ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত আয়ারল্যান্ড, দাপুটে জয়ে সিরিজে সমতা

ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত আয়ারল্যান্ড, দাপুটে জয়ে সিরিজে সমতা
Vinkmag ad

প্রথম ম্যাচে একপেশে হয়ে গিয়েছিল, জিম্বাবুয়ের দাপুটে ব্যাটিং-বোলিংয়ে পাত্তাই পায়নি সফরকারী আয়ারল্যান্ড। সেই ম্যাচ হেরেছিল ৫ উইকেটে। তবে সেই হারের ক্ষত কাটাতে অবশ্য বেশি অপেক্ষা করতে হয়নি অ্যান্ড্রু বালবার্নির দলকে। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই ব্যাটে-বলে দুর্দান্ত খেলে জিম্বাবুয়েকে হারিয়েছে ৬ উইকেটে। হ্যারি টেক্টর ও গ্রাহাম হিউমের অসাধারণ বোলিংয়ে ১৪৪ রানে জিম্বাবুয়েকে আটকে দেয় আয়ারল্যান্ড। জবাবে রস অ্যাডায়ারের দুর্দান্ত ফিফটিতে আয়ারল্যান্ড সেই রান টপকে ম্যাচ জিতে ৬ উইকেট হাতে রেখে।

হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে শনিবার মুখোমুখি হয় জিম্বাবুয়ে ও আয়ারল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে জিতে ফুরফুরে মেজাজেই ছিল জিম্বাবুয়ে, হারলেও কিছু হারানোর ছিল না। জিতলে বরং এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজটা জিতব। তবে চ্যালেঞ্জটা ছিল সফরকারী দল আয়ারল্যান্ডের, প্রথম ম্যাচ হারায় পিছিয়ে পড়ে সিরিজ থেকে। লড়াইয়ে ফিরতে হলে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের কোনো বিকল্প ছিল না। তাই দ্বিতীয় ম্যাচে শুরু থেকেই সতর্ক ছিল আয়ারল্যান্ড। টস জিতে স্বাগতিকদের ব্যাটিংয়ে পাঠান অ্যান্ড্রু বালবার্নি।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই উইকেট হারায়। ইনিংসের পঞ্চম বলে ওপেনার তা‌দিওয়ান‌শে মারুমা‌নিকে ফিরিয়ে আয়ারল্যান্ডকে উৎসবে মাতান হ্যারি টেক্টর। শুরুর উৎসব পানসে হয়ে যায় আরেক ওপেনার ইনোসেন্ট কায়া ও ক্রেইগ আরভিনের ৪৮ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে। মাত্র ২৯ বলে ৪৮ রানের দারুণ এই জুটি গড়েন আরভিন ও কায়া।

দলীয় ৫৪ রানে কায়াকে (২৫) রান আউটে ফিরিয়ে সেই জুটি থামান কুর্টিস ক্যাম্ফার। এরপর ক্রেইগ আরভিন ২৬ ও ৩১ রানের দুটি জুটি গড়েন। সেই দুই জুটি ডালপালা মেলার আগেই ভাঙেন আয়ারল্যান্ডের দুই বোলার টেক্টর ও হিউম। দলীয় ৮৬ রানে শন উইলিয়ামসকে (১৯) ফিরিয়ে ২৬ রানের জুটি ভাঙেন টেক্টর। তারপরে দুর্দান্ত খেলতে থাকা ক্রেইগ আরভিন (৪২) ফিরিয়ে ৩১ রানের জুটি ভাঙেন হিউম। জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক আরভিন ৪২ রান করেন ৪টি বাউন্ডারির সাহায্যে।

এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি জিম্বাবুয়ে, শেষ পাঁচ ব্যাটার মিলে ২৩ বলে ২৭ রানের বেশি নিতে পারেননি। ডেথ ওভারে আয়ারল্যান্ডের বোলারদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে স্বাগতিকরা ২৭ রানের ব্যবধানে হারায় শেষ ৫ উইকেট। আয়ারল্যান্ডের হয়ে ৩টি উইকেট শিকার করেন গ্রাহাম হিউম। এছাড়া ২টি উইকেট পান হ্যারি টেক্টর এবং ১টি করে উইকেট যায় মার্ক অ্যাডায়ার ও গ্যারেথ ডেলানির ঝুলিতে।

জিম্বাবুয়ের ১৪৫ রান তাড়ায় আয়ারল্যান্ডের দুই ওপেনার উদ্বোধনী জুটিতে তুলেন ৪৮ রান। অধিনায়ক অ্যান্ড্রু বালবার্নি ৩১ বলে করেন ৩৩ রান। আরেক ওপেনার রস অ্যাডায়ার সেই জুটিতে অবদান ২১ বলে ১৫ রান। ইনিংসের নবম ওভারে অধিনায়ক বালবার্নি (৩৩) ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন রায়ান বার্ল। এক ওভার পরে এসে নতুন ব্যাটার স্টিফেন ডোহানিকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন বার্ল। ফলে ৬০ রানেই দ্বিতীয় উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড।

১৪৫ রান তাড়ায় তৃতীয় উইকেটে ৫৯ রানের কার্যকরী এক জুটি গড়ে দলকে জয়ে দিকে নিয়ে যান রস অ্যাডায়ার ও হ্যারি টেক্টর। পঞ্চাশ ছাড়ানো সেই জুটি গড়ার পথে ওপেনার অ্যাডায়ার ৪০ বলে ২ বাউন্ডারি এবং ২ ছক্কায় হাঁকান ফিফটি। ফিফটির পর অ্যাডায়ার হাত খোলে মারতে থাকেন, সেই সাথে হ্যারি টেক্টরও সমানতালে জ্বলে উঠেন। ইনিংসের ১৪তম ওভারে অ্যাডায়ার ও টেক্টর মিলে ২ ছক্কা ও দুই ডাবলসে নেন ১৮ রান। ১৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে আবারও ছক্কা হাঁকান অ্যাডায়ার, পরের ওভারের পঞ্চম বলে আবারও ছক্কায় বল বাউন্ডারি ছাড়া করেন অ্যাডায়ার। অতিরিক্ত আগ্রাসী মেজাজে খেলতে গিয়ে অ্যাডায়ার ধরার পড়েন ওভারের পরের বলে। ব্যক্তিগত ৬৫ রানে মাধেভেরের হাতে ক্যাচ দিয়ে অ্যাডায়ার ফিরেন নাগরাভার বলে। ফলে ১১৯ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় আয়ারল্যান্ড।

এরপর একটু আঁটসাট বোলিং করে জিম্বাবুয়ে, রানের বাড়তি চাপ না থাকায় কোনো ঝুঁকি নিতে চাননি আইরিশ ব্যাটাররা। দেখেশুনেই এগুতে থাকেন দুই ব্যাটার হ্যারি টেক্টর ও জর্জ ডকরেল। জয় থেকে ৯ রান দূরে থাকতে টেক্টর (২৬) সাজঘরে ফিরলেও ১৫ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন ডকরেল। দুই বল বাকী থাকতে ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় আয়ারল্যান্ড। দ্বিতীয় ম্যাচে ৬ উইকেটের জয়ে সিরিজে সমতায় ফিরে আয়ারল্যান্ড।

জিম্বাবুয়ের হয়ে ২৬ রানে ২টি উইকেট শিকার করেন রায়ান বার্ল। ৬৫ রানের ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন আয়ারল্যান্ডের রস অ্যাডায়ার।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

আক্ষেপ লুকালেন না সরফরাজ খান, বোঝা গেল ইন্সটাগ্রাম স্টোরিতে

Read Next

১৮ মাস মাঠের বাইরে থাকবেন রিশাব পান্ট!

Total
6
Share