ধ্বংসস্তূপ থেকে ঘুরে দাঁড়ানো লঙ্কানদের সাফল্যকথা

Screenshot 20221013 193211 Gallery
Vinkmag ad

মানুষ আনন্দে হাসে, আনন্দে কাঁদে। তবে আনন্দে কাঁদার মহাত্ম নিশ্চিতভাবে ছাপিয়ে যায় সবকিছুকে, বুঝিয়ে দেয় কতটা বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়ে এসেছে সে আনন্দক্ষণ। ১৪ বছর পর নারী এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। সহজে নয় পাকিস্তানকে হারাতে অপেক্ষা করতে হয়েছে শেষ বল পর্যন্ত। শেষ ওভারে নাটকীয়তা, নখ কামড়ানো উত্তেজনা আর স্নায়ু চাপ এক পাশে রেখে ১ রানের সেই কাঙ্খিত জয়।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সবুজ গালিচায় বিজয়োৎসবে মেতেছে লঙ্কান নারীরা, সতীর্থদের বুকে জড়িয়ে শেষ বিকেলে আবেগঘন এক মুহূর্তের জন্ম দিল অধিনায়ক চামারি আত্তাপাতু। পশ্চিম আকাশে সূর্য তখন ডোবার অপেক্ষায়, অন্যদিকে এমন জয়ে লঙ্কান ক্রিকেট যেন নতুন সূর্য উদয়ের পথে আরেক ধাপ এগোলো।

রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংকটে গত এক বছর পুরো শ্রীলঙ্কাই যখন সংগ্রাম করছিল তখন ক্রিকেট তো বিলাসিতার কাতারেই পড়ে। অথচ এই মুহূর্তে লঙ্কানদের কাছে ক্রিকেটই দুঃখ ভোলানোর পরশ পাথর। মাস খানেক আগেই যে লঙ্কানদের পুরুষ দল জিতেছে এশিয়া কাপ শিরোপা। ভারত, পাকিস্তানকে বাদ দিয়ে যাদের ফেভারিটের কাতারে রাখেনি কেউই। অন্তত সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স ছিল অনেকটা গড়পড়তা।

এই সাফল্য উদযাপনের রেশ কাটতে না কাটতে নারী দল উঠে গেলো ফাইনালে। আগামী ১৫ অক্টোবর বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায় ভারতের মুখোমুখি হবে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের মিশনে। তার আগে পাকিস্তানকে হারিয়ে সংবাদ সম্মেলনে উচ্ছ্বসিত কণ্ঠে, চোখে মুখে আননদের ঝিলিকে এক যুগের বেশি সময় পর এশিয়া কাপ ফাইনাল খেলার অনুভূতি জানালেন অধিনায়ক চামারি।

তার ভাষায়,

‘১৪ বছর পর আমরা এশিয়া কাপের ফাইনালে। এটা দল হিসেবে, জাতি হিসেবে আমাদের জন্য অনেক ভালো লাগার ব্যাপার। আমরা সত্যি দারুণ রোমাঞ্চিত আজ। আর আমি আমার দলের পারফরম্যান্সে সত্যি খুব খুশি। প্রত্যকে খেলোয়াড় ভালো খেলছে।’

‘গত এক বছর আমাদের পুরুষ দল, নারী দল এবং পুরো দেশটাই একটা সংগ্রামের মধ্য দিয়ে গেছি। এখন খুশি লাগছে যে পুরুষ দল এশিয়া কাপ জিতেছে, আমরাও ফাইনালে উঠেছি আর সেরাটা দেওয়ার অপেক্ষায় আছি।’

২০০৮ সালে সর্বশেষ এশিয়া কাপ ফাইনাল খেলে লঙ্কান নারী দল। ২০০৪ সালে যাত্রা করা নারী এশিয়া কাপের প্রথম চার আসরেই ফাইনাল খেলে তারা। তবে প্রতিবারই মুখোমুখি হয় ভারতের, ফলাফল একই, ভারত চ্যাম্পিয়ন। এবার লম্বা বিরতি দিয়ে ফাইনালে উঠেও ভারতকেই পেল চামারি আত্তাপাতুর দল।

এশিয়া কাপের ৭ আসরে ৬ বারই চ্যাম্পিয়ন ভারত। এবার সহ সব আসরেই ফাইনালে উঠেছে তারা। একমাত্র ফাইনাল হার ২০১৮ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে। এমনিতে র‍্যাংকিং কিংবা পারফরম্যান্স বিবেচনায় এশিয়া কাপের অন্য দলের চেয়ে তাদের অবস্থান বেশ উপরে। সম্প্রতি ইংল্যান্ডের মাটিতে ইংল্যান্ডকে হারিয়েই এশিয়া কাপে এসেছে তারা।

ভারতকে নিয়ে নিজের ভাবনা জানালেন চামারি,

‘ভারত অনেক বড় দল। ইংল্যান্ডে তারা অনেক ভালো ক্রিকেট খেলেছে। তাদের কাছে হারের পর আমরা অনেক কিছু শিখেছি। আমরা জানি তারা র‍্যাংকিংয়ে উপরের সারির দল। কিন্তু আমরা যদি নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারি তবে জেতা সম্ভব। আমরা স্লে তাদের র‍্যাংকিং বা তাদের কতজন তারকা প্লেয়ার আছে সেটা নিয়ে ভাবছি না,কেবল নিজেদের পরিকল্পনাতে আছি।’

তবে ভারতের জন্য কোনো বার্তা দিতে চান না লঙ্কান দলপতি, থাকতে চান নিজেদের পরিকল্পনায়।

তার ভাষায়, ‘না ভারতের জন্য কোনো বার্তা নেই (হাসি)। আমরা শুধু আমাদের পরিকল্পনায় এগোতে চাই। আমরা জানি তারা অন্যতম সেরা দল, আমরা শুধু চাই ফাইনালে সের খেলাটা খেলতে।’

সিলেট থেকে ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

এবার মেয়েদের স্কুল ক্রিকেট শুরু করতে যাচ্ছে বিসিবি

Read Next

লঙ্কানদের ঘুরে দাঁড়ানো মঞ্চে আবেগী পাকিস্তান

Total
2
Share