ভাইরাল শিট, পার স্কোর ও রিভাইজড টার্গেট নিয়ে বিভ্রান্তি

ভাইরাল শিট, পার স্কোর ও রিভাইজড টার্গেট নিয়ে বিভ্রান্তি
Vinkmag ad

২ নভেম্বর, ২০২২- অ্যাডিলেড ওভালে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশ ডাকওয়ার্থ লুইস স্টার্ন (ডিএলএস) পদ্ধতিতে হেরেছে ৫ রানে। বৃষ্টি বাগড়া দেবার আগে বড় লক্ষ্য (২০ ওভারে ১৮৫) ছুতে পথেই ছিল বাংলাদেশ। ৭ ওভারে তুলে ফেলেছিল ৬৬ রান।

তবে বৃষ্টি শেষে নতুন লক্ষ্যে (১৬ ওভারে ১৫১) খেলা শুরু হলে আর পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। এলোমেলো ব্যাটিংয়ে খেই হারিয়ে ৬ উইকেটে ১৪৫ করতে পারে সাকিব আল হাসানের দল।

বৃষ্টি যখন বাগড়া দিয়ে খেলা বন্ধ রাখে তখন নিম্নোক্ত পার স্কোর শিট ভাইরাল হয়।

এই পার স্কোর শিটের সমীকরণ দেখে অনেকেই হয়তো ভাবছেন বাংলাদেশের লক্ষ্য ১২২ না হয়ে ১৫১ হলো কেনো। সেই বিভ্রান্তি দূর করতেই এই প্রতিবেদন।

মেলিন্ডা ফারেলের টুইট করা শিটটি আসলে পার স্কোর শিট। পার স্কোর শিট আমলে আসে পরে ব্যাট করা দল ৫ ওভার বা তার বেশি ব্যাট করে ফেললে তারপর খেলা বন্ধ থাকলে। যেমন এই ভাইরাল শিটের দিকে দেখুন, কোন উইকেট না হারালে ৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের পার স্কোর ছিলো ৪৯। বাংলাদেশের তখন ছিলো ৬৬ রান, তাই আর খেলা না হলে পার স্কোর অনুযায়ী বাংলাদেশ ১৭ রানে এগিয়ে থেকে জিততো।

তবে খেলা পুনরায় শুরু হলে আর পার স্কোর আমলে আসে না (যদি না আবার এক খেলা বন্ধ না হয়)। খেলা পুনরায় শুরু হলে দেওয়া হয় পরিবর্তিত লক্ষ্য, যা নির্দিষ্ট নিয়মে হয়ে থাকে।

পরিবর্তিত লক্ষ্য হিসাব করার ক্ষেত্রে দুই ফ্যাক্টর ‘কত ওভার বাকি আছে’ আর ‘কত উইকেট গেছে’ আমলে এনে শতাংশ হিসাব করা হয় যা আসে কম্পিউটার প্রোগ্রামে হিসাব করে।

আপনি চাইলে পার স্কোরের শিট দিয়েও হিসাব করে ফেলতে পারেন পরিবর্তিত লক্ষ্য। বৃষ্টি বাগড়ায় যে সময় নষ্ট হয় তাতে করে ৪ ওভার কম খেলতে হতো বাংলাদেশ দলকে।

সেক্ষেরে ১৬ ওভারে বাংলাদেশের লক্ষ্য কত নির্ধারিত হবে তা এই শিট দিয়ে আপনিও হিসাব করতে পারবেন। চলুন হিসাবে বসি।

Image

বাংলাদেশ খেলে ফেলেছিল ৭ ওভার, আর ম্যাচের দৈর্ঘ্য কমেছিল ৪ ওভার। সেক্ষেত্রে ৮-১১ ওভারের হিসাব বাদ দিতে হবে। ১১ ওভারে পার স্কোর (কোন উইকেট না হারিয়ে হিসাব করে) ৮৩, ৭ ওভারে যেটি ছিল ৪৯। যেহেতু এই চার ওভার কমেছে, এই চার ওভারের পার স্কোরের ব্যবধান (৮৩-৪৯)= ৩৪ মূল লক্ষ্য (১৮৫) থেকে কমানো হয়। ১৮৫-৩৪= ১৫১ হয় নতুন লক্ষ্য।

তেমনিভাবে ৫ ওভার কমলে বাংলাদেশের লক্ষ্য হতো ১৮৫-(৯২-৪৯)= ১৪২। ১০ ওভার কমলে বাংলাদেশের লক্ষ্য হতো ১৮৫- (১৪৫-৪৯)= ৮৯।

যতো ওভার কমতো, বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য ততো সহজতর হতো। তবে বিশ্বমানের অ্যাডিলেড ওভালের ড্রেনেজ সিস্টেম, সেকারণে খুব বেশি ওভার নষ্ট হয়নি।

Shihab Ahsan Khan

Shihab Ahsan Khan, Editorial Writer- Cricket97

Read Previous

পাকিস্তানের বিশ্বকাপ দলে হারিস

Read Next

লিটনকে ব্যাট উপহার দিলেন ভিরাট কোহলি

Total
10
Share