কাটাতে ব্যাট হাতে ঝড় তুলেন বার্ল, ডকরেলের করা ইনিংসের ১৮তম ওভারে ২ ছক্কা এবং ১ বাউন্ডারিতে তুলেন ১৯ রান। বার্ল ঝড়ে যখন জিম্বাবুয়ে জয় থেকে ৩ রান দূরে তখন ক্লাইভ মদন্ডেকে দ্রুত ফিরিয়ে পরাজয়ের উইকেটের ব্যবধান কমান হোয়াইট। সেই ওভারের শেষ বলে বাউন্ডারিতে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন লুক জংউই।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পাওয়ার প্লে’র প্রথম চার ওভারেই ১৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে আয়ারল্যান্ড। এরপর কুর্টিস ক্যাম্ফার ও হ্যারি টেক্টরের ৬০ রানে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ালেও জিম্বাবুয়েকে ১৪১ রানের বেশি লক্ষ্য দিতে পারেনি আইরিশরা। শেষদিকে জিম্বাবুয়ে বোলাররা আয়ারল্যান্ডের শেষ তিন ব্যাটারকে ফেরান মাত্র ৬ রানের ব্যবধানে। ফলে ১৪১ রানে গুটিয়ে যায় ৩ বল বাকী থাকতে। জিম্বাবুয়ের পক্ষে ২টি করে উইকেট পান রায়ান বার্ল, টেন্ডা চাতারা এবং লুক জংউই।

১১ বলে অপরাজিত ৩০ রান এবং ২৮ রানে ২ উইকেট শিকার করে ম্যাচ সেরা হন জিম্বাবুয়ের অলরাউন্ডার রায়ান বার্ল। পাশাপাশি তিন ম্যাচে বোলিংয়ে ৭ উইকেট এবং ব্যাটিংয়ে ৫৩ রান করে সিরিজ সেরাও বার্ল।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড নারীদের কোচিং প্যানেলে মরনে মরকেল

Read Next

বেনোনিতে আজ আগে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

Total
1
Share