ইয়াসিরের ক্যামিওর পরও হারল বাংলাদেশ

পাকিস্তান বাংলাদেশ 1
Vinkmag ad

পাকিস্তানের কাছে ২১ রানে হেরে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু সাকিববিহীন বাংলাদেশের। মোহাম্মদ রিজওয়ানের হার-না-মানা ৭৮ রানের ইনিংসে পাকিস্তান ৫ উইকেট হারিয়ে জমা করে ১৬৭ রান। লক্ষ্য তাড়ায় নেমে লিটন দাসের ৩৫ রান, শেষদিকে ইয়াসিরের ক্যামিও ছাড়া কেউ খেলতে পারেননি বলার মতো ইনিংস।

শেষ ওভারে হারিস রউফকে চার-ছয়ের বন্যায় ভাসিয়ে ইয়াসির আলি তুলেন ২০ রান। তবুও ২১ রানে হারতে হল বাংলাদেশকে। ইয়াসির রাব্বির ২১ বলে খেলা ৪২ রানের অপরাজিত ইনিংস বাংলাদেশকে কমিয়েছে শুধু হারের ব্যবধান।

১৬৮ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে শাহনওয়াজ দাহানির করা প্রথম ওভারে ২ রান তুলে বাংলাদেশ। মোহাম্মদ ওয়াসিম পরপর দুই ওয়াইড দিয়ে শুরু করেন দ্বিতীয় ওভার। ৯ বলের ওভারে ওয়াসিম খরচ করেন ৯ রান।

হারিস রউফকে আগের ওভারে ছক্কা হাঁকিয়ে মিরাজ ওয়াসিমের করা পরের ওভারে ডিপ স্কয়ার লেগে ধরা পড়েন ক্যাচে। ফেরার আগে ১১ বলে করেন ১০ রান। তিন নম্বরে উইকেটে এসেই ব্যাট হাতে দাপট দেখান লিটন দাস।

ফের ব্যর্থ ওপেনার সাব্বির রহমান। হারিস রউফের বলে তুলে দেন ফিরতি ক্যাচ। ১৮ বল খেলে ১ চারের সাহায্যে করেন ১৪ রান। পাওয়ার-প্লের ৬ ওভারে স্কোরবোর্ডে ৩৮ রান তুলতেই বাংলাদেশের নেই দুই ওপেনার। এরপর লিটন-আফিফ জুটিতে স্বস্তি ফেরে টাইগার শিবিরে। শাদাব খানের প্রথম ওভারে এই দুই ব্যাটার তুলে নেন ১৩ রান।

তবে ফিফটি রানের পার্টনারশিপ ভাঙে লিটনের বিদায়ে। দুর্দান্ত খেলতে থাকা লিটন মোহাম্মদ নওয়াজকে ছয় হাঁকাতে যেয়ে বাউন্ডারি লাইনে হন ক্যাচ আউট। প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ২৬ বলে ৩৫ রান করেন এই ব্যাটার। গোল্ডেন ডাক হয়ে ফেরেন মোসাদ্দেক হোসেন। দলীয় ৮৭ রানেই চতুর্থ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

২৩ বলে ২৫ রানে থাকা আফিফ হোসেনকে বিদায় করেন দাহানি। ইনিংস বড় করতে পারেননি অধিনায়ক সোহান। ৯ বলে তার ব্যাট থেকে আসে ৮ রান। এরপর ইয়াসির আলিকে সঙ্গ দিতে আসেন তাসকিন আহমেদ।

শেষ দুই ওভারে ৪৯ রানের সমীকরণ। যা বাংলাদেশের জন্য প্রায় অসম্ভব। ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই তাসকিনকে (২) লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন ওয়াসিম। গোল্ডেন ডাক হয়ে ফেরেন নাসুম। ওয়াসিম দখলে নেন তৃতীয় উইকেট।

শেষপর্যন্ত ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৬ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। 

এর আগে ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে টস জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ভ্রমণ ক্লান্তির কারণে বিশ্রামে। বল হাতে নেমেই তাসকিন আহমেদ করলেন দাপুটে শুরু। প্রথম ওভারে খরচ করেন কেবল ১ রান।

