নাসিরদের ব্যর্থতায় রংপুরের ইনিংস পরাজয়; চট্টগ্রামে হাসান মুরাদের পাঁচ উইকেট

হাসান মুরাদের '৬', ইনিংস ব্যবধানে জিতল সেন্ট্রাল জোন
Vinkmag ad

২৪তম জাতীয় ক্রিকেট লিগে মিরপুরে শুরুর ম্যাচেই দাপট দেখিয়েছেন পেসাররা। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট পাওয়া ঢাকা বিভাগের পেসার সুমন খান দ্বিতীয় ইনিংসে দখলে নেন আরও চার উইকেট। ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ করলেন নাসির হোসেন। রংপুরের বিপক্ষে ঢাকা পেয়েছে ইনিংস ব্যবধানের জয়। হাসান মুরাদ পাঁচ উইকেট শিকারের পরও চট্টগ্রামে বড় লিডের পথে সিলেট বিভাগ। কিন্তু সেঞ্চুরি মিসের আক্ষেপ জাকির হাসানের।

২৪তম জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) শুরুর ম্যাচে মিরপুরে পেসারদের বাজিমাত। সুমন খানের পেস আগুনে পুড়েছে রংপুর বিভাগ। প্রথম ইনিংসে ২৫ রান খরচায় ৫ উইকেট তুলে নেওয়া ঢাকার সুমন খান দ্বিতীয় ইনিংসেও বল হাতে দেখিয়েছেন দাপট। মাত্র ১৬ রান খরচায় তার ঝুলিতে আরও ৪ উইকেট।

রংপুরের নাসির হোসেন প্রথম ইনিংসে কাটা পড়েন কেবল ১ রানেই। দ্বিতীয় ইনিংসেও হাসেনি নাসিরের ব্যাট; এদিন পাননি ৫ রানের বেশি।

টায়ার ওয়ানের ম্যাচে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে খেলতে নেমে শুরুর দিনেই ৯২ রানে গুটিয়ে যায় রংপুরের প্রথম ইনিংস। জবাব দিতে নেমে নাদিফ চৌধুরীর ৯০ ও অধিনায়ক তাইবুর রহমানের ৪২ রানের ইনিংসে ঢাকা বিভাগ প্রথম ইনিংসে তুলে ২১০ রান।

১১৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ফের ভরাডুবি রংপুরের। খেলতে পারে কেবল ২৬.১ ওভার। ইনিংস সমাপ্ত ৫৬ রানে। ওপেনার মাইশুকুর রহমানের ১২ রান ছাড়া আর কেউ পৌঁছাতে পারেননি দুই অংকের ঘরে। সুমন খান আর সালাউদ্দিন সাকিলের পেস তোপে রীতিমতো দিশেহারা হয়ে যায় রংপুর। ফলে ঢাকা বিভাগ পেয়েছে ইনিংস ও ৬২ রানের বড় জয়।

এই স্তরের আরেক ম্যাচে চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে স্বাগতিকদের বিপক্ষে বড় লিডের পথে সিলেট বিভাগ। প্রথম ইনিংসে নিয়মিত উইকেট হারিয়ে অল্পতে গুটিয়ে যায় চট্টগ্রাম।

চট্টগ্রাম বিভাগের করা ১৪১ রানের জবাব দিতে নেমে বিনা উইকেটে ১৫ রান তুলে দিন শেষ করেছিল সিলেটের দুই ওপেনার তৌফিক খান তুষার (১১) ও ইমতিয়াজ হোসেন (৪)। চট্টগ্রামের থেকে ১২৬ রানে পিছিয়ে থেকে আজ ব্যাটিংয়ে নামে সিলেট। ইমতিয়াজ দিনের শুরুতে বিদায় নিলেও ফিফটি হাঁকিয়েছেন তৌফিক।

ফিফটি হাঁকানো তৌফিক খান অবশ্য আউট হন ব্যক্তিগত ৬৮ রানে। তিনে নামা অমিত হাসানের দারুণ ব্যাটিং প্রদর্শন। ২০৫ বলে খেলা ৭৯ রানের ইনিংস থামিয়ে দেন হাসান মুরাদ। অধিনায়ক জাকির হাসানও ছিলেন সেঞ্চুরির পথে। তবে তাকেও আটকে দেন হাসান মুরাদ। ৮৭ রানের ইনিংস খেলে প্যাভিলিয়নে যান জাকির হাসান।

এদিন চট্টগ্রামের পাওয়া ৭ উইকেটের মধ্যে পাঁচটিই তুলে নেন হাসান মুরাদ।

সিলেট বিভাগ ৩০৩ রান তুলে শেষ করেছে দ্বিতীয় দিন। লিড ১৬২ রানের; হাতে বাকি আরও তিন উইকেট।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ইংল্যান্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তি ঘোষণা, ঠাই পেল ৩০ জন

Read Next

সাকিবেই সমাধান খুঁজে নিচ্ছেন শ্রীরাম

Total
8
Share