লো স্কোরিং ম্যাচে চট্টগ্রামকে হারি‍য়ে বিপিএল শুরু সিলেটের

featured photo updated v 5
Vinkmag ad

বিপিএলের ৯ম আসরের উদ্বোধনী ম্যাচেই ‘স্বরূপে’ ধরা দিয়েছে মিরপুর হোম অফ ক্রিকেট। ম্যাচ শুরুর আগে বেলুন উড়েছে, কিন্তু ম্যাচে চার-ছক্কার ঝড় উঠেনি। লো স্কোরিং ম্যাচে এসব ছাপিয়ে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে সিলেট স্ট্রাইকার্স পেয়েছে ৮ উইকেটের রোমাঞ্চকর জয়। দাপট দেখিয়ে ওপেনার শান্ত অপরাজিত থাকেন ৪৩ রানে। 

টি-টোয়েন্টি রানের খেলা, চার-ছক্কার খেলা। কিন্তু মিরপুরের পিচ যেন এই থিওরির পুরোপুরি বিপরীত। রাজা, আমিরদের তোপের সামনে পড়ে চট্টগ্রামের অসহায় আত্মসমর্পণ। ব্যাটারদের বাজে শটের মহড়া শেষে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ইনিংস থামে ৮৯ এ। তিন ব্যাটার ছাড়া কেউ পৌঁছাতে পারেননি দুই অংকের ঘরে।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ইনিংসের ২য় বলেই বাউন্ডারি হাঁকান সিলেটের ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে আরেক ওপেনার কলিন অ্যাকারম্যান ১ রান করতেই উইকেট হারান। তরুণ মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী নিজের দ্বিতীয় ওভারে অ্যাকারম্যানকে ক্যাচ বানান উইকেটের পেছনে।

দলীয় ১২ রানে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার পর উইকেটে আসেন জাকির হাসান। দারুণভাবে সঙ্গ দেন শান্তকে। দু’জনের দাপুটে ব্যাটিংয়ের সামনে কোনোপ্রকার পাত্তাই পায়নি সিলেটের বোলিং লাইন। তবে দলীয় ৭৫ রানে মালিন্দা পুষ্পাকুমার বলে লেগ বিফোর হয়ে সাজঘরে ফেরেন ২৭ রান করা জাকির।

মুশফিকুর রহিম উইকেটে এসে শুরুর বলেই হাঁকান বাউন্ডারি। এরপর শান্ত, মুশফিক দেখে শুনে ১২.৩ ওভারেই দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন। নাজমুল হোসেন শান্ত ৪১ বলে অপরাজিত থাকেন ৪৩ রানে। মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে ৮ রান। 

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ বেলা ২ টায় মাঠে গড়িয়েছে সিলেট স্ট্রাইকার্স ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মধ্যকার উদ্বোধনী খেলা। টসে জিতে আগে চট্টগ্রামকে ব্যাটিংয়ে পাঠান সিলেট স্ট্রাইকার্স দলপতি মাশরাফি বিন মর্তুজা।

রান আউটের ফাঁদে পড়ে মেহেদী মারুফ (১১) শুরুতেই হারান উইকেট। মোহাম্মদ আমির এসে তুলে নেন আফগান ব্যাটার দারউইশ রাসুলির উইকেট। ফেরার আগে ৯ বলে ৩ করেন রাসুলি। ২ উইকেট হারিয়ে ২১ রান নিয়ে প্রথম পাওয়ার প্লে শেষ করে চট্টগ্রাম।

তিনে নামা আল-আমিনের ব্যাট থেকে আসে ১৮ রান। অধিনায়ক শুভাগত হোম ১ রান করতেই উইকেট দিয়েছেন বিসর্জন। এরপর সামর্থ্যের সবটুকু নিংড়ে চেষ্টা করেন আফিফ হোসেন। তার ২৫ রানের ইনিংসটাই দলের পক্ষে সর্বোচ্চ।

আর কেউ দুই অংকের ঘরে ইনিংস নিয়ে যাওয়ার আগেই হারিয়েছেন উইকেট। ফলে ৯ উইকেটে ৮৯ রানে থেমে যায় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের উইকেট।

বল হাতে সিলেটের রেজাউর রহমান রাজা দেখিয়েছেন দাপট। তার বুদ্ধিদীপ্ত বোলিংয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে চট্টগ্রাম। মাত্র ১৪ রান খরচায় রাজা দখলে নেন ৪ উইকেট। এছাড়া পাক পেসার মোহাম্মদ আমির ৪ ওভারে ১ মেডেনসহ ৭ রান খরচায় দুই উইকেট শিকার করেন। অধিনায়ক মাশরাফির ঝুলিতে একটি উইকেট।

৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

বিপিএলে এক হাজারি ক্লাবে আফিফ

Read Next

সিডনি টেস্টে খেলছে বৃষ্টি, অপেক্ষা বাড়ল খাজার

Total
1
Share