শেষ টেস্ট ড্র, সিরিজ জিতল অস্ট্রেলিয়া

শেষ টেস্ট ড্র, সিরিজ জিতল অস্ট্রেলিয়া
Vinkmag ad

সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে আগেই সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া, শেষ ম্যাচে খেলেছিল হোয়াইটওয়াশের আশায়। তবে সেটা আর হয়নি বৃষ্টি বাধায়, ড্রতেই নিষ্পত্তি হয় সিডনি টেস্ট। ফলে বৃষ্টির কল্যাণে সান্ত্বনার ড্রতে হোয়াইটওয়াশ এড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজ জুড়ে ব্যাটে-বলে দাপুটে ক্রিকেট খেলে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করে স্বাগতিকরা।

বৃষ্টিতে প্রায় দুই দিন ভেসে যাওয়ায় সিডনি টেস্টের ফলাফল যে ড্র, সেটা অনুমেয় ছিল। তবে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে যখন দক্ষিণ আফ্রিকা ১৩৭ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে, তখন সফরকারীদের ফলোঅনে পড়ার পাশাপাশি ইনিংসের হারের শঙ্কা জাগে। প্যাট কামিন্স আর হ্যাজলউডের গতির ঝড়ে প্রোটিয়ারা ফলোঅন এড়াতে না পারলেও ম্যাচ বাঁচিয়েছে ঠিকই। ফলোঅনে পড়ে ব্যাট করতে নেমে সারেল এরওয়ে (৪৩*) এবং হেনরিখ ক্লাসেন (৩৫) ব্যাটে ২ উইকেটে ১০৬ রান তুলে ঘুরে দাঁড়িয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকা ২৭ রানেই ওপেনার ডিন এলগারকে হারায়। ব্যক্তিগত দশ রানে প্যাট কামিন্সের বলে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন এলগার। সারেল এরওয়ে ও হেনরিখ ক্লাসেনের ৪৮ রানের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। দলীয় ৭৫ রানে ক্লাসেনকে (৩৫) সাজঘরে পাঠিয়ে সেই জুটি থামান হ্যাজেলউড।

ক্লাসেনের বিদায়ের আর কোনো উইকেট পড়তে দেননি সারেল এরওয়ে ও টেম্বা বাভুমা, তৃতীয় উইকেটে দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৩১ রানে জুটিতে ১০৬ রান সংগ্রহ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। পঞ্চম দিনের শেষ বিকেলে ড্র মেনে নিয়ে মাঠ ছাড়ে অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

সিডনি টেস্টে ফলোঅন এড়াতে পঞ্চম দিনে প্রয়োজন ছিল ১২৭ রান, হাতে ছিল চার উইকেট। শেষ চার উইকেটে ১০৬ রানের বেশি তুলতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা, ৬ উইকেটে ১৪৯ রানে দিন শুরু করা দক্ষিণ আফ্রিকার তাই ফলোঅন এড়ানো হয়নি। ফলোঅন থেকে ২১ রান দূরে থাকতে সফরকারীরা গুটিয়ে যায় ২৫৫ রানে।

প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ২৫৫ তে থামানোর মূল কারিগর হ্যাজেলউড, কেশব মহারাজা ও সাইমন হারমার মিলে অষ্টম উইকেটে গড়েন ৮৫ রানের জুটি। ইনিংসের ১০১তম ওভারে মহারাজ (৫৩) রানে ফিরিয়ে সেই ভাঙেন হ্যাজেলউড। এরপর একপ্রান্তে বলে করে যান হ্যাজেলউড, অন্যপ্রান্তে কখনো প্যাট কামিন্স, আবার কখনো নাথান লায়ন। তবে ইনিংসের চতুর্থ সাফল্যটা হ্যাজলউড পান পাঁচ ওভার পরে, আরেক সেট ব্যাটার সাইমন হারমারকে ৪৭ রানে ফিরিয়ে। মাঝে অবশ্যই হ্যাজেলউডের বলে স্কোয়ার লেগে কাগিসো রাবাদার ক্যাচ ছাড়েন অ্যাস্টন অ্যাগার ইনিংসের একশো তিনতম ওভারে, অ্যাগার সেই ক্যাচ তালুবন্দি করতে পারলে সিডনি টেস্টে পাঁচ উইকেট পেয়ে যেতেন জশ হ্যাজেলউড।

পরে সেই রাবাদা সাজঘরে ফিরেন কট এন্ড বোল্ড হয়ে নাথান লিয়নের বলে। সেই সাথে ১০৮ ওভারে ২৫৫ রানে অলআউট হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৪৮ রানে ৪ উইকেট শিকার করেন হ্যাজলউড। চতুর্থ দিনে প্রোটিয়া ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড ভেঙে দেওয়া অজি অধিনায়ক প্যাট কামিন্সের শিকার ৩ উইকেট। এছাড়া ২টি উইকেট শিকার করেন নাথান লায়ন এবং একটি যায় ট্রেভিস হেডের পকেটে।

এর আগে অস্ট্রেলিয়া উসমান খাজা (১৯৫*) ও স্টিভ স্মিথের (১০৪) জোড়া শতকে প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেটে ৪৭৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। এছাড়া অর্ধশতক আসে মারনাস লাবুশেইন (৭৯) ও ট্রাভিস হেডের (৭০) ব্যাট থেকে।

উসমান খাজা ৩৬৮ বলে ১৯ বাউন্ডারি এবং ১ ছক্কায় ১৯৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলার পথে প্রথম দিনে মারনাস লাবুশেইনের সাথে ১৩৫, দ্বিতীয় দিনে স্টিভ স্মিথের সাথে ২০৯ এবং দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে ট্রাভিস হেডের সাথে ১১২ সহ তিনটি শতরানের জুটি গড়েন।

আর দ্বিতীয় দিনে ক্যারিয়ারের ত্রিশতম সেঞ্চুরিতে স্যার ডন ব্যাডম্যানকে ছাড়িয়ে যান স্টিভ স্মিথ। স্মিথের ১৯২ বলে ১০৪ রানের ইনিংসে ছিল ১১টি বাউন্ডারি এবং ২টি ছক্কার মার।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ২টি উইকেট শিকার করেছেন আনরিখ নরকিয়া, ১টি উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা ও কেশব মহারাজা।

১৯৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার উসমান খাজা।

সিডনি টেস্ট ড্র হওয়াতে ২-০ সিরিজ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। তিন ম্যাচে ১২ উইকেট শিকার করে সিরিজ সেরা বোলার অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক প্যাট কামিন্স। ১১ উইকেট শিকার করে দুইয়ে আছেন প্রোটিয়া বোলার কাগিসো রাবাদা।

তবে ব্যাটিংয়ে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করেছে অজি ব্যাটাররা। চার ইনিংসে ৫৭.৭৫ গড়ে ২৩১ রান নিয়ে সবার উপরে স্টিভ স্মিথ। সমান ইনিংসে এক দ্বিশতকে ২১৩ রান করে দুইয়ে ডেভিড ওয়ার্নার। ওয়ার্নার এক দ্বিশতকেই হয়েছেন সিরিজ সেরা।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

পুরনো প্রধান নির্বাচকেই আস্থা রাখল ভারত

Read Next

ভারতীয় গণমাধ্যমে সাকিবের আচরণ নিয়ে কটাক্ষ

Total
1
Share