সিলেট স্ট্রাইকার্সের জার্সি উন্মোচিত হল লন্ডনেও

সিলেট স্ট্রাইকার্সের জার্সি উন্মোচিত হল লন্ডনেও
Vinkmag ad

লন্ডনে জমকালো আয়োজনে উন্মোচন করা হলো বিপিএলে অংশ নেয়া সিলেট স্ট্রাইকার্সের জার্সি। সিলেটের দল, তাই জার্সিতে রাখা হয়েছে সিলেটের ছাপ। জার্সিতে রয়েছে চা বাগানের ছাপ, সিলেটের ম্যাপ আর সিলেটী নাগরী ভাষার মিশেল । সিলেটী নাগরী ভাষায় লেখা আছে আমরা সিলেটী।

১৬ নভেম্বর, বুধবার। পূর্ব লন্ডনের রিজেন্টস লেইক বেনকুইটিং হলে আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটেনের বাংলাদেশী কমিউনিটির গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

সিলেট স্ট্রাইকার্সের জার্সি উন্মোচন করেন চ্যানেল এস টেলিভিশন চেয়ারম্যান আহমেদুস সামাদ চৌধুরী জেপি, সিলেট স্ট্রাইকার্সের চেয়ারম্যান সারোয়ার গোলাম চৌধুরী , ডিরেক্টর জগলুল হুদা মিঠু ও সাইফুর রাজা চৌধুরী ।

বিশিষ্ট ক্রীড়ামোদী ড. জাকির খানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন চ্যানেল এস টেলিভিশন চেয়ারম্যান আহমেদুস সামাদ চৌধুরী জেপি, সিলেট স্ট্রাইকার্সের চেয়ারম্যান, আমেরিকা প্রবাসী ব্যবসায়ী সারোয়ার গোলাম চৌধুরী, আমেরিকা প্রবাসী ডিরেক্টর জগলুল হুদা মিঠু, লন্ডন প্রবাসী ডিরেক্টর সাইফুর রাজা চৌধুরী, বাংলাদেশ ক্রিকেট সাপোর্টারস এসোসিয়েশন ইউকের প্রেসিডেন্ট আবদুস সালাম, বার্মিংহাম থেকে আগত ব্যবসায়ী আব্দুল লতিফ জেপি, অক্সফোর্ড থেকে আগত ব্যবসায়ী এনাম হক, লন্ডনের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল মালিক, লন্ডন টাইগার্সের প্রধান নির্বাহী মেজবা আহমেদ। অনুষ্ঠান আয়োজনের সার্বিক তত্বাবধানে ছিলেন বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ সৈয়দ করিম সায়েম।

সিলেট স্ট্রাইকার্সের চেয়ারম্যান সারোয়ার গোলাম চৌধুরী বলেন, ‘আমরা চাই সিলেট স্ট্রাইকার্সের সাথে সকল প্রবাসী বাংলাদেশীরা একাত্ন হয়ে যাক, কারন এবারের বিপিএলে সিলেট স্ট্রাইকার্স দেশী ও প্রবাসী বাংলাদেশীদের অংশগ্রহনের টিম। মাশরাফি বিন মর্তুজা আমাদের আইকন প্লেয়ার, তিনি আসার পরে আমাদের টিম পুরোপুরি পজেটিভ মনোভাব নিয়ে আছে।’

ডিরেক্টর জগলুল হুদা মিঠু বলেন, ‘এবছর সিলেটের টিমে দেয়া বিদেশী প্লেয়ারদের সমন্বয়ে একটি ব্যালেন্সড টিম। আমরা চ্যাম্পিয়ন হবো এই বিশ্বাস তৈরি হয়েছে।’

ডিরেক্টর সাইফুর রাজা চৌধুরী বলেন, ‘এই প্রথম সিলেট টিম পুরোপুরি সিলেটের ইতিহাস, ঐতিহ্যের আবহ ধরে রেখে একটি পূর্ণাঙ্গ টিম নিয়ে এগুচ্ছে। বিগত দিনগুলো থেকে এবারকার টিম অনেক ভাল ফলাফল করবে ইন শা আল্লাহ।’

ব্রিটেনের ক্রীড়ামোদী ও ক্যানারী ওয়ার্ফ গ্রুপের ডিরেক্টর ড. জাকির খান বলেন, ‘প্রবাসীরা নানা উদ্যোগ নিয়ে দেশে যান। কেউ প্রপার্টি করার জন্য, কেউ অন্যান্য ইনভেষ্ট করার জন্য যান, কিন্তু এই প্রথম প্রবাসীদের কয়েকজন দেশে ক্রীড়ামোদী হিসাবে ইনভেস্ট করেছেন। এটা প্রশংসাযোগ্য।’

চ্যানেল এস টেলিভিশনের চেয়ারম্যা আহমেদুস সামাদ চৌধুরী বলেন, ‘এই অসাধারন উদ্যোগে কমিউনিটির সর্বোচ্চ সাপোর্ট দেয়া উচিত। স্পন্সর থেকে শুরু করে যে যেভাবে পারেন সহায়তা করা উচিত। এমনকি খেলার দিন টিভিতে বসে টিমের খেলা দেখাও একটি সাপোর্ট সেটিও করা উচিত সবার।’

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ২৮০-৩০০ রান চান মিরাজ

Read Next

এবারই প্রথম বিপিএল মাতাতে আসছেন খুশদিল

Total
6
Share