পরের ওভারে মুস্তাফিজকে দুই বাউন্ডারি হাঁকিয়ে বাবর আজম তুলে নেন ১০ রান। নাসুম আহমেদের করা ইনিংসের ৪র্থ ওভারের পঞ্চম বলে রান-আউটের চান্স মিস করেন সাব্বির রহমান। প্রথম পাওয়ার-প্লেতে চার বোলার এনেও সাফল্য পায়নি বাংলাদেশ। ৬ ওভার শেষে বাবর-রিজওয়ান জুটি স্কোরবোর্ডে জমা করে ৪৩ রান।

এদিন রুদ্রমূর্তি ধারণ করেন বাবর ও রিজওয়ান। টাইগার বোলারদের করে দেন দিশেহারা। কোনও লাইন বা লেন্থে বল করলে আটকানো যাবে এই দুই ওপেনারকে, তা যেন কিছুতেই খুঁজে পাচ্ছিল না মুস্তাফিজরা।

তবে মেহেদী হাসান মিরাজ বোলিংয়ে আসতেই বাংলাদেশ পায় ব্রেকথ্রু। নিজের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই মিরাজ বাবরকে ফেলেন ফাঁদে। ব্যক্তিগত ২২ রানে পাক অধিনায়ক মুস্তাফিজের হাতে সহজ ক্যাচ তুলে ফেরেন সাজঘরে। ভাঙে ৫২ রানের উদ্বোধনী জুটি।

তিনে নামা শান মাসুদ ধীরগতির শুরু করলেও একপর্যায়ে মারমুখী রূপ নেন। রিজওয়ানের সঙ্গে জুটি গড়ে এগোতে থাকেন। তবে নাসুমকে মারতে যেয়ে হাসান মাহমুদের হাতে ক্যাচ তুলেন শান। ফেরার আগে ২২ বলে করেন ৩১ রান।

তাসকিনের বলে বাউন্ডারি লাইনে লাফিয়ে ওঠে ইয়াসির আলির দুর্দান্ত ক্যাচ। ৬ বলে ৬ করে বিদায় নেন হায়দার আলি। এরপর ৩৮ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন ওপেনার রিজওয়ান। এরপর রিজওয়ানের ব্যাটে বাড়ে ঝড়ের গতি।

মুস্তাফিজের তৃতীয় ওভারে রিজওয়ান-ইফতিখার মিলে তুলে নেন ১৬ রান। পরের ওভারেই হাসান মাহমুদ তুলে নেন ইফতিখার আহমেদের উইকেট। আফিফের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৮ বলে ১৩।

নিজের শেষ ওভার করতে এসে তাসকিন দখলে নেন দ্বিতীয় উইকেট। আসিফ আলি তাসকিনের বলে ফিরতি ক্যাচ দেন ব্যক্তিগত ৪ রানে।

বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে ২৫ রান খরচায় ২ উইকেট তুলে নেন তাসকিন আহমেদ। ৪ ওভারে ৪৮ রান খরচায় উইকেটশূন্য থাকেন মুস্তাফিজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান: ১৬৭/৫ (২০ ওভার) বাবর ২২, রিজওয়ান ৭৮*, শান ৩১, হায়দার ৬, ইফতিখার ১৩, আসিফ ৪, নওয়াজ ৮*; তাসকিন ২/২৫, মিরাজ ১/১২, নাসুম ১/২২, হাসান ১/৪২

বাংলাদেশ: ১৪৬/৮ সাব্বির ১৪, মিরাজ ১০, লিটন ৩৫, আফিফ ২৫, মোসাদ্দেক ০, সোহান ৮, ইয়াসির ৪২*, তাসকিন ২, নাসুম ০, হাসান ২*; ওয়াসিম ৩/২৪, হারিস ১/৩৮, নওয়াজ ২/২৫, শাদাব ১/৩০, দাহানি ১/২৪

ফলাফল: পাকিস্তান ২১ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: মোহাম্মদ রিজওয়ান (পাকিস্তান)।

৯৭ ডেস্ক

Read Previous

ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষ ড্যারিল মিচেলের

Read Next

‘ভারত, পাকিস্তানকে পেলে বাংলাদেশের এনার্জি লেভেল ৯০-১০০ হয়ে যায়’

Total
8
Share