প্রয়োজনে ৯ আঙুল নিয়ে খেলতে প্রস্তুত সোহান

রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক হলেন সোহান
Vinkmag ad

অস্ত্রোপচারের পরও ভাঙা আঙুল ভালো না হওয়ায় চিন্তিত নন নুরুল হাসান সোহান। প্রয়োজনে বাকি ৯টি আঙুল নিয়েও খেলা চালিয়ে যেতে চান রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক। উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে শতভাগ দিতে না পারা সোহান শতভাগ দেবার চেষ্টা করে যেতে চান। টুর্নামেন্টে শুরুর ম্যাচে জয়, সোহান প্রশংসায় ভাসালেন দুই ওপেনার ও বোলারদের।

আঙুলের চোটে পড়েন সোহান গত আগস্টে, জিম্বাবুয়ে সফরে। সেরে উঠতে সিঙ্গাপুরে অস্ত্রোপচার করা হয়। কিন্তু হিতে বিপরীত; ডিসেম্বরে ভারতের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে সাপোজিটর নিয়ে খেলতে হয়েছে সোহানকে। এখন একটি আশা এবং প্রার্থনা নিয়ে আছেন যে অগ্নিপরীক্ষা শীঘ্রই শেষ হবে। আর না হলে বিকল্প ভাবনাও আছে সোহানের।

মাঠে ক্রিকেট খেলতে নেমে কোনো অজুহাত দিতে চান না রংপুরের অধিনায়ক। দরকার হলে বাকি ৯ আঙুল নিয়েও খেলতে প্রস্তুত তারকা উইকেটকিপার ব্যাটার সোহান,

‘আমি যেই পজিশনে ব্যাটিং করি সেখানে রান করাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যে আঙুলে সার্জারি হয়েছে সেটা নিয়ে ভুগছিলাম আমি। যেটাতে আমার ম্যাচের ওপরেও প্রভাব পড়ছিল। যেহেতু এটা পার্ট অব গেইম তাই এটা নিয়ে বেশি কিছু চিন্তা করতে চাই না। কোন অজুহাত দিব না, আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি এটা নিয়ে কোন কথা বলবো না। যে অবস্থা আছে সেই অবস্থাই মেনে নিতে হবে। যদি ৯ টা আঙুল থাকে তাহলে ৯ টা আঙুল নিয়েই খেলার চেষ্টা করব এটাই।’

উইকেটের পেছনে গেল কয়েক ম্যাচ ধরে নিজের চেনা ছন্দে নেই নুরুল হাসান সোহান। আঙুলের চোট নিয়ে এখনও ভুগছেন, নিজেও বুঝছেন শতভাগ ডেলিভারি দিতে পারছেন না। তবে উইকেটকিপিং নিয়ে প্ল্যান জানাতে গিয়ে সোহান বললেন, ভালো না হলে এভাবেই খেলতে চান।

‘শেষ কিছুদিন ধরে আঙুল নিয়ে সমস্যা হচ্ছিল। আমার কাছে যেটা মনে হয়েছে যে এগুলো নিয়ে আর চিন্তা করব না। কারণ এটা আমার হাতে নেই। আমার খেলতে গেলে এভাবেই খেলতে হবে। ওটাই আসলে চিন্তা করছিলাম যে ভালো কীভাবে করা যায়। শতভাগ আমি দিতে পারছিলাম না। তো আমি ভাবছিলাম এটা নিয়েই যদি ভাবি তাহলে আমার শতভাগ দিতে সমস্যা হবে। মাঠে যা হবে তা হবে, তবে আমার কাছে শতভাগ দেবার চেষ্টা করাটা গুরুত্বপূর্ণ।’

দাপুটে জয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করলেও নিজেদের নমনীয় করেই রাখছেন রাইডার্সের দলপতি সোহান। এবারের বিপিএলে তারা এগিয়ে যেতে চান বহুদূর।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে সোহান বললেন,

‘আলহামদুলিল্লাহ, শুরুটা ভালো হয়েছে, তবে এক্সাইটেড হবার কিছু নাই। কারণ আমাদের লং ওয়ে টু গো। সুতরাং যেকটা ম্যাচ আছে যেনো সেখানেও ভালো করতে পারি, সেটাই লক্ষ্য ইন শা আল্লাহ।’

শীতের ঘন কুয়াশার ফলে মিরপুর হোম অফ ক্রিকেটের ফ্লাডলাইটের আলোও হারায় উজ্জ্বলতা। ঢাকার এমন আবহাওয়াতে রাতের খেলায় কি প্ল্যান নিয়ে খেলেছে রংপুর। বিরুদ্ধ কন্ডিশনেও ভালো করায় অধিনায়ক সোহান কৃতিত্ব দিয়েছেন দুই ওপেনার ও বোলিং লাইনকে।

‘না, আসলে শুরুটা নাইম আর রনি ভাই যেভাবে করে দিয়েছে সেটা আমাদের জন্য সহজ করে দিয়েছে। তবে আপনি যদি দেখেন বোলাররা খুব ভালো কাজ করে দিয়েছে। কারণ, এই কুয়াশাতে এত সহজ ছিল না বোলিং করা। এবং মাঠে যে ওয়েদার ছিল বল দেখাও খুব কঠিন হচ্ছিল ফিল্ডারদের জন্য। ফিল্ডাররাও বলটা মেনটেইন করেছে। তো আসলে ক্রেডিট দিতে হয় বোলারদের।’

‘স্পিনাররাও ভালো করেছে। আমাদের রাজা (সিকান্দার রাজা), রকিবুল একটা ওভার করার সুযোগ পেয়েছে, সেখানে ভালো করেছে। মিরপুরে আমার মনে হয় লাইন লেংথ ঠিক করে বল করতে হত। আমাদের বোলাররা সেটা করতে পেরেছ।’

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

টাইগার্স নয়, টাইটান্সের হয়ে খেলতে বাংলাদেশে শারজিল খান!

Read Next

নাজাম শেঠির কথা ভিত্তিহীন বলছে এসিসি

Total
31
Share