সকালে বিপর্যস্ত হওয়া বাংলাদেশ দুপুরে ঘুরে দাঁড়াতে চায়

shanjia meghla
Vinkmag ad

পাকিস্তানের বিপক্ষে ৯ উইকেটের হার। আগে ব্যাট করে ৭০ রানে গুটিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ আগামীকাল (৬ অক্টোবর) মাঠে নামবে মালেশিয়ার বিপক্ষে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যচ শুরু হয়েছিল সকাল ৯ টায়, উইকেট নিয়ে দারুণ বিরক্ত কোচ মাহমুদ ইমন। তবে বাঁহাতি স্পিনার সানজিদা আক্তার মেঘলার বিশ্বাস নারী এশিয়া কাপের আগামীকালকের ম্যাচে উইকেট খুব একটা ঝামেলা করবে না, যেহেতু ম্যাচ দুপুর দেড়টায় শুরু হবে।

আজ (৫ অক্টোবর) সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের আনসার ক্যাম্পের পাশের নেটে অনুশীলন করে বাংলাদেশ নারী দল। সেখানেই অনুশীলন শেষে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হন সানজিদা।

তিনি বলেন, ‘সকালে যখন খেলি, বৃষ্টি ও কুয়াশা থাকে, মাঠে ফিল্ড আরেকটু গ্রেসি থাকে। সেক্ষেত্রে লাঞ্চের পর যখন আমরা খেলবো, উইকেট আলাদা থাকবে, রোদ থাকবে। আশা করা যায় তখন উইকেট একটু ফ্ল্যাট হবে।’

আগের দুই ম্যাচ (থাইল্যান্ড, পাকিস্তান) বাংলাদেশ খেলেছে গ্রাউন্ড-২ এ। আগামীকালকের ম্যাচটি মূল মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

দলের তরুণ ক্রিকেটারদের একজন সানজিদা। এই বাঁহাতি মোটে ম্যাচ খেলেছেন ১১ টি। থাইল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ১১ রানে দুই উইকেট নিলেও পাকিস্তানের বিপক্ষে ছিলেন উইকেট শূন্য। তবে পরের ম্যাচে ফের পারফর্ম করে দলের চাহিদা মেটাতে চান।

তার ভাষায়,

‘আমি গত ম্যাচে দলের চাওয়া অনুযায়ী পারফরম করতে পারিনি। টার্গেট থাকবে পরের ম্যাচে যেন নিজেকে উজার করে ধরতে পারি। আমি আমার বেসিক পরিকল্পনা অনুযায়ীই বল করবো। দল, প্রতিপক্ষ যেই হোক, যদি বেসিক প্ল্যানে বল করি প্রতিপক্ষের জন্য অন্যরকম কিছুই হবে।’

আগের ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে হেরে পরদিন অনুশীলন না করে বিশ্রামে কাটিয়েছে টাইগ্রেসরা। আজ অবশ্য পুরোদমেই নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছে সালমা খাতুন, নিগার সুলতানা জ্যোতি, রুমানা আহমেদরা।

সানজিদা বলছেন হারের পর মানসিকভাবে পিছিয়ে না থেকে ইতিবাওচকই আছেন তারা,

‘আমাদের সিনিয়র আপুরা অনেক ইতিবাচক। তারা সবসময় আমাদের জুনিয়রদের সমর্থন দেয়। আমি দলের মধ্যে জুনিয়র, সিনিয়ররা সবসময়… হার-জিত দলে থাকবেই, এটা নিয়ে কোনো নেতিবাচতা আমাদের নাই। আমরা ইতিবাচক আছি, পরের ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়াবো।’

মালেশিয়ার বিপক্ষে কমনওয়েলথ গেমসে খেলার অভিজ্ঞতা আছে বাংলাদেশের। ঐ ম্যাচের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর কথাও জানালেন বাঁহাতি স্পিনার সানজিদা। কোনো প্রতিপখকে ছোট করে না দেখে ভালোভাবে শেষ করাতেই মনযোগ তাদের।

তিনি বলেন, ‘মালেশিয়ার সঙ্গে কমনওয়েলথে মুখোমুখি হয়েছি। ওদের দল নিয়ে ধারণা আছে। ইন শা আল্লাহ ভালো হবে মোটামুটি। আসলে প্রতিপক্ষ ছোট বা বড় করে দেখার উপায় নেই। কারণ এটা গুরুত্বপূর্ণ। সবাই জেতার জন্য এসেছে। আমাদের লক্ষ্য থাকবে প্রতিপক্ষ যেই হোক ভালোটা দিয়ে শুরু ও শেষ করতে চাই।’

সিলেট থেকে ক্রিকেট৯৭ প্রতিবেদক

Read Previous

সেপ্টেম্বর মাসের সেরা হবার দৌড়ে নিগার সুলতানা জ্যোতি

Read Next

ভিসা জটিলতায় নিউজিল্যান্ড পৌঁছাতে দেরি সাকিবের

Total
13
Share