রনি ঝড়ের পর হাসান-রাজাদের বোলিং তোপে রংপুরের সহজ জয়

রনি ঝড়ের পর হাসান-রাজাদের বোলিং তোপে রংপুরের সহজ জয়
Vinkmag ad

মিরপুর হোম অফ ক্রিকেট যেন ষোড়শী মন! ক্ষণে ক্ষণে রঙ বদলায়, রূপ বদলায়; চরিত্র বোঝা বড় দায়। উদ্বোধনী ম্যাচে লো-স্কোর, দ্বিতীয় ম্যাচে রান বন্যা। তবে সব কিছু ছাপিয়ে রংপুর রাইডার্সের ৩৪ রানের রোমাঞ্চকর জয়। রেকর্ড গড়ে ফিফটি হাঁকানো রনি তালুকদার হয়েছেন ম্যাচসেরা।

২০২৩ বিপিএলের দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে রংপুরকে আগে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের দলপতি ইমরুল কায়েস। দলের বোলাররা অধিনায়কের সিদ্ধান্ত সঠিক প্রমাণ করতে পারেনি। শুরু থেকেই মারমুখী রংপুরের ওপেনার রনি তালুকদার। ধীরগতির ইনিংসে মোহাম্মদ নাইম তাকে সঙ্গ দেওয়ার কাজটা করেন। আর তাতেই যেন রনির ব্যাট হয়ে উঠে আরও ধারাল! চার-ছয়ের বন্যা বইয়ে দেন মিরপুরে।

আশিকুরকে টানা তিন বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রনি তালুকদার ১৯ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন। আর তাতেই লেখা হয়ে যায় নতুন রেকর্ড; বিপিএলে বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে এটিই এখন দ্রুততম পঞ্চাশ। তখন স্কোরবোর্ডে রংপুরের সংগ্রহ ৫৯ রান, ৫.৩ ওভার। নাইম থাকেন ১৪ বলে ৭* নিয়ে।

পাওয়ার-প্লের প্রথম ৬ ওভারে রংপুর রাইডার্সের ৬৪/০। দলীয় ৮৪ রানে যেয়ে ভাঙে রংপুর রাইডার্সের ওপেনিং জুটি। পাক অলরাউন্ডার খুশদিল শাহ এসে তুলে নেন উড়তে থাকা রনি তালুকদারকে। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৩১ বলে ১১ চার ও ১ ছয়ে ৬৭ রান করেন রনি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by cricket97 (@cricket97bd)

এরপর শোয়েব মালিককে নিয়ে এগোতে থাকেন মোহাম্মদ নাইম। তবে ফজলহক ফারুকির লাফিয়ে উঠা বলে ওভার বাউন্ডারি হাঁকাতে যেয়ে ক্যাচ হন মোহাম্মদ নাইম। দলীয় ১১৫ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় রংপুর। সিকান্দার রাজাকে ভয়ংকর হয়ে উঠতে দেননি মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। ক্যাচ তুলে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ১০ বলে ১২ করেন রাজা।

তিনে নেমে দারুণ খেলতে থাকা শোয়েব মালিক অধিনায়ক সোহানের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে হয়েছেন রান আউটের শিকার। মালিকের ৩৩ রানের ইনিংসটি সাজানো ২৬ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায়। ইনিংস ও নিজের শেষ ওভারে এসে উইকেটের দেখা পান মুস্তাফিজুর রহমান। নিজের বলে ফিরতি ক্যাচ নিয়ে ফেরান বেনি হাওয়েলকে (৮)।

শেষপর্যন্ত ১১ বলে ১৯ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। ৫ উইকেটে রংপুর রাইডার্সের সংগ্রহ ১৭৬ রান।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় নেমে দুই ওপেনারের ব্যাটে কুমিল্লার দারুণ শুরু। তবে লিটন দাস ও সৈকত আলির ২৫ রানের জুটি ভেঙে রংপুরকে ব্রেকথ্রু এনে দেন রাকিবুল হাসান। ব্যক্তিগত ১০ রানে বিদায় নেন লিটন।

ইনিংসের প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান তিনে নামা ডেভিড মালান। রীতিমতো তান্ডব শুরু করা মালানকে সিকান্দার রাজা নিজের প্রথম ওভারেই ফিরিয়ে দেন। ৯ বলে ১৭ করা মালানকে ফেরাতে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নেন আফগান আজমতউল্লাহ ওমরজাই। রাজা তার পরের ওভারে স্টাম্প ভাঙেন ওপেনার সৈকত আলির (১৬)।

এরপর মোসাদ্দেক হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে অধিনায়ক ইমরুল কায়েসের লড়াই। তবে ৫৮ রানের এই জুটি শেষ হয় ইমরুলের বিদায়ে। আজমতউল্লাহ ওমরজাইয়ের বলে ক্যাচ তুলে ফেরার আগে ২৩ বলে ৩৫ রানের ইনিংস খেলেন অধিনায়ক ইমরুল। পরের ওভারে ফিরে যান মোসাদ্দেক। ২৫ বলে বাউন্ডারিবিহীন ১৫ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

এরপর মোহাম্মদ নবী ও খুশদিল শাহ ফিরে যান দ্রুত। নবী করেন ৫, হাসান মাহমুদের শিকার হওয়ার আগে খুশদিলের ব্যাট থেকে আসে কেবল ১। এই ওভারেই হাসান তুলে নেন মুস্তাফিজের উইকেট (১)। ১৯তম ওভারের শেষ বলে জাকের আলিকে বোল্ড করে রবিউল হকের ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর আইকনিক সেলিব্রেশন।

হাসান মাহমুদ শেষ ওভারের শুরুর বলে আশিকুরকে ফিরিয়ে দখলে নেন নিজের তৃতীয় উইকেট। ফলে ১৪২ রানে গুটিয়ে যায় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ৩৪ রানের জয়ে বিপিএল শুরু রংপুরের।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সরফরাজ বীরত্বে সিরিজ হার এড়াল পাকিস্তান

Read Next

রনিকে প্রশংসায় ভাসিয়ে টোটকা দিলেন কোচ সালাউদ্দিন

Total
1
Share