রেকর্ড জুটির ম্যাচে জয় পেল নিউজিল্যান্ড

featured photo updated v 16
Vinkmag ad

করাচি টেস্টের প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ১২২, কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ডেভন কনওয়ে ফিরেছিলেন শুন্য রানে। সেই শুন্য কনওয়ে বয়ে এনেছিলেন ওয়ানডে সিরিজেও, প্রথম ম্যাচে ফিরেন রানের খাতা খোলার আগেই। তবে পরপর ‘ডাক’ খাওয়া কনওয়ে রানে ফিরতে সময় নেননি বেশি, ফিরেছেন সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে। করাচি জাতীয় স্টেডিয়ামেই সেই ফেরাটাকে রাঙিয়েছেন সেঞ্চুরিতে, সেই সাথে কেন উইলিয়ামসনকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে গড়েছেন ১৮২ রানের রেকর্ড জুটি। যা পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় উইকেটে নিউজিল্যান্ডের সেরা জুটি।

কনওয়ে ও উইলিয়ামসনের সেই রেকর্ড গড়া জুটিতে নিউজিল্যান্ড প্রথম ব্যাট করে সব উইকেট হারিয়ে তুলে ২৬১ রান। জবাবে খেলতে নেমে বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান ছাড়া আর কোনো পাকিস্তানি ব্যাটার দাঁড়াতে পারেননি নিউজিল্যান্ডের শক্তিশালী বোলিং লাইনআপের
সামনে। যদিও কোনো বোলারই একক আধিপত্য বিস্তার করতে পারেননি, তারপরও সম্মিলিত প্রয়াসে ২৬২ রান তাড়ায় পাকিস্তানকে ১৮২ রানে গুটিয়ে দিয়ে ৭৯ রানের জয়ে সিরিজে সমতায় ফিরেছে নিউজিল্যান্ড।

বুধবার করাচি জাতীয় স্টেডিয়ামে সফরকারী নিউজিল্যান্ডের ২৬২ রানের লক্ষ্য তাড়ায় মাত্র ৯ রানে দুই ওপেনারকে হারায় স্বাগতিক পাকিস্তান। ইনিংসের তৃতীয় ওভারে ফখর জামানকে (০) ফিরিয়ে শুরু করেন টিম সউদি। আর চতুর্থ ওভারে আরেক ওপেনার ইমাম উল হককে (৬) ফেরান লুকি ফার্গুসন।

দ্রুত দুই ওপেনারকে হারালেও ম্যাচে ফেরার আশা হারায়নি স্বাগতিকরা। কারণ উইকেটে তখন আগের ম্যাচের জয়ের ভিত গড়ে দুই ব্যাটার বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান। এই দুজনের ব্যাটেই খানিকটা লড়াই গড়েছিল পাকিস্তান, ম্যাচ জয়ের আশার পালে হাওয়া উড়িয়েছিলেন বাবর ও রিজওয়ান। তৃতীয় উইকেটে বাবর-রিজওয়ান মিলে গড়েছিলেন ৫৫ রানের জুটি। ৫০ বলে ২৮ রানের ধৈর্য্যশীল ইনিংস খেলে বাবরকে দারুণ সঙ্গ দেওয়া রিজওয়ানকে দুর্দান্ত ডেলিভারিতে বোল্ড করে সেই জুটি ভাঙেন মিচেল সান্টনার৷ সেই সাথে পাকিস্তানের ইনিংসের ছন্দ পতন ঘটে।

রিজওয়ানের বিদায়ের পর আর যোগ্য কোনো সঙ্গী পাননি বাবর। যা একটু সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন আঘা সালমান, তাকেও উইকেটে থিতু হওয়ার আগেই দারুণ থ্রোতে রান আউটে সাজঘরে ফেরান গ্লেন ফিলিপস। রান আউটের শিকার হওয়ার আগে সালমান ২২ বলে ২ বাউন্ডারিতে করেন ২৫ রান। এরপর আর বড় কোনো জুটি পায়নি পাকিস্তান। একপ্রান্তে সতীর্থদের আশা যাওয়া দেখেন অধিনায়ক বাবর আজম। টিম সউদি, মাইকেল ব্রেসওয়েল ও মিচেল সান্টনার মিলে একে একে ফেরান মোহাম্মদ নওয়াজ (৩), উসামা মীর (১২) ও মোহাম্মদ ওয়াসিমকে (১০)। ওয়াসিমকে অবশ্য উইলিয়ামসন ও সান্টায়ানার মিলে রান আউটে সাজঘরে পাঠান। ফলে ৪১.৩ ওভারে ১৭৩ রানেই ৮ উইকেট হারায় পাকিস্তান।

