বাংলাদেশই হল ‘বাংলা ওয়াশ’

featured photo updated v 7
Vinkmag ad

ত্রিদেশীয় সিরিজের টাইটেল স্পনসর ‘বাংলা ওয়াশ’। এই বাংলা ওয়াশই এবার সিরিজ শেষে বাংলাদেশ দলের সঙ্গী। চার ম্যাচের চারটিতেই হারলো টাইগাররা। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিজেদের শেষ ম্যাচে সাইফউদ্দিন একাই খরচ করেন ৫৩ রান। আর তাতেই নিশ্চিত হয়ে গেল ৭ উইকেটের হার।

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লিটন-সাকিবের জোড়া ফিফটিতে বাংলাদেশ পায় ১৭৩ রানের বড় সংগ্রহ। তবে ১ বল বাকি থাকতে পাকিস্তান পেয়েছে ৭ উইকেটের বড় জয়। বাবর-রিজওয়ানের জোড়া ফিফটির পর ২০ বলে ৪৫ রানের ক্যামিও ইনিংসে অপরাজিত নওয়াজ।

১৭৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শুরুর দশ ওভার স্বাচ্ছন্দ্যে খেলেন বাবর-রিজওয়ান। তাসকিন, শরিফুলরা কোন সুযোগই তৈরি করতে পারেননি। বাবর চলে যান ফিফটির পথে।

ইনিংসের ১১তম ওভারে শরিফুলের বলে রিজওয়ানের সহজ ক্যাচ নিতে পারেননি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ‘জীবন’ দেওয়ার সঙ্গে পরের ওভারে এসে সাইফউদ্দিন খরচ করেন ১৯ রান। সাইফের হাতেই একপ্রকার ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ।

নতুন স্পেলে বল হাতে হাসান মাহমুদ এসেই করলেন বাজিমাত। ২ রান খরচায় তুলে নেন ২ উইকেট। ফিফটি হাঁকানো বাবর আজমকে (৫৫) ফিরিয়ে ভাঙেন ১০১ রানের উদ্বোধনী জুটি। এক বল পরেই ভাঙেন হায়দার আলির স্টাম্প (০)।

৪২ বলে ফিফটি হাঁকান মোহাম্মদ রিজওয়ান। বিপরীতে মোহাম্মদ নওয়াজ ব্যাটে তুললেন তান্ডব। চার-ছক্কায় ভাসিয়ে সাকিবের তৃতীয় ওভার থেকে তুলে নেন ১৭ রান।

ম্যাচের ১৯তম ওভারে বোলিংয়ে আনা হয় সৌম্য সরকারকে। এসেই বিদায় করেন ৬৯ রানে থাকা রিজওয়ানকে। ওভারে মাত্র ৬ রান খরচ করেন সৌম্য দখলে নেন উইকেট। ফেরার আগে ৫৬ বলের ইনিংসে রিজওয়ান দলকে দেখিয়ে আসেন জয়ের পথ। বাকি কাজটা শেষ করেন মোহাম্মদ নওয়াজ।

এর আগে ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন সাকিব আল হাসান। নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে এদিন ওপেন করতে নামেন সৌম্য সরকার। ২.১ ওভার স্থায়ী জুটিতে আসে মাত্র ৭ রান। ৪ বলে ৪ রান করে নাসিম শাহর বলে শাদাব খানকে ক্যাচ দেন সৌম্য। ৯ম বলে রানের খাতা খুলতে পারা নাজমুল হোসেন শান্ত শেষমেশ থামেন ১৫ বলে ১২ রান করে।

৪১ রানে ২ উইকেট হারানোর পর ৮৮ রানের জুটি গড়েন তিনে নামা লিটন দাস ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। শান মাসুদের কাছ থেকে নতুন জীবন পেয়ে লিটন দাস খেলেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। মোহাম্মদ নওয়াজের বলে ওয়াসিমকে ক্যাচ দেবার আগে ৪২ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ে ৬৯ রান করেন তিনি। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এটি তার ৭ম ফিফটি।

ক্যারিয়ারের ১২ তম ফিফটির দেখা পান সাকিব আল হাসান। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৭০ রানের ইনিংস খেলার পর এদিন খেলেন ৬৮ রানের ইনিংস। ৪২ বলে ৭ টি চারের সাথে হাঁকান ৩ টি ছক্কা।

শেষদিকে আফিফ হোসেন ধ্রুব (১০ বলে ১১), ইয়াসির আলি রাব্বি (২ বলে ১), নুরুল হাসান সোহান (৪ বলে ২) রানের গতি বাড়াতে পারে নি। শেষ ওভারে আসে মাত্র ৩ রান! ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৭৩ রানে থামতে হয় বাংলাদেশকে। যা এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। তবে হতাশায় পুড়েছে শেষ ওভারের ব্যাটিং, আসে মাত্র ৩ রান!

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ১৭৩/৬ (২০ ওভার) শান্ত ১২, সৌম্য ৪, লিটন ৬৯, সাকিব ৬৮, আফিফ ১১, ইয়াসির ১, সোহান ২*, সাইফউদ্দিন ১*; নাসিম ২/২৭, ওয়াসিম ২/৩৩, নওয়াজ ১/৩৭

পাকিস্তান: ১৭৭/৩ (১৯.৫ ওভার) রিজওয়ান ৬৯, বাবর ৫৫, হায়দার ০, নওয়াজ ৪৫*, আসিফ ২*; হাসান ২/২৭, সৌম্য ১/৬

ফলাফল: পাকিস্তান ৭ উইকেটে জয়ী

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

লিটন-সাকিবের জোড়া ফিফটিতে বাংলাদেশের বড় সংগ্রহ

Read Next

থাইল্যান্ডকে বাস্তবতা দেখিয়ে ফাইনালে ভারত

Total
1
Share