পাকিস্তানের পর ভারতের কাছেও হারলো বাংলাদেশ

ভারত বাংলাদেশ নারী 2
Vinkmag ad

আগের ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে হারের পরও বেশ সহজাত ছিল ভারতীয় দলের পরিবেশ। প্রথম তিন ম্যাচে জয়ের পর অমন হারে বাংলাদেশের বিপক্ষে বেশ শক্তভাবে ফিরবে দল এমনটাই ধারণা করা হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত হয়েছেও তাই-ই, নূন্যতম লড়াইটুকুও করতে পারেনি টাইগ্রেসরা। বড় সংগ্রহের আভাস দিয়েও মাঝপথে বাংলাদেশের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ১৫৯ রানে থামে ভারত। অবশ্য এই রানই পাহাড়সম হয়ে ধরা দেয় নিগার সুলতানা জ্যোতিদের জন্য, হেরেছে ৫৯ রানের বড় ব্যবধানে।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৫৯ রানের সংগ্রহ ভারতের। ফিফটি হাঁকিয়েছেন ওপেনার শেফালি ভার্মা (৫৫)। তবে অল্পের জন্য মিস করেছেন রানে ফেরা স্মৃতি মান্ধানা (৪৭)। শেষদিকে ক্যামিও ইনিংস জেমাইমাহ রদ্রিগেজের (৩৫)। জবাবে ১০০ রানেই আটকে যায় টাইগ্রেসরা।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে কিছুটা ধীরে হলেও ইতিবাচক শুরু পায় বাংলাদেশ। দুই ওপেনার ফারজানা হক পিংকি ও মুর্শিদা খাতুন পাওয়ার প্লেরে তোলেন ৩০ রান।

উইকেট টিকিয়ে রাখলেও লক্ষ্য তাড়ার সমীকরণে কিছুটা ধীরেই এগিয়েছিল টাইগ্রেসরা। ৯.১ ওভার স্থায়ী জুটিতে আসে ৪৫ রান। ১০ম ওভারের প্রথম বলে স্নেহ রানার বলের মুর্শিদা ফেরেন ২৫ বলে ২১ রান করে।

এরপর অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতিকে নিয়ে ২৩ রানের বেশি যোগ করতে পারেননি পিংকি। ১৪তম ওভারে ফিরেছে ৪০ বলে ৩০ রান করে। পরের ওভারে রান আউটে কাঁটা পড়েন রুমানা আহমেদ (০)। ৬৯ রানে ৩ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। জয়ের জন্য শেষ ৫ ওভারে প্রয়োজন পড়ে ৯০।

এই কঠিন সমীকরণ আর মেলাতে পারেনি টাইগ্রেসরা। দলপতি জ্যোতির ২৯ বলে ৩৬ রান কেবল হারের ব্যবধানই কমিয়েছে। শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেটে ১০০ রানেই থামতে হল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের।

ভারতীয়দের হয়ে সর্বোচ্চ দুইটি করে উইকেট দীপ্তি শর্মা ও শেফালি ভার্মার।

ভারতীয় ব্যাটাররা শুরু থেকেই চড়াও বাংলাদেশের বোলারদের উপর। আগের ম্যাচগুলোতে নিজের ছায়া হয়ে থাকা স্মৃতি, শেফালি যেনো টাইগ্রেসদের বিপক্ষে সব ঝাল মেটাতে চেয়েছেন। এই দুই ওপেনার ১২ ওভার ক্রিজে টিকে যোগ করেন ৯৬ রান।

শুরুর ঝড়টা অবশ্য শেফালির, ইনিংসের চতুর্থ ওভারে আগের ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা ফারিহা তৃষ্ণাকে এক ছক্কার সাথে হাঁকান দুই চার। ৬ষ্ঠ ওভারে স্পিনার নাহিদা আক্তারকে স্মৃতি হাঁকান টানা তিন চার, শেষ বলে শেফালির ব্যাটে এক চার। আর এতে পাওয়ার প্লেতে বিনা উইকেটে ৫৯ রান ভারতের স্কোরবোর্ডে।

এরপর যত সময় গড়িয়েছে ততই শটের ফুলঝুরি ছড়িয়েছেন দুজনে। ১০ ওভারে ভারতের স্কোরবোর্ডে রান ৯১!

তবে জুটি শতরান ছোঁয়ার আগেই ফিরেছেন স্মৃতি। রান আউটে যখন কাটা পড়েন তখন দলীয় রান ১২ ওভারে ৯৬। স্মৃতির নামের পাশে ৩৮ বলে ৬ চারে ৪৭ রান।

মান্ধানা ফিফটি না পেলেও ১৪তম ওভারে সিঙ্গেল নিয়ে ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটি তুলে নেন শেফালি। ততক্ষণে অবশ্য রানের গতি কমে আসে। পরের ওভারেই অবশ্য শেফালিকে বোল্ড করেন রুমানা আহমেদ। থেমেছেন ৪৪ বলে ৫৫ রান করে।

১৫ ওভার শেষে স্কোরবোর্ড ২ উইকেটে ১১৪।

১৭তম ওভারে রুমানা আহমেদের করা তৃতীয় বলে ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যান রিচা ঘোষ (৭ বলে ৪)। তবে এক বলের ব্যবধানেই ফিরতে হয় তাকে। পরের বলে রুমানার শিকার কিরান নাভঘিরে (০)। ফলে ৫ উইকেটে ১২৫ রানে পরিণত হয় ভারত।

শেষদিকে জেমাইমাহ রোদ্রিগেজের ২৪ বলে ৩৫ রানের ক্যামিওতে ভারত পেয়েছে ৫ উইকেটে ১৫৯ রানের পুঁজি। ৩ ওভারে ২৭ রান খরচায় বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেটে রুমানার।

সিলেট থেকে ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

‘আমি টার্গেট করি না, যখন যেটা আসে ভালো করার চেষ্টা করি’

Read Next

গান শোনাতে সংবাদ সম্মেলনে গিটার চাইলেন জেমিমাহ

Total
8
Share