এক প্রান্ত আগলে রেখে একক লড়াই চালিয়ে পাক কাপ্তান ফিফটি তুলে নেন ৮৬ বলে। ইনিংসের ৪৩তম ওভারে ১১৪ বলে ৭৯ রানের ইনিংস খেলে বাবর ফিরেন ইশ সৌধির বলে। ওভারের শেষ বলে হারিস রউফকে ফিরিয়ে সৌধি পাকিস্তানকে গুটিয়ে দেন ১৮২ রানে। ফলে ৭৯ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে নিউজিল্যান্ড, সেই সাথে সিরিজে ফেরায় ১-১ সমতা। সিরিজের প্রথম ম্যাচে জয় পেয়েছিল পাকিস্তান।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ২টি করে উইকেট শিকার করেন পেসার টিম সউদি ও স্পিনার ইশ সৌধি। এছাড়া একটি করে উইকেট পান লকি ফার্গুসন, মিচেল সান্টনার, মাইকেল ব্রেসওয়েল ও গ্লেন ফিলিপস।

এর আগে করাচির জাতীয় স্টেডিয়ামে শুরুতে নাসিমের বলে ফিন এ্যালেন ফিরলেও দ্বিতীয় উইকেটে ডেভন কনওয়ে ও কেন উইলিয়ামসনের ১৮২ রানের অবিস্মরণীয় জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় নিউজিল্যান্ড। যা পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় উইকেটের সর্বোচ্চ রানের জুটি। তব্ব দুই দলের লড়াইয়ে এটি দ্বিতীয়, সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড আমির সোহেল ও ইনজামাম উল হকের। ১৯৯৪ সালে শারজায় পাকিস্তানের এই দুই ব্যাটার দ্বিতীয় উইকেটে গড়েছিলেন ২৬৩ রানের জুটি।

কনওয়ে-উইলিয়ামসন যেভাবে ব্যাট করছিলেন তাতে নিউজিল্যান্ড তিনশো পার করত অনায়াসে। কিন্তু সেটা আর হয়নি নাসিম শাহ ও মোহাম্মদ নওয়াজের দুর্দান্ত বোলিংয়ে। কনওয়েকে (১০১) ফিরিয়ে ১৮২ রানের জুটি ভাঙেন নাসিম শাহ। ৯২ বলে ১৩ বাউন্ডারি এবং ছক্কায় কনওয়ে সাজান তার ১০১ রানের ইনিংসটি। এরপর মোহাম্মদ নওয়াজের স্পিন ঘূর্ণিতে নিউজিল্যান্ডের মিডল এবং লোয়ারঅর্ডার ভেঙে যায় খুব দ্রুত।

নওয়াজের চমক জাগানিয়া বোলিংয়ে মাত্র ৮ রানের ব্যবধানে নিউজিল্যান্ড হারায় ৪ উইকেট। নওয়াজের স্পিন ভেল্কিতে একে একে ফিরে যান ড্যারিল মিচেল (৫), টম লাথাম (২), কেন উইলিয়ামসন (৮৫) এবং গ্লেন ফিলিপস (৩)। দ্রুত এই চার ব্যাটারকে ফিরিয়ে কিউইদের ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন নওয়াজ। দলীয় ২২০ রানে মাইকেল ব্রেসওয়েলকে ফিরিয়ে সফরকারী আর দাঁড়াতে দেননি উসামা মীর। শেষ দিকে মিচেল ৪০ বলে ১ বাউন্ডারি এবং ১ ছক্কার সাহায্যে ৩৭ রান করলে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ আড়াইশো পারায়। শেষ ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমের থ্রোতে সান্টনারকে রান আউট করেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। ফলে ৪৯.৫ ওভারে নিউজিল্যান্ড থামে ২৬১ রানে।

পাকিস্তানের হয়ে ৩৮ রানে ৪ উইকেট শিকার করেন মোহাম্মদ নওয়াজ। এছাড়া নাসিম শাহ ৫৮ রানের বিনিময়ে নেন ৩ উইকেট এবং উইকেট করে উইকেট লাভ করেন হারিস রউফ ও উসামা মীর।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

জোহানেসবার্গে স্বর্ণার ছক্কাবৃষ্টি, ভারতকে হারাল বাংলাদেশ

Read Next

সিরিজ বাতিল করল অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তান পাচ্ছে ৩০ পয়েন্ট

Total
10
Share